ব্যান্ড

অপরাজিত

এবার তোমার কথাগুলোর
কাছে আমি অপরাজিত
জমে থাকা যত অনুভূতি আমার
জল রঙে হারিয়ে যাবে
অধিকারের ভালবাসা
রঙে হারিয়ে যাবে

আবার ফিরে কেন আসা?
হেরে যাওয়া পথে, দুরে, সুরে, ঘুরে
তোমার আমার স্বপ্ন পুড়ে
বিষণ্ণতার জগৎ জুড়ে তুমি
যেদিকে যাবে আমায় ভেবে তোমার দুচোখ
হারাবে পথ আর্তনাদের বৃষ্টি রাতে
ফেরাবে, যেখানে, আমি নেই, দাড়িয়ে দাড়িয়ে

ব্যান্ড

Ai Ami

“এই আমি”

কণ্ঠ ও সুর : প্রিন্স
কথা : রবিন

কোনো ছেকরা গাড়ির তলায় পিষে
রাস্তার মাঝখানে
মরে থাকতে চাইনে
এই আমি।

বনের রাজা হয়েও
ননীর পুতুল হয়ে সার্কাসে
পড়ে থাকতে চাইনে
এই আমি।

ডানা মেলে গগনে
উড়ে বেড়ানোর সাধ্য নিয়ে
বন্দি পাখি হয়ে
থাকতে চাইনে
এই আমি।

এই আমি আর ঐ আমি
তফাতটা অনেক খানি।
এই আমি আর ঐ আমি
অনেক বদলে গেছি।

কোনো পাতাহীন গাছের ডালে
ছিড়ে ঘুড়ি বালকের
চোখে হতাশার কারন হতে চাইনে
এই আমি ।

কোনো পাতাহীন গাছের ডালে
ছিড়ে ঘুড়ি বালকের
চোখে হতাশার কারন হতে চাইনে
এই আমি ।

এই আমি আর ঐ আমি
তফাতটা অনেক খানি।
এই আমি আর ঐ আমি
অনেক বদলে গেছি।

কোনো ছেকরা গাড়ির তলায় পিষে
রাস্তার মাঝখানে
মরে থাকতে চাইনে
এই আমি।

ব্যান্ড

হারানো পদক

মাঝরাতে লাইব্রেরীতে ,
তারই অপেক্ষায় বসে
ভাবছি কতক্ষনে সে আসবে
আমার নিদ্রাহীনতার দেশে
সঙ্গীনী অশরীরি
কখনো এতটা করেনা দেরি
সে চুরি করে হৃদয়, হৃদয়ে বন্দীনী
সে এক অভিশপ্ত জাদুকরী
কখনো জীবীত তাকে ভালোবাসিনি
আমি অদৃশ্য দেহের পরেছি প্রেমে
রাতে তার উপস্থিতির অনুভূতি চুরির রিনিঝিনি
দিনে তৈলচিত্র বাধানো ফ্রেমে…..

মণিহারা সুন্দরী দোহাই দোহাই
হয়ে সাতনোহলা হার চাই ছুতে হৃদয়ের খোয়ায়
এ বস্তুবাদের আবাদে তোমার পূণর্জন্ম হোক
পরে মৃত্যুপুরিতে তোমার হারানো পদক

একা এ প্রাসাদে আমি
যে প্রাসাদ আমার থেকেও দামী
কাউন্ট ড্রাকুলার মত ব্যাকুল আসামী
জেলখানা খা খা শূন্যস্থান
তার আগমনী ধ্বনিতে
প্লাবন ওঠে আমার শোণিতে
সে বোধ হয় জন্ম নেয় আমার ভূতযোনিতে
সে আমার ক্ষুধিত পাষাণ
আত্মাকে পিছু ফিরতে মানা করিনি
কোন তীর্থে দেয়া হয়নি পিণ্ড দান
কবরে চিতাতে তার দেহ আমি নষ্ট করিনি
তার অঙ্গ প্রত্যঙ্গে সাজিয়েছি মাকান

দেহ হারা সুন্দরী, দোহায় দোহায়
করুক অবাধ্য বুলেট বিদ্ধ এ হৃদয়ের খোয়ায়
এ বস্তুবাদের আবাদে তোমার পুনর্জন্ম হোক
পরে মৃত্যুপুরীতে তোমার হারানো পদক

মণিহারা সুন্দরী দোহাই দোহাই
হয়ে সাতনোহলা হার চাই ছুতে হৃদয়ের খোয়ায়
এ বস্তুবাদের আবাদে তোমার পূণর্জন্ম হোক
পরে মৃত্যুপুরিতে তোমার হারানো পদক।

ব্যান্ড

Confusion

এই চেনা শহর চেনা সময়
সময় গরালে অচেনাও হয়
এই তোমায় নিয়ে আমি ভাবি
তোমায় অনেক চিনে ফেলেছি
আসলে কি করেছি?

তোমায় আমি চিনি না, আবার বোধ হয় চিনি

এই ভালবাসা দিলাম তোমায়
কিন্তু একটা কিন্তু থেকেই যায়
যখন দূরে দূরে থাকো তুমি
তখন অনেক ভালবেসে ফেলি হায়
আসলে কি বেসেছি?

তোমায় ভালবাসি না, আবার বোধ হয় বাসি

এই চেনা রাস্তা চেনা বাস ট্রেন চেনা অচেনা হায় দেখি
সবাই ছুটে চলে একলা কিংবা দলে দলে ঠিক কিংবা ভুলে
বইতে বইতে যেমন জল কেমনে কেমনে কেমনে সব এক হয়ে যায়
সুখ দুঃখ কষ্টের পাহারে ঝর্ণার মত বয়ে চলা মানুষদের

আমি ডাকি না, আমি ডাকি না, আমি ডাকি না, আমি ডাকি না, নাকি ডাকি
আমি চিনি না, আমি চিনি না, আমি চিনি না, আমি চিনি না, নাকি চিনি

কাউকে আমি চিনি না, আবার বোধহয় চিনি
কাউকে ভালবাসি না, আবার বোধহয় বাসি
কাউকে আমি ডাকি না, আবার বোধ হয় ডাকি
আমিকে আমি চিনি না, আবার বোধ হয় চিনি

ব্যান্ড

গান: কবর কন্ঠ: আরমান আলিফ কথা ও সুর : আরমান আলিফ

কলোয়ে ভরা বামপাশের একটা ছোট্ট জায়গাতে
ছিলো কতো হাসির খেলা যে আজ হরিয়ে গেছে
ধূলোয় মরানো সখের দেয়ালটাতে ব্যাথায় পরে আছে
সেই দেয়ালে পোস্টারে বেনামি তোর নাম লেখা আছে

কলোয়ে ভরা বামপাশের একটা ছোট্ট জায়গাতে
ছিলো কতো হাসির খেলা যে আজ হরিয়ে গেছে
ধূলোয় মরানো সখের দেয়ালটাতে ব্যাথায় পরে আছে
সেই দেয়ালে পোস্টারে বেনামি তোর নাম লেখা আছে

কোনো মানষের মায়ার পড়ে তোর অজানার আজ বাস
তোর – আমার প্রেমে ছিলো না রে কষ্টের দীর্ঘশ্বাস
তবুও কেনো রাখতে পারিস নি কথা গুলো তোর
হাসি মুখে দিয়ে দিলি আমার জ্যান্ত লাশের কবর।

**********************************

তোকে দেয়া সেই শখে ভরা নীল ওরনাটা
তাতেও নাকি এখন তোর ঘৃনার ঘনোঘটা!
মেঘ জমে জমে বৃষ্টি নামে আমার কালো আকাশটাতে
সেই আকাশের তারা রাও নাকি তোকে খুব ভালোবাসে।

তোকে দেয়া সেই শখে ভরা নীল ওরনাটা
তাতেও নাকি এখন তোর ঘৃনার ঘনোঘটা!
মেঘ জমে জমে বৃষ্টি নামে আমার কালো আকাশটাতে
সেই আকাশের তারা রাও নাকি তোকে খুব ভালোবাসে।

কোনো মানষের মায়ার পড়ে তোর অজানার আজ বাস
তোর – আমার প্রেমে ছিলো না রে কষ্টের দীর্ঘশ্বাস
তবুও কেনো রাখতে পারিস নি কথা গুলো তোর
হাসি মুখে দিয়ে দিলি আমার জ্যান্ত লাশের কবর।

ব্যান্ড

এক সুন্দরী মাইয়া | Ek Shundori Maiyaa | By band FANUSH

এক সুন্দরী মাইয়া,
আমার মন নিলো কারিয়া…।
পারো যদি তোমরা তারে,
দাও গো আনিয়া…।। [p2]
.
না পাইলে তার দেখা,
যাবো রে মরিয়া… [x2]
এক সুন্দরী…
.
এক সুন্দরী মাইয়া,
আমার মন নিলো কারিয়া…।
পারো যদি তোমরা তারে,
দাও গো আনিয়া…।। [p2]
.
ওরে প্রথম দেখার কালে তারে,
লেগেছিল ভালো…
মুচকি হাসি দিয়া,
সে কই চলে গেলো…
তার কথা ভেবে,
আমার অন্তর দেয় কাঁদিয়া…
বেহাইয়া মনটারে,
বোঝাইবো কি দিয়া…। [p2]
.
না পাইলে তার দেখা,
যাবো রে মরিয়া… [x2]
এক সুন্দরী…
.
এক সুন্দরী মাইয়া,
আমার মন নিলো কারিয়া…।
পারো যদি তোমরা তারে,
দাও গো আনিয়া…।। [p2]
.
ওরে কাজল কালো আঁখি রে তার,
ঘন কালো চুল…
সেই চুলে গাঁথা ছিলো,
রক্ত জবা ফুল…
তার জন্যে জীবন আমার,
ধরতে পারি বাজি…
সাত সমুদ্র তের নদী,
পারি দিতেও রাজি…। [p2]
.
না পাইলে তার দেখা,
যাবো রে মরিয়া… [x2]
এক সুন্দরী…
.
এক সুন্দরী মাইয়া,
আমার মন নিলো কারিয়া…।
পারো যদি তোমরা তারে,
দাও গো আনিয়া…।। [p2]
.
না পাইলে তার দেখা,
যাবো রে মরিয়া… [x2]
এক সুন্দরী…
.
এক সুন্দরী মাইয়া,
আমার মন নিলো কারিয়া…।
পারো যদি তোমরা তারে,
দাও গো আনিয়া…।। [p2]
.
পারো যদি তোমরা তারে,
দাও গো আনিয়া…।। [x4]
.
END

ব্যান্ড

শহর – ডাকনাম

শহরের আলোকসজ্জা রাস্তা,
বস্তাবন্দী মিল-কারখানা,
এলোমেলো পথ ঘাঁট,
সহজেই আসা যাওয়া,
ব্যাস্ত শহর, সরীসৃপ উরাল রাস্তা ।

প্রেমিক মনটা…।।

ধূসর রোঁদজ্বলা-বৃষ্টিভেজা,
কুয়াশা ঢাকা শহর,
এই শহর, আমার শহর।

রাস্তা শেষ, অলিগলি রংজ্বলা ছোট্ট গুনিত বাড়ী ।
জানালা খোলা, বৃত্তে ট্র্যাফিক, রঙিন আলোয়, সহজ ব্যাস্ততা ।
আলোর মিছিল, শুকনো শরীর, অন্ন খুঁজার ভিড়…
ধুলো আর কংক্রিট, জীর্ণ এই শহর পথ…।।

দিনদুপুর, ছেড়া জুতা চৌরাস্তা, আর এক কাপ হতাশা ।
আকাশ ছোঁয়া, নকশায় রাত রঙিন, রং অচেনা ।
রাত শহর, কিছু বাগানে, লাল নীল পরীদের জীবন ঘড়ি ।
রং ক্যানভাসে, আঁকা শহর, চিত্রকর বিমর্ষ কিছুক্ষণ …।।

কতো শত বছর পিছনে ফেলে আজকে আমাদের এই শহর ঢাকা শহর।
গল্প-গান আড্ডায় মুখোর শহরের প্রতিটি রাজপথ থেকে পথ।
প্রেসক্লাব, শাহাবাগ, আহঃ
আর চায়ের কাপ।
শহরের এটাই যেন অপূর্ব এক শপথ।

এই শহর আমার শহর, ঢাকা শহর আমাদের শহর।।

ব্যান্ড

Chokh- Daknaam

প্রাণবন্ত এই চোখ, যদি দেয় কখনো ডুব,
স্বপ্ন তুই ঝুলে থাকিস, মৃত কর্নিয়ায় …………।।

আঁধার রাতের আলোক পোঁকা,
আলো ছড়াবে,
আকাশ সঙ্গী, চাঁদ-তারা-জোছনা,
সাথে থাকিস, তুই,
স্বপ্ন………
মৃত কর্নিয়ায় ।

মেঘ নিয়ে আসা তুলোমুঠো লিলুয়া হাওয়া,
সবুজ ঘাস-লতা আর অবুঝ নদীর ক্রন্দন ।
অনন্ত সময়ের স্রিতি আর বাঁধানো আলোক ছবি,
চোখ জুড়ে থাকিস, গ্যালারী স্মৃতি ।।

ব্যান্ড

Sangbadik Poribar

বর্ণাঢ্য কোন এক, পরাবাস্তব দিন ।
রদ্রময় মেঘের আড়াল, ৩০ শে মাঘ ১৪১৮ ।।

দিন শেষে রাত, আধারির হাতেই শেষ, নিঃশ্বাস ।।

রাজপথে হাতে-হাত, নিশ্চুপ সাংবাদিক পরিবার,
শুরুতেই শেষ, দিনগুলো সৃতির পাতায় ……

মেঘ হারালো আকাশ,
স্যাটেলাইট আলোয়,
খুন হয় ……
সাংবাদিক পরিবার ।।

দিচ্ছে আশ্বাস,
আঁধারীর কাল হাত,
মানববন্ধন…
হাতেহাত,
দুষিত,
নিঃশ্বাস…।।

নিশ্চুপ… ভাংচুর … বন্ধমুখ …
অহেতুক… সড়ক… অবরোধ ।।

এরই মাঝে সাঁজে ঘটনা,
আর……আর……
অপহরণ নকশা ।।

ব্যান্ড

Bangali- Daknaam

কাছে আলোকিত ভবিষ্যৎ,
আছে অগাথ হিম্মৎ ।
রবে শত্রুর সাক্ষাৎ,
আছে ক্লান্তির অবশেষ ।
উঠেছে নতুন সূর্য, পাড়ি দিবো ঐ দিগন্ত
দেখো উজার সীমান্ত, যেন হবেই মুক্ত ।।

ও বন্ধু আমার বাইরে এসো
এই তেপান্তরের মাঠ পাড়ি দেব ।
বন্ধু আমার সাথে চলো,
আজকে হব জয়ী ।

জেগে ওঠো.. জেগে ওঠো ..
জেগে ওঠো বাঙালি …………।।

কাছে আলোকিত ভবিষ্যৎ,
আছে অগাথ বিশ্বাস ।
রবে মায়ের আশীর্বাদ,
হবে শত্রুর নিঃশেষ ।
উঠেছে নতুন সূর্য, পাড়ি দিবো ঐ দিগন্ত
দেখো উজার সীমান্ত, যেন হবেই মুক্ত ।।

ও বন্ধু আমার বাইরে এসো
এই তেপান্তরের মাঠ পাড়ি দেব ।
ও বন্ধু আমার সাথে চলো,
আজকে হব জয়ী ।

জেগে ওঠো.. জেগে ওঠো ..
জেগে ওঠো বাঙালি …………।।

ব্যান্ড

Ahoban- Daknaam

আর বেশি নয় ঘুরে দাঁড়াবার,
যেখানে সূর্য উদয়………
আর বেশি নয় কালো আঁধার,
চেয়ে দেখো পূর্ণিমা আলোময় ।

সব ভুলে কি আবার আসবে ফিরে,
চেনা পথের চেনা বাকে ।
আবার গীটার উঠবে বেজে,
চেনা তারের চেনা সুরে ………

চলো বদলে যাই কোন নীল সীমানায়,
যেখানে হারিয়ে দু’জন ………।।

কিছু ফেলে আশা সময়ের হাত ধরে,
অচেনা আঁধার পেড়িয়ে ।
দূরে নিয়ন আলোয়
চুপচাপ কিছু মেঘ,
মেঘেরা দূরে হারিয়ে ।

যদি হয় দেখা গোধূলির শেষ ক্ষণে,
আবার গাইবো দুজনে ।
স্বপ্নের গীটার উঠবে বেজে,
চেনা তারে চেনা সুরে …………

চলো বদলে যাই কোন নীল সীমানায়,
যেখানে হারিয়ে দু’জন ………।।

ব্যান্ড

Dushopno- Daknaam

কেন প্রতিনিয়ত,
ভাবছি তোমায়……
হারানোর কারন,
কেন স্বপ্ন ভেঙে যায়,
কাঁচের মতো ……
মানেনা বারণ ।

যেন কুঁড়েঘড়ের মতো অবকাঠামো,
এক নিভু নিভু প্রদীপের মতো ।
যেন সকালের আলোয়, সবুজ ঘাসে,
পুড়ে পুড়ে ঝলসানো রৌদ্র …
মাঝামাঝি তোমার সাথে …।।

সাদা কাগজে লাল-নীল গল্প,
কাঠের পেনসিলে, আঁকাঝোঁকা ষড়যন্ত্র,
থোকা-থোকা গোলাপে দুঃস্বপ্ন
না বলা কথা, আজ আমি বিধ্বস্ত একা,
মাঝামাঝি তোমার সাথে ……।।

ব্যান্ড

Iccher Chorachalan- Daknaam

হাঁটছি অজানায়, রেখা আঁকা এই মেঠো পথ
ষাট-ঘাঁট পুকুর বাড়ি শুরুতেই ফুট ব্রিজ,
রৌদ্র দেয় উঁকি, ঝলকানি চোখের এক কোন
যেন বোকা…frustration…

ধুতঃছাই শুধু ইচ্ছে, ইচ্ছের শুধুই চোরাচালান।

আলিসান কাঠ ফটক, আধুনিক ডোর বেল,
অনুমতি জাহাপনা, উত্তরশরি নিয়ম-মালা,
খাচ্ছে ঝালমুড়ি ব্যাক্তি পরাধীন নগর বাড়ি
শিক্ষক মশাই, এসো সবাই, ঘুমের দেশে যাই…

ধুতঃছাই শুধু ইচ্ছে, ইচ্ছের শুধুই চোরাচালান।

পীড়িতে জল শুকনো, উঠোন বাড়ি
চেয়ে থাকা কিশোরীর মিষ্টি হাসি,
ইচ্ছে যদিও, অনেক স্বাধীন
অর্থের হানাহানিতে, আজ তা পরাধীন
যেন বোকা…frustration…

ধুতঃছাই শুধু ইচ্ছে, ইচ্ছের শুধুই চোরাচালান।

ব্যান্ড

Romana- Daknaam

সূর্য খানি পশ্চিমে আকাশের বুকে নেমেছে,
রোদের কিরণে মুখটি আহা কি দারুন ভাবে ফুটেছে।
মুগ্ধ হয়ে মনটি আমার বার বার শুধু বলছে…
রোমানা ও রোমানা আরও কিছুক্ষন থাকনা…।।

তোমার শহরে, তোমার নগরে,
তোমার বাড়ির ধারে, কাঁদা মাখা সেই পথে।
কতো আছারে ঝড় বাছারে মজার কষ্ট কাপড় নষ্ট
করে কাদাতে দেখে তোমাকে রাত বিরেতে ফিরে বাড়িতে
বাবার বকুনি চোখ রাঙ্গানি ঘ্যান ঘ্যানানি প্যান প্যানানি
সহ্য করে ঘুমের ঘরে দেখেছি তোমাকে…

রাতের আধারে, ভেবেছি তোমাকে,
ভোরের আলোতে, এঁকেছি তোমাকে।
ভাবার ফাঁকে আঁকার মাঝে মনটা আমার বারবার শুধু বলছে।
রোমানা ও রোমানা আরও কিছুক্ষন থাকনা…।।

ব্যান্ড

Nodi- Daknaam

নদীর ও পাড়ে
চক্ষু মেইলা দেখি, ভরা দুপুরে।
নদীর ও পাড়ে…

দেখি সখী চুল শুকায় তার নদীর এক পাড়ে,
হায়রে ভরা দুপুরে।
সূর্য সখীর রুপ দেখিয়া মুখ লুকায় মেঘে,
লজ্জায় ভরা দুপুরে।
নদীর ও পাড়ে…

দেখি সখির মুখের হাসি ঠোঁটের এক কোনে
হায়রে ভরা দুপুরে।
স্বপ্ন সখির হাত ধরিয়া ডুব মারে জলে
প্রেমের ভরা দুপুরে।
নদীর ও পাড়ে…