হাসন রাজার গান

একদিন তোর হইবো রে মরণ

একদিন তোর হইবো রে মরণ, রে হাসন রাজা।
একদিন তোর হইবো রে মরণ।
মায়া জালে বেরিয়া মরন না হইলো স্বরণ ,রে হাসন রাজা।
একদিন তোর হইবো রে মরণ।।

যখন আসিয়া যমের দূত হাতে দিবে দড়ি হায়রে হাতে দিবে দড়ি।
টানিয়া টানিয়া লইয়া ,যাবে যমের পুরি রে হাসন রাজা।
একদিন তোর হইবো রে মরণ।।

কোথায় গিয়া রইব তোমার সুন্দর সুন্দর স্ত্রী হায়রে সুন্দর সুন্দর স্ত্রী
কোথায় রইব রামপাশা আর সাধের লক্ষনশিরী রে হাসন রাজা।
একদিন তোর হইবো রে মরণ।।

আর যাইবায় নিরে হাছন রাজা রাজগঞ্জ দিয়া হায়রে রাজগঞ্জ দিয়া
আর করবায় নিরে হাছন রাজা দেশে দেশে বিয়া রে হাসন রাজা।
একদিন তোর হইবো রে মরণ।।

করবায় নিরে হাছন রাজা রামপাশায় জমিদারী হায়রে রামপাশায় জমিদারী
আর করবায় নিরে কাপনা নদীর পারে ঘুরাঘুরি রে হাসন রাজা।
একদিন তোর হইবো রে মরণ।।

ছাড় ছাড় হাছন রাজা, এ ভবের আশা হায়রে এ ভবের আশা
প্রাণবন্ধের চরণতলে, কর গিয়া বাসা রে হাসন রাজা।
একদিন তোর হইবো রে মরণ।।

গুরুর উপদেশ শুনিয়া হাছন রাজায় কয় হায়রে হাছন রাজায় কয়
সব তেয়াগিলাম আমি, দেও পদাশ্রয় রে হাসন রাজা।
একদিন তোর হইবো রে মরণ।।

হাসন রাজার গান

মাটির পিঞ্জরার মাঝে বন্দি হইয়া

মাটির পিঞ্জরার মাঝে বন্দি হইয়ারে
কান্দে হাসন রাজার মন মুনিয়ায়রে।

মায়ে বাপে বন্দি কইলা খুশির মাজারে।
লালে ধলায় হইলাম বন্দি পিঞ্জরার ভিতরে।।
কান্দে হাসন রাজার মন মুনিয়ায়রে

পিঞ্জরায় সামাইয়া রে ময়নায় ছটফট ছটফট করে।
মজবুত পিঞ্জিরা ময়নায় ভাঙ্গিতে না পারে রে।।
কান্দে হাসন রাজার মন মুনিয়ায়রে

উড়িয়া যাইবো শুয়া পাখি পড়িয়া রইবো কায়া।
কিসের দেশ কিসের কেশ কিসের মায়া দয়া
কান্দে হাসন রাজার মন মুনিয়ায়রে

হাসন রাজায় ডাকবো যখন ময়না আয়রে আয়।
এমন নিষ্ঠুর ময়নায় আর কী ফিরিয়া চায়
কান্দে হাসন রাজার মন মুনিয়ায়রে।।

হাসন রাজার গান

হাছন রাজায় কয়

হাছন রাজায় কয়, আমি কিছু নয়রে, আমি কিছু নয়
অন্তরে বাহিরে দেখি, কেবল দয়াময়

প্রেমেরি বাজারে হাছন রাজা হইয়াছে লয়।
তুমি বিনে হাছন রাজায় কিছু না দেখয়

প্রেম জ্বালায় জ্বইলা মইলাম আর নাহি সয়
যেদিকে ফিরিয়া চাই, বন্ধু দয়াময়

তুমি আমি, আমি তুমি ছাড়িয়াছি ভয় ।।
উন্মাদ হইয়া হাছন, নাচিয়া বেড়ায়

হাছন রাজায় কয়, আমি কিছু নয়রে, আমি কিছু নয়
অন্তরে বাহিরে দেখি, কেবল দয়াময়

হাসন রাজার গান

লোকে বলে বলেরে

লোকে বলে বলেরে
ঘর-বাড়ি ভালা নাই আমার
কি ঘর বানাইমু আমি শূণ্যের মাঝার।।

ভালা কইরা ঘর বানাইয়া
কয়দিন থাকমু আর।
আয়না দিয়া চাইয়া দেখি
পাকনা চুল আমার।।

এ ভাবিয়া হাসন রাজায়
ঘর-দুয়ার না বান্ধে।
কোথায় নিয়া রাখব আল্লায়
তাই ভাবিয়া কান্দে।।

জানত যদি হাসন রাজা
বাঁচব কতদিন।
বানাইত দালান-কোঠা
করিয়া রঙিন।।

হাসন রাজার গান

সোনা বন্ধে আমারে দেওয়ানা বানাইলো

সোনা বন্ধে আমারে দেওয়ানা বানাইলো
সোনা বন্ধে আমারে পাগল করিল।
আরে না জানি কি মন্ত্র করি জাদু করিল।।

কবে ক’নে হইল আমার তার সংগে দেখা
অংশীদার নাইরে তার সে তো হয় একা ।।

রূপের ঝলক দেখিয়া তার আমি হইলাম ফানা
সেই অবধি লাগল আমার শ্যাম পিরিতির টানা।।

হাসন রাজা হইল পাগল লোকের হইল জানা
নাচে নাচে পালায় পালায় আর গায় গানা।।

মুখ চাইয়া হাসে আমার যত আরি পরী
দেখিয়াছি বন্ধের রূপ ভুলিতে না পারি।।

হাসন রাজার গান

আমি যাইমু ও যাইমু

আমি যাইমু ও যাইমু আল্লাহর সঙ্গে
হাছন রাজা আল্লাহ বিনে কিছু নাহি মাঙ্গে ।

আল্লাহ রূপ দেইখা হাছন হইয়াছে ফানা ,
নাচিয়া নাচিয়া হাছন গাইতে আছে গানা ।

আল্লাহ রূপ আল্লাহ রং আল্লাহ র ছবি ।।
নূরের বদন আল্লাহর কি কব তার খুবি ।
আমি যাইমু ও যাইমু আল্লাহর সঙ্গে

হাছন রাজা দিলের চোখে আল্লাহ রে দেখিয়া ।।
নাচে নাচে হাছন রাজা প্রেমে মাতাল হইয়া ।
আমি যাইমু ও যাইমু আল্লাহর সঙ্গে

হাসন রাজার গান

আগুন লাগাইয়া দিলো

আগুন লাগাইয়া দিলো কনে
হাছন রাজার মনে ।
নিভে নার উনো আগুন
জ্বলে দিলো জানে ।

ধপ ধপ করি উঠলো আগুন
ধইলো আমার প্রাণে
সুরমা নদীর জল দিলে
নিভে না সে কেনে ।

লাগাইলো লাগাইলো আগুন
আমার মনমোহনে
বাঁচিনা গো বাঁচি না গো
প্রাণ বন্ধু বিহনে ।

জ্বলিয়া জ্বলিয়া যায়রে আগুন
কিসে নাই মানে ,
বুঝিয়া দ্যাখরে হাছন রাজা
ধইলো না তোর ধনে ।

হাসন রাজার গান

নিশা লাগিলো রে

নিশা লাগিলো রে
বাকা দুই নয়নে
নিশা লাগিলো রে

হাছন রাজা
পিয়ারির প্রেমে মজিলো রে ।।

ছটফট করে হাছন দেখিয়া চান্দ মুখ
হাছন জানের মুখ দেখি জনমের গেলো দুখ ।

হাছন জানের রূপটা দেখি ফাল ফাল দি উঠে ।।
চিরাবারা হাছন রাজার
বুকের মাঝে ফুটে ।

নিশা লাগিলো রে
বাকা দুই নয়নে
নিশা লাগিলো রে

হাছন রাজা
পিয়ারির প্রেমে মজিলো রে ।।

হাসন রাজার গান

তুমি যে ক্ষতি করলা আমার

তুমি যে ক্ষতি করলা আমার
তুমি যে ক্ষতি করলা আমার
আল্লায় করবে তোমার বিচার।

তুমি অনেক দিন কাঁন্দাইলারে বন্ধু
কাঁন্দাইওনা বেশী আর
আল্লায় করবে তোমার বিচার।

আমি হইলাম তোমার রে বন্ধু
তুমি হইলা কার।

তোমার জন্য এত করলাম
কি দাম দিলা তুমি তার।

আমার আল্লায় করবে তোমার বিচার।

আমার ঘরে আগুন দিয়া তুমি হইলা পার
হায়রে তুমি হইলা পার।

সেই আগুনে জ্বইলারে বন্ধু
খুজি তোমায় বারে বার
হায়রে সেই আগুনে জ্বইলারে বন্ধু
খুজি তোমায় বারে বার।।