ব্যান্ড

হৃদয় জুড়ে যত ভালোবাসা

হৃদয় জুড়ে যত ভালোবাসা
শুধু তোমাকে দেবো ভেবে
স্বপ্নীল মনে রঙিন আশা
শুধু তোমাকে পাবো ভেবে
মনে জাগে এক রঙিন আশা
শুধু তোমাকে ভালোবাসবো ভেবে
হৃদয় জুড়ে যত ভালোবাসা
শুধু তোমাকে দেবো ভেবে

যখন দেখি তোমায় আমি
অনেক কাছে
হৃদয় গভীরে শুকনো আকাশ
মেঘে ভরে যে ।।

অশ্রু বরষা জাগাও তুমি
নিবিরে থেকেও জেনে

হৃদয় জুড়ে যত ভালোবাসা
শুধু তোমাকে দেবো ভেবে
স্বপ্নীল মনে রঙিন আশা
শুধু তোমাকে পাবো ভেবে

যখন দেখি তোমার হাসি
মনের মাঝে
মনের নীলে হারাই আমি
সঙ্গোপনে ।।

জীবন ভরসা দিয়েছো তুমি
আমাকে নিরবে ভালোবেসে

হৃদয় জুড়ে যত ভালোবাসা
শুধু তোমাকে দেবো ভেবে
স্বপ্নীল মনে রঙিন আশা
শুধু তোমাকে পাবো ভেবে
মনে জাগে এক রঙিন আশা
শুধু তোমাকে ভালোবাসবো ভেবে
হৃদয় জুড়ে যত ভালোবাসা
শুধু তোমাকে দেবো ভেবে

ব্যান্ড

যত দূরেই থাকো

চুপচাপ চারিদিক মাতাল হাওয়া
পাখিদের কোলাহলে মন যে হারায়
হঠাৎ দেখি তোমাকে অচেনা ছায়ায়
আমার ই স্বপ্নে আকা এ যে তুমি
নিঃশব্দে এলে তুমি আমার ই ভুবনে
গোধুলি হয়ে রবে তুমি আমার ই চিরকাল
“যত দূরেই থাকো রবে আমার ই
হারিয়ে যেয়োনা কখনো তুমি।

কত কাল রয়েছি
তোমার ই পথ চেয়ে
কত কাল কেটেছে
তোমার ই আশাতে

ব্যান্ড

সারাদিন তোমায় ভেবে

সারাদিন তোমায় ভেবে
হলো না আমার কোন কাজ
হলো না তোমাকে পাওয়া
দিন যে বৃথাই গেল আজ

সারাদিন গাছের ছায়ায়
উদাসী দুপুর কেটেছে
যা শুনে ভেবেছি এসেছো
সে শুধু পাতারই আওয়াজ

হাওয়া রা হঠাৎ এসে জানালো
তুমি তো আমার কাছে আসবে না
এক হৃদয় হয়ে ভাসবে না

তবে কি একাই থাকবো
তবে কি আমার কেউ নেই
সারাদিন যেমন কেটেছে
তেমনি যাবে গো সাঁঝ

সারাদিন তোমায় ভেবে
হলো না আমার কোন কাজ
হলো না তোমাকে পাওয়া
দিন যে বৃথাই গেল আজ

সারাদিন তোমায় ভেবে

ব্যান্ড

দুঃখ কেন কররে মন

দুঃখ কেন কররে মন
দুঃখ তোমার গোছবে না ও মন
দুঃখ যদি নাইবা পারে
সুখের কদর বুঝতে নারে

কাঁদতে কেন চাওরে ও মন
কান্না তোমার ফোরাবে না যখন
কাঁদতে গিয়ে হেসো এবার
সুখের লগন মিলবে না আর।।

কান্না নিয়ে জীবন শুরু
কান্না নিয়ে জীবন শেষ
মধ্যেখানে থাকনা শুধু
আনন্দ আর হাসির রেশ।

ব্যান্ড

কেমন করে হায় বলবো তোমাকে

কেমন করে হায় বলবো তোমাকে
বন্ধু আমি তোমায় ভালোবাসি।।

এখন করি কি উপায়
এই মন রাখা যে দায়।

রঙ্গিন নেশার এই মনে রঙ লেগেছে
তাই চোখে চোখে বলছি ইশারায়।

সুনীল আকাশ এই প্রানে বান ডেকেছে
তাই মেঘে মেঘে ঘুরছি অজানায়।

ব্যান্ড

এই দূর পরবাসে

এই দূর পরবাসে তারাগুনি আকাশে আকাশে
কাটে নিঃসঙ্গ রাত্রিগুলো।।

মাঝে মাঝে স্বপ্নের বেশে স্মৃতিরা এসে
আমাকে করে যায় বড় বেশী এলোমেলো।।

মনে পড়ে যায় বন্ধুদের আড্ডা মুখর প্রহর
তমুল উল্লাসে ভরা প্রিয় শহর।।

সেখানে হয়ত সবাই ব্যস্ত মেলে না সময়
তবু সেখানেই ফিরে যেতে চায় ফেরারী হৃদয়

এই একাকী জীবন ভাল লাগে না আমার
বিষন্ন দিনের শেষে বিষন্ন রাতের শেষে।।

মনে পড়ে যায় কখনো পুরনো তোমাকে
প্রতিটি কষ্টমাখা দিনের ফাঁকে।

হয়ত বদলে গেছ,হয়ে গেছ অচেনা তুমি
তবু তোমাকেই ফিরে পেতে চায় দূরের আমি।।

ব্যান্ড

এমন একটা সময় ছিলো

এমন একটা সময় ছিলো
মায়াবী রাত নিঝুম ছিলো
তখন আকাশে ছিলো তারা
চাদের আলোর ফোয়ারা

তোমার হাতে হাত ছিলো
হৃদয়ে গুঞ্জন চলছিলো
নীরবে এই মন নিয়েছিলে
কেন তা ফিরিয়ে দিলে

চাঁদ আছে আকাশে
নীরবতা বাতাসে
সব কিছু আগের মত
শুধু তুমি নেই আমার সাথে

তোমার, আমার
পথ আজ চলে গেছে দুরে
কোথাও
সীমাহীন অজানায়।।

এমন একটা হৃদয় ছিলো
সুখগুলো বাস করছিলো
সুনিপুন অভিনয় করে তুমি
কেন আজ হারিয়ে গেলে

এই আমার পাশে তুমি ছিলে
মন ভরা ভালোবাসা নিয়ে
তখন হৃদয়ে দিয়ে সাড়া
কেন আজ অচেনা হলে

চাঁদ আছে আকাশে
নীরবতা বাতাসে
সব কিছু আগের মত
শুধু তুমি নেই আমার সাথে

তোমার, আমার
পথ আজ চলে গেছে দুরে
কোথাও
সীমাহীন অজানায়।।

ব্যান্ড

কে বাঁশী বাজায় রে

আমার প্রান যে মানে না
কিছুই ভালো লাগে না

কে বাঁশী বাজায় রে
মন কেন নাচায় রে
আমার প্রান যে মানে না
কিছুই ভালো লাগে না।

ঐ বাঁশী কি বিষের বাঁশী
তবু কেন ভালোবাসি
লগ্ন ভোরে আড়াল থেকে
দেখেছি পোড়া হাসি।

সে যে হৃদয় কখন করলো হরণ
কিছুই জানি না।।

নাম ধরে সে ডাকে না যে
তবু কেন মরি লাজে
মন যেন আজ একা একা
বসে না কোন কাজে।

সে যে চুপিসারে আমায় কেন
দেখেও দেখে না।।

ব্যান্ড

মন

মন হাওয়ায় পেয়েছি তোর নাম
মন হাওয়ায় হারিয়ে ফেললাম।।

হাওয়া দিলো শিশিরানিটা
হাওয়া দিলো ডানা
হাওয়া দিলো ছেঁড়া স্যান্ডল
ভুল ঠিকানা।।

মন রে, হলুদ আলোয় হাওয়ার আবীর মাখলাম
হে হে মন, আলেয়া পরালো খালি হাত
মন, জাগেনা জাগেনা সারা রাত।।

জেগে থাকে ঘুম পাহাড়ের মন
কেমন আলো
দূরদেশে ফিকে হওয়া রাত
ডাক পাঠালো।।

মন রে, ঘুমের গোপনে তোমাকে আবার ডাকলাম
হে হে
আদরের ডাক যদি মুছে
এই নাও কিছু ঘুম পাড়ানি গান আলগোছে
বোঝনা এটুকু শিলালিপি
মন রে, ব্যাথার আদরে অবুঝ আঙ্গুল রাখলাম
হে হে
মন, বুকের ভিতরে যে নরম
মন, ছুঁয়ো না ছুঁয়ো না এরকম।।

ছুঁয়ে দিলে বুক কুরে কুরে খায়
সোনা পোকা
বেপাড়ায় কাঁদবেনা এমা ছি: ছি: বোকা
মন রে, নাহয় পকেটে খুচরো পাথর রাখলাম

ব্যান্ড

আচ্ছা কেন মানুষগুলো এমন হয়ে যায়

আচ্ছা কেন মানুষগুলো এমন হয়ে যায়
চেনাজানা মুখগুলো সব কেমন হয়ে যায়
দিন বদলের খেলাতে
মন বদলের মেলাতে
মানুষগুলো দিনে দিনে
বদলে কেন যায়।।

সুখের দিনে ভালোবাসা দেয় যে কতজন
কাছে আসে ভালোবাসে দেয় যে ভরে মন
দিন বদলের খেলাতে
মন বদলের মেলাতে
মানুষগুলো দিনে দিনে
বদলে কেন যায়।।

দুঃখের দিনে কাছে এসে পথ ভুলে কি কেউ
একা ঘরে পড়েই রবে জানবে নাতো কেউ
দিন বদলের খেলাতে
মন বদলের মেলাতে
মানুষগুলো দিনে দিনে
বদলে কেন যায়।।

ব্যান্ড

মা

ঘুম পাড়ানিয়া গান আর কেউ গায় না
আর কোন মুখে তার ছায়া দেখা যায় না
তার কোলে লুকনো আদর কোথাও পাবো না
চোখ বুজলেই দেখি তাকে
সে তো আমার মা
মা আমার মা।

কোন জগতে দেখলে তোমায়
ভুলে যাই ভুলে যাই সব যাতনা
মা আমার মা।

দূর দেশেতে ডুবে থাকি কত ব্যস্ততায়
তবু মন পড়ে থাকে তোমার মমতায়
তুমি ভাব পাগল আমি খোজ রাখি না
শুধু জেনে নিও প্রতিক্ষণ তোমায় খুজি মা
মা আমার মা।

কোন জগতে দেখলে তোমায়
ভুলে যাই ভুলে যাই সব যাতনা
মা আমার মা।

একা ঘরে বসে ভাবি মায়ের হাসি
তবু মন ভাবে নাকি হয় অভিলাষি
কেউ জানে না কাঁদি একা কেউ বোঝে না
এই গানে সব ভালবাসা তোমায় দিলাম মা

মা আমার মা।
কোন জগতে দেখলে তোমায়
ভুলে যাই ভুলে যাই সব যাতনা
মা আমার মা।

ব্যান্ড

নীলাকাশ যতদূর দেখা যায়

নীলাকাশ যতদূর দেখা যায়
জীবনের এই আঙ্গিনায়
স্বপ্নগুলো এসে ধরা দেয়
ভুল যত করেছি এই জীবনে
কোনকিছু মিল হবেনা
এলোমেলো হয়ে গেছে যে সবই
পারিনা ভুলতে যে আমি
কঠিন সমাজের সে বাঁধন
স্বর্ণালী প্রতি প্রভাতে
বাঁধনের স্মৃতি এসে ধরা দেয়
জীবনের সবকিছু হতাশা
ভুলে যাও সমাজের যাতনা
কেন তুমি পারনি তা সইতে
তোমারই স্বপ্ন রয়ে যায়
রয়ে যায়…।
জীবনের সবকিছু হতাশা
ভুলে যাও সমাজের যাতনা
কেন তুমি পারনি তা সইতে
তোমারই স্বপ্ন রয়ে যায়
রয়ে যায়…।

আকাশের ঐ দূর নীলিমায়
স্বপ্নীল দু:খগুলো
আজীবন সঙ্গী হল আমার
আঁধারের ঐ শেষ সীমানায়
মায়াহরিনের বনে
মরিচীকা ডাকে ইশারায়
অপরাধী হয়ে শুধু আমি
নিজের কাছে আজ ফেরারী
রুপালী দ্বিপ আলোতে
মায়াবী রাত পিছু ডেকে যায়
তুমিহীনা সবকিছু বড় নিষ্প্রাণ
স্মৃতিভরা বেদনার বালুচর
নতজানু রাত্রির কান্নাতে
ভেঙ্গে গেছে স্বপ্নের বাঁধা ঘর
তুমিহীনা সবকিছু বড় নিষ্প্রাণ
স্মৃতিভরা বেদনার বালুচর
নতজানু রাত্রির কান্নাতে
ভেঙ্গে গেছে স্বপ্নের বাঁধা ঘর
বাঁধা ঘর……।

নীলাকাশ যতদূর দেখা যায়
জীবনের এই আঙ্গিনায়
স্বপ্নগুলো এসে ধরা দেয়
ভুল যত করেছি এই জীবনে
কোনকিছু মিল হবেনা
এলোমেলো হয়ে গেছে যে সবই
পারিনা ভুলতে যে আমি
কঠিন সমাজের সে বাঁধন
স্বর্ণালী প্রতি প্রভাতে
বাঁধনের স্মৃতি এসে ধরা দেয়
জীবনের সবকিছু হতাশা
ভুলে যাও সমাজের যাতনা
কেন তুমি পারনি তা সইতে
তোমারই স্বপ্ন রয়ে যায়
জীবনের সবকিছু হতাশা
ভুলে যাও সমাজের যাতনা
কেন তুমি পারনি তা সইতে
তোমারই স্বপ্ন রয়ে যায়
রয়ে যায়…।

ব্যান্ড

অনন্যা

ভেবে ভেবে তোমার কথা উদাস হয়ে যাই
একা নির্জনে স্বপ্নের সংসারে খুঁজি তোমায়
কতদিন কতরাত্রি গিয়েছে পেরিয়ে
কভু আনমনে ছুঁয়ে তুমি লাজুক দৃষ্টি নিয়ে

অনন্যা অনন্যা তুমি আমার ভালবাসা।

নির্ঘুম প্রহর তোমার পানে পার
প্রেমের বিষাদ সুখে আমি তুমি নয়
কতভাবে ভেবেছি বলব তোমাকে
পেয়েছি খুঁজে ভালবাসা আমি
অবুঝ তোমার চোখে

ও অনন্যা অনন্যা তুমি আমার ভালবাসা।

দিশেহারা আমি কি পাব
ছোঁয়া তোমার ভবঘুরে জীবনে
সুপ্রভাতে দুঃখের রাতে
আমারই থেকো বেহিসেবি জীবনে
তুমি যে আমার বুকের গভীরে
আমার রক্তের প্রতিটি অণুতে অণুতে
প্রতিটি কোষে অনুভবে আছ মিশে

অনন্যা অনন্যা তুমি আমার ভালবাসা।।

ব্যান্ড

শেষ দেখা

যে তুমি কথা রাখ নি
কি লাভ এতদিন পর এই আমার কাছে এসে
ভুল ভেঙে অবশেষে
আমি তো আজ শুধু আমার
বুকে ব্যথার নিয়ে পাহাড়
আমার সমাধীর পর আমি চাই নাতোমার উপহার
নিষ্প্রাণ দেহের কাছে তুমি রেখো না তোমার অধিকার।

ছিঁড়ে গেছে গীটারের তার বাজবে না সুর তাতে আর
বুঝেও কি বোঝ নি
নতুন প্রণয় মিছিলে তুমি সেদিন হেসেছো
মনে আছে ভুলি নি
সে কথা আজ মনে করে ব্যথা পেতে চাই না আর
আমি তো আজ শুধু আমার বুকে ব্যথার নিয়ে পাহাড়।

জীবনের যোগ বিয়োগে অনেক কিছুই হারিয়ে
কি পেয়েছি জানি না
মেলাতে হিসাব গিয়ে তার ব্যর্থ হয়েছি বারেবার
কিছুতে যা পারি না
যে ক্ষতি হায় করে গেছো ক্ষত বুকে রয়েছে তার।

ব্যান্ড

আবার দেখা হবে

বোঝাতে কি পেরেছি তোমাকে যে তা
বিরহে নিহিত সেই শোক বারতা
যখন আমি থাকব না তোমার কাছে
আমায় পাবে গীতিকবিতা মাঝে
যাবার বেলায় শুধু সান্তনা নয় কান্না
আবার দেখা হবে এখনি শেষ দেখা নয়
আবার কথা হবে এখনি শেষ কথা নয়

অশ্রু মুছে তুমি তাকাবে
মনকে আলোকিত করবে
তোমার অশ্রু আমায় দূর্বল করে দেয়।

হৃদয়ের না বলা কথা
সে আমার না লেখা বারতা
মেঘকে দূত করে পাঠাব কখনো তোমায়।