বাউল

দয়াল চান্দের পায়ের দুলা আমি যেন হইতে পারি

আমি কুকুর হইয়া দেই পাহাড়া
দয়াল চান্দের ঘড় বাড়ি
আমি যেন হইতে পারি…….

দয়াল আমার অযু করে যেই ঘটি দিয়াি
আমি যেন থাকতে পারি সেই ঘটি হইয়া
দয়াল চান্দের বাড়ির ঝারু আমি যেন হইতে পারি

দয়াল ও দয়াল আমার খাটে ঘুমায়
যেই বিসানার পর আমি যেন থাকতে পারি সেই বরাবর
দেওয়ান আক্কাসের এই মর বেলায় মুরশিদ
রুপ দেখতে পাই…
আমি যেন হইতে পারি

বাউল

মাওলানা

তুমি এসমে আজ যত তরানে ওলা
গাউছেলাম বাবা নুরে মাওলা তুমি এসমে
আযম যত তরানে ওলা…..

আলীফেতে ওহে দাল্লা রাখালিতে খালিকুল্লা
নুর মুহাম্মদ সাল্লি ওলা..
আমার বাবা মাওলানা
আওলাদে রাসুল মদিনার ফুল আমার বাবা মাওলানা

আলিফেতে আছো তুমি লামের মাঝে থাকি আমি
মিমেতে মোহাম্মাম সেজে করতেছো কত বাহানা…
আওলাদে রাসূল মদিনার ………..ঐ

আব্দুল্লার হই চখো কানা চিনে না সে পর আপনা
এই দুনিয়া হবে ফানা
আমার বাবা মাওলানা
আওলাদে রাসূল মদিনার ………..ঐ

বাউল

আমি তোর পীড়িতের মরা

আমি তোর পীড়িতের মরা
আমি তোর পীড়িতের মরা বন্ধু
চাইয়া দেখনা এক নজর বন্ধুরে
অপরাধী হলেও আমি তোর
তোররে বন্ধু
অপরাধী হলেও আমি তোর
আমায় যদি দাও তাড়াইয়া
এমন জায়গা নাইরে গিয়া
এ অভাগার জুড়াইতাম অন্তর
তুমি যদি ঘৃণা রাখো
আমি তোরে করিনা পর
কত দুঃখ আমার বুকে
দেখতে আসে পাড়ার লোকে
তোর কি নাই কলঙ্কেরই ডর
আমি যদি যাই মরিয়া
কে করবে তোরে আদর

বাউল

মানুষ ধরো মানুষ ভজ শোন বলিরে পাগল মন

মানুষ ধরো মানুষ ভজ শোন বলিরে পাগল মন।
মানুষের ভিতরে মানুষ করিতেছে বিরাজন।
মানুষ কি আর এমনি বটে যার চরণে জগৎ লুটে
এই না পঞ্চভুতের ঘাটে খেলিতেছে নিরঞ্জন
চৌদ্দতালার উপরে দালান তার ভিতরে ফুলের বাগান।
লাইলী আর মজনু দেওয়ান সুখেই করেছে আসন।।
দুই ধারে দুই কঠরা হায়াৎ মউত মাঝখানে ভরা
সময় থাকতে খুঁজরে তোরা নিকটেতে কাল সময়
সোনার পুরী আন্ধার করে যেদিন পাখি যাবে উড়ে।
শূন্য খাঁচা থাকবে পড়ে কে করবে আর তার যতন।।
তালাশে খালাশ মেলে তালাশ করো রংমহলে
উঠিয়া হাবলঙের পুলে চেয়ে থাকো সর্বক্ষন
দেখিবে হাবলঙের পুলে দুই দিকেতে অগ্নি জ্বলে
ভেবে রশীদ উদ্দিন বলে চমকিছে স্বর্ণের মতন।।

বাউল

সাথি পুরা বোতল দে আমারে নেশায় মজে রই

সাথি পুরা বোতল দে আমারে
নেশায় মজে লই…
ঐ নেশাতে মাতাল হইয়ে কিছু আবল তাবল কই

চোখে আমার ভাসে যেন মুহাম্মাদরা রাসূল অন্তরেতে
ফুটে যেন মুহাম্মাদী ফুল ।।
যেথায় ফেরেস্তারা নেচে গেয়ে করতেছে হই চয়
সাথী পুরা বতল দে আমারে…….

যে নামেতে পাহাড় পর্বত সাগড় ঢেউ খেলে গাছ বিক্ষ তরু লতা
এই ধরা তলে… আজ ফেরেস্তারা নেচে গেয়ে করতেছে হৈ চয়..
সাথী পুরা বতল দে আমারে…….

না এলে মুহাম্মদ আমার না এলে ইসু আল্লা তা’য়ালা বানাইতো
না এ ধরার কিছু..
আজো বাকা পথে মাতাল রাজ্জাক সুজা হইলো কই
সাথী পুরা বতল দে আমারে……..

গানের কথা ও সুর : মাতাল কবি রাজ্জাক দেওয়ান
গেয়েছে অনেকেই এর ভিতরে বাউল জুয়েল সরকার

বাউল

সাথি পুরা বোতল দে আমারে

সাথি পুরা বোতল দে আমারে
নেশায় মজে লই…
ঐ নেশাতে মাতাল হইয়ে কিছু আবল তাবল কই

চোখে আমার ভাসে যেন মুহাম্মাদরা রাসূল অন্তরেতে
ফুটে যেন মুহাম্মাদী ফুল ।।
যেথায় ফেরেস্তারা নেচে গেয়ে করতেছে হই চয়
সাথী পুরা বতল দে আমারে…….

যে নামেতে পাহাড় ………………
………………………..

বাউল

রঙ্গশালা

গান : রঙ্গশালা
গীতিকার : আমিনুল ইসলাম আপন

দয়াল তোমার রঙ্গশালায় কত যায়গায় ঘুরিলাম
আসল নকল না চিনিয়া ভব মায়ায় মজিলাম

তত্ব সুখে নিত্ব দিনই করলাম কত ভুল
ভাঙ্গা তরী বাইয়া গেলাম পাইনা কোন কোল
নবী আমার পারের নাইয়া তাহারে জানাই সালাম ….ঐ

নামাজ রোজা না রাখিলাম ওগ দায়াল চান
তুমি দয়াল দয়ার সাগর করনা আছান
কোন জায়গায় বাধ না দিয়া নদীর পানি সেচিলাম ….ঐ

রাসুল আমার হিরা কাঞ্চন উম্মতের আপন
আমিনুল কয় ভুল করিলাম না করলাম সাধন
দিনে দিনে দিনযায় গইয়া না লইলাম আল্লাজীর নাম …. ঐ

বাউল

ভন্ড প্রেম

ভন্ড প্রেমের ভন্ডামিতে ভাংলি কেন মন,,,,,,,,,,,,,।।
কোন পাপেতে কোন দোষেতে করলি রে এমন,,,,,,,,,,।।

তোর কথাতে ভিক্তি করে দিয়েছিলাম মন
তার জবাবে দিলি আমায় প্রেমও জ্বালাতন,,,,,,,,,,,,
কোন পাপেতে কোন,,,,,,,,,
ভাংবি যদি মনটা আমার কেন বাধলি ঘর মিছা মিছি প্রেম করিবার ছিলো কী প্রয়োজন,,,,,,,,,,,,
কোন পাপেতে কোন,,,,,,,,,
বি এম রাজে কয় ভাবিয়া শুনরে পাগল মন প্রেম করিস না ভন্ডের সাথে করবি গুরুর শন,,,,,,,,,,,,,,

কোন পাপেতে কোন,,,,,,,,,,

ভন্ড প্রেমের ভন্ডামিতে ভাংলি কেন মন,,,,,,,,

বাউল

কার ঘরে বাতি জ্বলে

কার ঘরে বাতি জ্বলে
এ নিশি রাইতে

আমারে তুই তর মায়ায়
অরে আমারে তুই তর মায়ায়
রেখে দে এ নিশি রাইতে
কার ঘরে বাতি জ্বলে এ নিশি রাইতে

আমার দুঃখের বাশির সুর তর ঘরে কি যায়না
এত দুঃখের বাশিটারে গুনে দরাইসনা আমার গুনে দরাইসনা।
আমি ঋনি থাকিবোরে
অরে আমি ঋনি থাকিবোরে তর এ নিশি রাইতে
কার ঘরে বাতি জলে এ নিশি রাইতে

তর লেমের বাতি আলোয় আমার মন ভড়ে দে
এই জীবনের দুঃখের ইতি একবার টেনে দে আমার একবার টেনে দে।
চন্দ্র সাক্ষী রাখিয়ারে
অরে চন্দ্র সাক্ষী রাখিয়া তরে ডাকি এ নিশি রাইতে
কার ঘরে বাতি জ্বলে এ নিশি রাইতে।

মামুনে কয় দোহাই তর আলো নিবাইসনা
অন্ধকারে মনের মাঝে খেলে বেদনা আমার খেলে বেদনা।

আমি তর লেমের বাতির
অরে আমি তর লেমের বাতির
পাগল এ নিশি রাইতে
কার ঘরে বাতি জলে এ নিশি রাইতে।

বাউল

তোমার ভাজ খুলো আনন্দ দেখাও করি প্রেমের তরজমা

তোমার ভাজ খুলো আনন্দ দেখাও
করি প্রেমের তরজমা ।।
যে বাক্য অন্তরে ধরি
নাই দাড়ি তার নাই কমা
ভাজ খুলো আনন্দ দেখাও
তোমার ভাজ খুলো আনন্দ দেখাও

তীর্থে তীর্থে বেড়াই ঘুরি
পন্থে পন্থে বেড়াই ঘুরি।।
মনকে বেকা তেড়া করি। ।
মনের মেঘতো সরে না
তোমার ভাজ খুলো আনন্দ দেখাও
করি প্রেমের তরজমা ।

দাড় টেনেছি দাড়ির সঙ্গে
তীর ভেঙেছি তারই রঙে ।।
কী বিভঙ্গ নারীর অঙ্গে ।।
পুষ্পে মধু ধরে না
তোমার ভাজ খুলো আনন্দ দেখাও
করি প্রেমের তরজমা ।

বর্ষা দেখাও, গ্রীষ্ম দেখাও
শীত বসন্ত শরত দেখাও ।।
স্বরব্যঞ্জণ বর্ণ শেখাও ।।
উম ছাড়া শীত মরে না
তোমার ভাজ খুলো আনন্দ দেখাও
করি প্রেমের তরজমা ।।

যে বাক্য অন্তরে ধরি
নাই দাড়ি তার নাই কমা
ভাজ খুলো আনন্দ দেখাও
তোমার ভাজ খুলো আনন্দ দেখাও

পোস্ট ন্যাভিগেশন

বাউল

Kacha Harite Rakhite Narili Premojol – কাঁচা হাড়িতে রাখিতে নারিলি প্রেমজল

কাঁচা হারিতে গো হারিতে
রাখিতে নারিলি প্রেমজল
ও কাঁচা হারিতে গো হারিতে
রাখিতে নারিলি প্রেমজল

ও কাঁচা হারিতে গো হারিতে গো হারিতে
রাখিতে নারিলি প্রেমজল
রাখিতে নারিলি প্রেমজল

করবি যদি পাকা হারি
চল রে তবে গুরুর বাড়ি গুরুর বাড়ি গুরুর বাড়ি
গুরুর প্রেমানলে দগ্ধ হয়ে রুপ করিবে টলমল

রাখিতে নারিলি প্রেমজল গো
গুরুর প্রেমানলে দগ্ধ হয়ে রুপ করিবে টলমল
কাঁচা হারিতে গো হারিতে
রাখিতে নারিলি প্রেমজল
রাখিতে নারিলি প্রেমজল গো
রাখিতে নারিলি প্রেমজল

কাঁচা হারি জলে দিলে
হারিটা তখনি যাইবে গলে
কাঁচা হারি জলে দিলে
তখনি যাইবে গলে
তখনি যাইবে গলে
তখন শেষকালেতে দুইজনাতে লাগবে গণ্ডগোল
শেষকালেতে দুইজনাতে লাগবে গণ্ডগোল গো
রাখিতে নারিলি প্রেমজল
কাঁচা হারিতে
রাখিতে নারিলি প্রেমজল

ও সেই সদানন্দ ভেবে আউল
ওরে ক্ষ্যাপা কি তুই হবি বাউল
ওরে ধান কুটিলে মিলবে চাউল
তুষ কুটিলে কি বা ফল

রাখিতে নারিলি প্রেমজল গো
রাখিতে নারিলি প্রেমজল
ও কাঁচা হারিতে হারিতে হারিতে হারিতে
রাখিতে নারিলি প্রেমজল

ওরে করবি যদি পাকা হারি
গুরুর বারি চল রে
গুরুর বাড়ি চল

আবার করবি যদি পাকা হারি
গুরুর বারি চল রে
গুরুর বাড়ি চল

রাখিতে নারিলি প্রেমজল
ও কাঁচা হারিতে হারিতে হারিতে হারিতে
রাখিতে নারিলি প্রেমজল
জল গো
রাখিতে নারিলি প্রেমজল
রাখিতে নারিলি প্রেমজল
জল গো

বাউল

আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম

আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম
আমরা আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম
গ্রামের নওজোয়ান হিন্দু মুসলমান
মিলিয়া বাউলা গান আর মুর্শিদি গাইতাম
হিন্দু বাড়িতে যাত্রা গান হইত
নিমন্ত্রণ দিত আমরা যাইতাম
জারি গান, বাউল গান
আনন্দের তুফান
গাইয়া সারি গান নৌকা দৌড়াইতাম
বর্ষা যখন হইত,
গাজির গান আইত,
রংগে ঢংগে গাইত
আনন্দ পাইতাম
কে হবে মেম্বার,
কে বা সরকার
আমরা কি তার খবরও লইতাম
হায়রে আমরা কি তার খবরও লইতাম
আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম
করি যে ভাবনা
সেই দিন আর পাব নাহ
ল বাসনা সুখি হইতাম
দিন হইতে দিন
আসে যে কঠিন
করিম দীনহীন কোন পথে যাইতাম
আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম….