ব্যান্ড

তের নদী সাত সমুদ্দুর

যেখানেই থাক তুমি যাও যতদূর
সেখানে পৌঁছে যাবে আমার সুর
যেখানেই থাক তুমি যাও যতদূর
সেখানে পৌঁছে যাবে আমার সুর
এই গান পাড়ি দেবে প্রয়োজনে
তের নদী সাত সমুদ্দুর।(2)

মেঘের বারণ ভুলে
যেখানে তুমার চুলে
খেলা করে এখনো দুপুর
মেঘের বারণ ভুলে
যেখানে তুমার চুলে
খেলা করে এখনো দুপুর
সেখানে পৌঁছে যাবে আমার সুর
এই গান পাড়ি দেবে প্রয়োজনে
তের নদী সাত সমুদ্দুর।(2)

যেখানে গভীর রাতে
হাতের পরশে হাতে
চুড়ি বাঁজে ঝানাঝানাঝুর
যেখানে গভীর রাতে
হাতের পরশে হাতে
চুড়ি বাঁজে ঝানাঝানাঝুর
সেখানে পৌঁছে যাবে আমার সুর
এই গান পাড়ি দেবে প্রয়োজনে
তের নদী সাত সমুদ্দুর।(2)

যেখানেই থাক তুমি যাও যতদূর
সেখানে পৌঁছে যাবে আমার সুর
যেখানেই থাক তুমি যাও যতদূর
সেখানে পৌঁছে যাবে আমার সুর
এই গান পাড়ি দেবে প্রয়োজনে
তের নদী সাত সমুদ্দুর।(2)

ব্যান্ড

ফুল নেবে না অশ্রূ নেবে বন্ধু

ফুল নেবে না অশ্রূ নেবে বন্ধু।
যদি ফুল ফিরিয়ে দাও
তবে দিতে পারি তোমায়
এই দুচোখের ভর উঠা জলধারা।।

যদি তুমি না আস এ হৃদয় গহীনে
নিঃস্বাসে লাভ কি?
বাঁচা কোন কারণে
দেরি নয় দেরি নয় সুন্দরীতমা
চিৎকার করে বল
ভাল নেই তুমি ছাড়া।।

শুধু তোমার সম্মতিতে
পৃথিবী আমার হাসে
বুঝবে সে জন শুধু
যে মানুষ ভালবাসে
দেরি নয় দেরি নয় সুন্দরীতমা
চি”কার করে বল
ভাল নেই তুমি ছাড়া।।

যদি ফুল ফিরিয়ে দাও
তবে দিতে পারি তোমায়
এই দুচোখের ভর উঠা জলধারা।।

ব্যান্ড

স্বপ্নহারা বিবেকের দুয়ারে

স্বপ্নহারা বিবেকের দুয়ারে
দাঁড়িয়ে থাকা আমি এক ক্লান্ত পথিক
স্বপ্নহারা বিবেকের দুয়ারে
দাঁড়িয়ে থাকা আমি এক ক্লান্ত পথিক
ইচ্ছের প্রান্তরে যতদুর দৃষ্টি যায়
চেয়ে থাকি শূণ্যতায়……….
স্বপ্নহারা বিবেকের দুয়ারে
দাঁড়িয়ে থাকা আমি এক ক্লান্ত পথিক।

আগামী দিনের একফোঁটা আশ্বাসে
পুরনো প্রেমিকার ভেঙ্গে দেওয়া বিশ্বাসে
জানা অজানার ভীরে পাথর সময়।
আগামী দিনের একফোঁটা আশ্বাসে
পুরনো প্রেমিকার ভেঙ্গে দেওয়া বিশ্বাসে
জানা অজানার ভীরে পাথর সময়।
ইচ্ছের প্রান্তরে যতদুর দৃষ্টি যায়
চেয়ে থাকি শূণ্যতায়……………..
স্বপ্নহারা বিবেকের দুয়ারে
দাড়িয়ে থাকা আমি এক ক্লান্ত পথিক।

বিরহী রাতে হৃদয়ের বন্দরে
পরাজিত কেউ একাকি কেঁদে ফেরে
সুখের পলি জলে চর পড়ে যায়।
বিরহী রাতে হৃদয়ের বন্দরে
পরাজিত কেউ একাকি কেঁদে ফেরে
সুখের পলি জলে চর পড়ে যায়।
ইচ্ছের প্রান্তরে যতদুর দৃষ্টি যায়
চেয়ে থাকি শূণ্যতায়……………..

স্বপ্নহারা বিবেকের দুয়ারে
দাড়িয়ে থাকা আমি এক ক্লান্ত পথিক।
ইচ্ছের প্রান্তরে যতদুর দৃষ্টি যায়
চেয়ে থাকি শূণ্যতায়……………..
স্বপ্নহারা বিবেকের দুয়ারে
দাড়িয়ে থাকা আমি এক ক্লান্ত পথিক।

ব্যান্ড

মা

দশমাস দশদিন ধরে গর্ভে ধারণ
কষ্টের তীব্রতায় করেছে আমায় লালন,
হঠা” কোথায় না বলে হারিয়ে গেল
জন্মান্তরের বাঁধন কোথা হারালো।
সবাই বলে ঐ আকাশে লুকিয়ে আছে
খুঁজে দেখ পাবে দুর নক্ষত্র মাঝে।
রাতের তারা আমায় কি তুই বলতে পারিস
কোথায় আছে কেমন আছে মা।
ওরে তারা রাতের তারা মা“কে জানিয়ে দিস
অনেক কেঁদেছি আর কাঁদতে পারিনা।

মায়ের কোলে শুয়ে হারানো সে সুখ
অন্য মুখে খুঁজে ফিরি সেই প্রিয়মুখ
অনেক ঋণের জালে মাগো বেঁধেছিলে তাই
বিষাদের অভয়ারণ্যে ভয় তবু পাই।
সবাই বলে ঐ আকাশে লুকিয়ে আছে
খুঁজে দেখ পাবে দুর নক্ষত্র মাঝে
রাতের তারা আমায় কি তুই বলতে পারিস
কোথায় আছে কেমন আছে মা
ওরে তারা রাতের তারা মাকে জানিয়ে দিস
অনেক কেঁদেছি আর কাঁদতে পারিনা।

সবাই বলে ঐ আকাশে লুকিয়ে আছে
খুঁজে দেখ পাবে দুর নক্ষত্র মাঝে
রাতের তারা আমায় কি তুই বলতে পারিস
কোথায় আছে কেমন আছে মা
ওরে তারা রাতের তারা মাকে জানিয়ে দিস
অনেক কেঁদেছি আর কাঁদতে পারিনা।

ব্যান্ড

এপিটাফ

যেদিন বন্ধু চলে যাব,
চলে যাব বহুদূরে….
ক্ষমা করে দিও আমায়,
ক্ষমা করে দিও।
মনে রেখ কেবল একজন ছিল
ভালবাসতো শুধুই তোমাদের
মনে রেখ কেবল………. তোমাদের।

চোরা সুরের টানে রে বন্ধু
মনে যদি উঠে গান,
গানে গানে রেখো মনে
ভুলে যেও অভিমান (2)
মনে রেখো কেবল……….তোমাদের (2)

ভরা নদীর বাঁকে রে বন্ধু
ঢেওয়ে ঢেওয়ে দোলে গান
চলে যেতে হবে ভেবে
কেঁদে উঠে মন প্রাণ (2)
মনে রেখো কেবল………. তোমাদের (2)

যেদিন বন্ধু…………………..

ব্যান্ড

চাইতে পারো ২

চাইতেই পারো আবার সেই জোছনা
ঘরের সিলিং এ সন্ধ্যা তারাটা
চাইতেই পারো সারা রাত আর সারা দিন
হবেনা যে কখনও আর লোডশেডিং
চাইতেই পারো আমার ঘাড়ে পা রেখে
আকাশটা ছোঁয়ার স্বপ্ন দেখতে
চাইতেই পারো শুনতে নতুন এক গান
করবোনা যেখানে তোমায় আর অপমান!
এক মুঠো গোলাপ, আর ঐ নীল আকাশ,
আকাশের ঐ চাঁদ অথবা এই রাত!
কান্না ভেজা চোখ, অথবা মিষ্টি হাসি
যতই দেখাও আমাকে পাবেনা কিছুই তুমি!
তোমার জন্য নয়, আমার কোন কিছুই
বলেছিলাম অনেক আগেই
ভুলে গেছ কি!
চাইতেই পারো তুমি জি সিরিজ থেকে
ফুয়াদ ফিচারিং এ্যালবাম ছাড়তে
চাইতেই পারো চেষ্টা করে দেখতে
কে আছে আমার ফেসবুক ফ্রেন্ড লিস্টে
চাইতেই পারো তুমি হয়ে যেতে আজকে
এফএম চ্যানেলের হিট কোন আরজে
চাইতেই পারো নতুন এক ডিউ স্প্রে দিয়ে
মনের দুর্গন্ধটা দূর করতে!
এক মুঠো গোলাপ, আর ঐ নীল আকাশ,
আকাশের ঐ চাঁদ অথবা এই রাত!
কান্না ভেজা চোখ, অথবা মিষ্টি হাসি
যতই দেখাও আমাকে পাবেনা কিছুই তুমি!
তোমার জন্য নয়, আমার কোন কিছুই
বলেছিলাম অনেক আগেই
ভুলে গেছ কি! (x 2)

ব্যান্ড

বায়োস্কোপ

তোমার বাড়ির রঙ্গের মেলায়
দেখেছিলাম বায়স্কোপ
বায়স্কোপের নেশায় আমায় ছাড়েনা ।

ডাইনে তোমার চাচার বাড়ি
বায়ের দিকে পুকুরঘাট
সেই ভাবনায় বয়স আমার বাড়েনা ।

অন্তরে থাক পদ্ম-গোলাপ
গদ্যে-পদ্যে আঁকছি মুখ
ঘুরতে ছিলাম রঙ্গের মেলায়
অপূর্ব সে তোমার চোখ
অমন পলক ফেলতে তো কেউ পারেনা।

হঠাৎ তোমায় মন দিয়েছি
ফেরৎ চাইনি কোন দিন
মন কি তোমার হাতের নাটাই
তোমার কাছে আমার ঋণ
মন হারালেও মনের মানুষ হারে না।

তোমার বাড়ির রঙ্গের মেলায়
দেখেছিলাম বায়স্কোপ
বায়স্কোপের নেশায় আমায় ছাড়েনা।
ডাইনে তোমার চাচার বাড়ি
বায়ের দিকে পুকুরঘাট
সেই ভাবনায় বয়স আমার বাড়েনা ।

ব্যান্ড

চাঁদ তারা সূর্য নও তুমি

চাঁদ তারা সূর্য নও তুমি
নও পাহাড়ী ঝর্না,
যদি বলি ফুল তবুও হবে ভুল
তোমার তুলনা হয়না।

তুমি না এলে এই পৃথিবী আমার
হারাবে আপন ঠিকানা
যদি দূরে যাও স্বপ্ন গুলো আমার
ভেঙ্গে যাবে জানো না।

তোমার কথা ভেবে ভেবে
আমি গল্প কবিতা আর কাব্য লিখি,
তোমার চোখে চেয়ে থেকে
সুন্দর আমার পৃথিবী দেখি।

তুমি না এলে এই পৃথিবী আমার
হারাবে আপন ঠিকানা
যদি দূরে যাও স্বপ্ন গুলো আমার
ভেঙ্গে যাবে জানো না।

জীবন চলার পথে জানি
তুমি প্রথম দিয়েছ দেখা,
ভুল বুঝে কোনোদিনও
আমায় তুমি করোনা একা।

তুমি না এলে এই পৃথিবী আমার
হারাবে আপন ঠিকানা
যদি দূরে যাও স্বপ্ন গুলো আমার
ভেঙ্গে যাবে জানো না।

ব্যান্ড

আমি ভুলব না তোমাকে

বিস্ময় ছিলে তুমি স্বপ্ন আমার
কাছে পাব না জানি তোমাকে তো আর
কাটতো সময় কত গল্প করে
বলতে ভালবাসি হাতটি ধরে
আমি ভুলব না, আমি ভুলব না আমি ভুলব না তোমাকে।
আমি ভুলব না, আমি ভুলব না, আমি ভুলব না তোমাকে।

স্বপ্ন প্রহরগুলো মনে পড়ে যায়
সোনালী আবেগ কাছে ডাকতো আমায়
স্মৃতিগুলো আজ শুধু আবেশে জড়ায়
ব্যর্থ এ মন শুধু আমাকে কাঁদায়।
আমি ভুলব না, আমি ভুলব না আমি ভুলব না তোমাকে।

প্রেম কি ছিল না ছিল শুধু প্রহসন
চেয়েছি নিবিড় করে শুধু অকারণ
তোমারই ছবি মনে তুমি পাশে নেই
অন্যের হয়ে গেলে খুব সহজেই
কেন থাকলে না, কেন থাকলে না কেন থাকলে না আমার হয়ে
আমি ভুলব না, আমি ভুলব না, আমি ভুলব না তোমাকে।

দিশেহারা হয়ে পড়ে আছি তবু
পারি নি মেনে নিতে ভুলে যাবে কভু
চলে গেল কেন একা ফেলে আমাকে

তোমার অবুঝ মন বুঝেনি তখন
হয়ত পারি নি হতে তোমারই মতন
হৃদয়মাঝে স্মৃতি চিহ্ন রেখে
প্রেমের সমাধি মনে গেলে যে এঁকে
আমি ভুলব না, আমি ভুলব না, আমি ভুলব না তোমাকে।

ব্যান্ড

বাংলাদেশ

তুমি মিশ্রিত লগ্ন মাধুরীর জলে ভেজা কবিতায়
আছো সারোয়ার্দী, শেরেবাংলা, ভাসানীর শেষ ইচ্ছায়
তুমি বঙ্গবন্ধুর রক্তে আগুন জ্বালা জ্বালাময়ী সে ভাষণ
তুমি ধানের শীষে মিশে থাকা শহীদ জিয়ার স্বপন
তুমি ছেলেহারা মা জাহানারা ইমামের একাক্তরের দিনগুলি
তুমি জসিম উদদীনের নকশী কাথার মাঠ, মুঠো মুঠো সোনার ধুলি
তুমি তিরিশ কিংবা তার অধিক লাখো শহীদের প্রাণ
তুমি শহীদ মিনারের প্রভাতফেরী, ভাইহারা একুশের গান
আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি
জন্ম দিয়েছো তুমি মাগো, তাই তোমায় ভালোবাসি
আমার প্রাণের বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি
প্রাণের প্রিয় মাগো তোকে, বড় বেশী ভালোবাসি………

তুমি কবি নজরুলের বিদ্রোহী কবিতা, উন্নত মম শির
তুমি রক্তের কালিতে লেখা নাম, সাত শ্রেষ্ঠ বীর
তুমি সুরের পাখি আব্বাসের দরদভরা সেই গান
তুমি আব্দুল আলীমের সর্বনাশা পদ্নানদীর টান
তুমি সুফিয়া কামালের কাব্যভাষায় নারীর অধিকার
তুমি স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রের শাণিত ছুরির ধার
তুমি জয়নুল আবেদীন, এস এম সুলতানের রংতুলির আঁচড়
শহীদুল্লাহ কায়সার, মুনির চৌধুরীর নতুন দেখা সেই ভোর
আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি
জন্ম দিয়েছো তুমি মাগো, তাই তোমায় ভালোবাসি
আমার প্রাণের বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি
প্রাণের প্রিয় মাগো তোকে, বড় বেশী ভালোবাসি………..

তুমি বিস্মৃত লগ্নমাধুরীর জলে ভেজা কবিতায়
তুমি বাঙ্গালীর গর্ব, বাঙ্গালীর প্রেম, প্রথম ও শেষ ছোঁয়ায়
তুমি বঙ্গবন্ধুর রক্তে আগুন জ্বালা জ্বালাময়ী সে ভাষণ
তুমি ধানের শীষে মিশে থাকা শহীদ জিয়ার স্বপন
তুমি একটি ফুলকে বাঁচাবো বলে বেজে ওঠো সুমধুর
তুমি রাগে অনুরাগে মুক্তিসংগ্রামে সোনাধরা সেই রোদ্দুর
তুমি প্রতিটি পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধার অভিমানের সংসার
তুমি ক্রন্দন, তুমি হাসি, তুমি জাগ্রত শহীদ মিনার
আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি
জন্ম দিয়েছো তুমি মাগো, তাই তোমায় ভালোবাসি
আমার প্রাণের বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি
প্রাণের প্রিয় মাগো তোকে, বড় বেশী ভালোবাসি……..

ব্যান্ড

বরষা

বরষা মানেনা
ঝরছে জলধারা
জানিনা, জানিনা-কাটবে কি ঘনঘটা

অনুনয় মানেনা
অবারিত মনকথা
জানিনা, জানিনা-থামবে কি ঘনঘটা

নির্ঝর গগনে, অপলক চেয়ে রই
বিস্মৃত কবিতা, আনকা পবনে
মেঘলা কবেকার স্মৃতিময় বাতায়ন
বলে যায় তোমায় অনব ভালবাসি

দিপীকা সায়রে অনিমেষ চেয়ে রই
মিথিলা বরষায় অলোক দহনে
মেঘলা কবেকার স্মৃতিময় বাতায়ন
বলে যায় তোমায় অনব ভালবাসি

বরষা মানেনা
ঝরছে জলধারা……

ব্যান্ড

শ্রাবনের মেঘগুলি

শ্রাবনের মেঘগুলি জড়ো হলো আকাশে
অঝরে নামবে বুঝি শ্রাবনেই ঝরায়ে

আজ কেন মন উদাসী হয়ে
দূর অজানায় চায় হারাতে

কবিতার বই সবে খুলেছি
হিমেল হাওয়ায় মন ভিজেছে
জানালার পাশে চাঁপা মাধবী
বাগান বিলাসী হেনা দুলেছে

আজ কেন মন উদাসী হয়ে
দূর অজানায় চায় হারাতে

মেঘেদের যুদ্ধ শুনেছি
সিক্ত আকাশ কেঁদে চলেছে
থেমেছে হাঁসের জলকেলী
পথিকের পায়ে হাঁটা থেমেছে

আজ কেন মন উদাসী হয়ে
দূর অজানায় চায় হারাতে

শ্রাবনের মেঘগুলো জড়ো হলো আকাশে
অঝরে নামবে বুঝি শ্রাবনেই ঝরায়ে

ব্যান্ড

শেষ চিঠি

শেষ কথা কেন এমন কথা হয়
শেষ চিঠি কেন এমন চিঠি হয়
ক্ষমা করো
ক্ষমা করো আমায়

হয়না কেন এমন শেষ কথা
হয়না কেন এমন শেষ চিঠি
আর কথা নয় আর চিঠি নয়
চলে যাব বহুদূরে
ক্ষমা করো আমায়

হয়না কেন এমন শেষ পাওয়া
হয়না কেন এমন শেষ চাওয়া
আর চাওয়া নয় আর পাওয়া নয়
চলে যাব বহুদূরে
ক্ষমা করো আমায়

ব্যান্ড

সে তাঁরা ভরা রাতে

সে তাঁরা ভরা রাতে
আমি পারিনি বোঝাতে
তোমাকে আমার মনের ব্যাথা
তুমিতো বলেছ শুধু
তোমার সুখের কথা।

আমি অনেক পথ ঘুরে
ক্ষয়ে ক্ষয়ে অন্ধকারে
তোমার পথের দেখা পেয়েছি
আর হৃদয়ের মাঝে
তোমায় কাছে আমি চেয়েছি
আজও হলোনা বলা
আমার না বলা কথা।

আমি অনেক ব্যাথা সয়ে
ছল ছল চোখের জ্বলে
তোমার চলে যাওয়া দেখেছি
আর রাতেরও আঁধারে
মনের দুঃখে আমি কেঁদেছি
আজও হলোনা বলা
আমার না বলা কথা।

ব্যান্ড

ধূসর সময়

নোনা স্বপ্নে গড়া তোমার স্মৃতি
শত রঙে রাঙিয়ে মিথ্যে কোনো স্পন্দন
আলোর নিচে যে আঁধার খেলা করে
সে আঁধারে শরীর মেশালে…হে…

আজ আমি ধূসর কি রঙিন সময়ে
পথে হারাই তোমাতে

জীবনের কাঁটা তারে তুমি অন্তহীনের অপূর্ণতায়
বেওয়ারিশ ঘুড়ি উড়ে যাও অনাবিল আকাশের শূণ্যতায়

তবু আমি…

কি খুঁজি মানুষের বিষাদের চোখে
কোথায় আলোর উৎসবে স্বপ্নের প্রতিবিম্ব ভাঙে
একা একা আমি থাকি দাঁড়ায়ে
স্মৃতির ঝড়ো বাতাসে
দুজনার শরীর মেশায়