ছায়াছবি

জীবনটা হয় যদি এমনি সুন্দ

জীবনটা হয় যদি এমনি সুন্দর অন্ত বিহীন এক পথ চলা,
হৃদ্যয় টা হয় যদি আরও মনোহর গ্রন্তি বিহীন যতো কথা বলা।
জীবনটা হয় যদি এমনি সুন্দর অন্ত বিহীন এক পথ চলা,
হৃদ্যয় টা হয় যদি আরও মনোহর গ্রন্তি বিহীন যতো কথা বলা।
তা হলে চলনা হারিয়ে যাই না ঐ দূর আকাশের নীল নিলিমায়।

সঙ্গে রয়েছো বলে আজ তুমি,বাতাস হোল যে মৌসুমি,
সঙ্গে রয়েছো বলে আজ তুমি,বাতাস হোল যে মৌসুমি,
তাই বলি গানের কলি নতুন হোল যে কার ছোঁয়ায়।
তা হলে চলনা সেই গান গাই না যে সুর গুঞ্জরে আজ দখিণা।
আকাশের নীল নিলিমায়।

মুখর হয়েছে যতো কল্প[না, তাই প্রেমের এতো জাল বুনা।
মুখর হয়েছে যতো কল্প[না, তাই প্রেমের এতো জাল বুনা।
শুধু ভাবি মনের দাবি, শুধু ভাবি মনের দাবি।
রঙ্গিন হোল এ কোন মায়ায়–

তা হলে চলনা ওগো আজ দুজনা সেই রঙ মাখা কৃষ্ণচূড়ায়।
জীবনটা হয় যদি এমনি সুন্দর অন্ত বিহীন এক পথ চলা,
হৃদ্যয় টা হয় যদি আরও মনোহর গ্রন্তি বিহীন যতো কথা বলা।
জীবনটা হয় যদি এমনি সুন্দর অন্ত বিহীন এক পথ চলা,
হৃদ্যয় টা হয় যদি আরও মনোহর গ্রন্তি বিহীন যতো কথা বলা।
তা হলে চলনা হারিয়ে যাই না ঐ দূর আকাশের নীল নিলিমায়।

ছায়াছবি

মন তো ছোঁয়া যাবে না

মন তো ছোঁয়া যাবে না, ধরা সেতো দেবে না,
ভালোবাসার পিঞ্জরে, বন্দি করে নেবে তারে,
সেতো হবে না———-
মন তো ছোঁয়া যাবে না, ধরা সেতো দেবে না,
ভালোবাসার পিঞ্জরে, বন্দি করে নেবে তারে,
সেতো হবে না———-

মন যেন উরু উরু উড়ান্ত এক ঝাক পায়রা,
নিম শিম আকাশের প্রান্তে নতুন কিছু চায় যানতে,
মন যেন উরু উরু উড়ান্ত এক ঝাক পায়রা,
নিম শিম আকাশের প্রান্তে নতুন কিছু চায় যানতে,
মাটীর ঘরে ডাকলে পরে, মাটীর ঘরে ডাকলে পরে,
আপন হয়ে সেতো রবে না—-

মন তো ছোঁয়া যাবে না ধরা সেতো দেবে না,
ভালোবাসার পিঞ্জরে বন্দি করে নেবে তারে
সেতো হবে না——

ভাবনা যে দুরু দুরু ধুরন্ত খেয়ালের ছন্দে,
কখন অমেঘের মতো চঞ্চল কখন ও সোনা রোধে উজ্জল,
ভাবনা যে দুরু দুরু ধুরন্ত খেয়ালের ছন্দে,
কখন অমেঘের মতো চঞ্চল কখন ও সোনা রোধে উজ্জল,
আলো ছায়ায় পালিয়ে বেড়ায়,আলো ছায়ায় পালিয়ে বেড়ায়।
ঠিকানা যা তার পাবে না——

মন তো ছোঁয়া যাবে না, ধরা সেতো দেবে না,
ভালোবাসার পিঞ্জরে, বন্দি করে নেবে তারে,
সেতো হবে না———-

ছায়াছবি

গিতিময় সেই দিন চিরদিন

গিতিময় সেই দিন চিরদিন বুজি আর হলো না,
মরমি রাঙ্গা পাখী, উড়ে সে গেলো নাকি,
সে কথা যানা হলো না———
গিতিময় সেই দিন চিরদিন বুজি আর হলো না।

দিন যায় কথা জেগে থাকে,
মন তারে কাছে ধরে রাখে।
দিন যায় কথা যেগে থাকে,
মন তারে কাছে ধরে রাখে।

কখন ও বসন্ত কখন ও শ্রাবণ,
কখন ও বসন্ত কখন ও শ্রাবণ,
কেন যে এতো ছলনা——-
গিতিময় সেই দিন চিরদিন বুজি আর হলো না।

যতো তুমি হও অভিমানী,
ভিতরে দুয়ার খুলা জানি।
যতো তুমি হও অভিমানী,
ভিতরে দুয়ার খুলা যানি।

চোখের ও ভাষাতে আজকে না হয়,
চোখের ও ভাষাতে আজকে না হয়,
মনের ই কথা বোলো না—-
গিতিময় সেই দিন চিরদিন বুজি আর হল না।

মরমি রাঙ্গা পাখী উড়ে সে গেলো নাকি,
মরমি রাঙ্গা পাখী উড়ে সে গেলো নাকি,
সে কথা যানা হল না—–
গিতিময় সেই দিন চিরদিন বুজি আর হল না।।

ছায়াছবি

তুমি কাছে এসে দূরে চলে গেছো—

ছেলে-
আ আ আ আ আ আ আ আ আ,
তুমি কাছে এসে দূরে চলে গেছো,
সৃতি আছে তোমার তবু আমি একা।
তুমি কাছে এসে দূরে চলে গেছো,
সৃতি আছে তোমার তবু আমি একা।
মেয়ে=
ও ও ও ও ও ও ও ও ও ও—
আমি আসা নিয়ে পথ চেয়ে আছি,
ওগো মনমিতা কবে হবে দেখা।
আমি আসা নিয়ে পথ চেয়ে আছি,
ওগো মনমিতা কবে হবে দেখা।
ছেলে=
ও ও ও ও ও ও —-
আমায় পাগল বলে যানে সবাই,
এই হৃদ্যয় চীরে কেউ দেখে না।
মেয়ে=
হায় দুঃখের আগুন বুকে জ্বলে,
কিছু তে যানি তা নেভে না।
ছেলে=
আমি ভালোবেসে কেন আজ অশহায়,
মোর ভাগ্যে ছিল হায় এই কি লেখা।
মেয়ে=
ও ও ও ও ও ও ও——-
এই দুনিয়াবাসী বড়ই নিঠুর,
হায় প্রেমের দাম দিতে যানে না।
ছেলে=
এই প্রেমিকের মন নয় শিঙ্ঘাসন,
কোন রাজার শাসন সেতো মানে না।
মেয়ে=
এই বাঁধার প্রাচীর মোরা ভেঙ্গে যাবো,
যতো হোক না চলার পথা আঁকা বাকা।
ছেলে=
তুমি কাছে ছিলে তুমি কাছে রবে,
প্রেম সত্যি হলে যানি হবে দেখা।
মেয়ে=
প্রেম সত্যি হলে যানি হবে দেখা।

ছায়াছবি

মন যদি ভেঙ্গে যায় যাক—

মন যদি ভেঙ্গে যায় যাক যাক কিছু বলবো না,
তোমার যামন যদি ভেঙ্গে যায় যাক যাক কিছু বলবো না,
বার বেলায় আমার প্রেমের কথা তুলবো না।
তোমার যাবার বেলায় আমার প্রেমের কথা তুলবো না।

নাইবা মানলো বাধা চোখের জলের এই নদী,
পথ চেয়ে একা একা কাঁদবো না হয় নিরবধি।
নাইবা মানলো বাধা চোখের জলের এই নদী,
পথ চেয়ে একা একা কাঁদবো না হয় নিরবধি।

তোমার পথের জ্বালা তোমার পায়ের ধুলা,
তোমার পথের জ্বালা তোমার পায়ের ধুলা,
মুছিয়ে দিয়েছি আঁখি জলে,
সেই তো অনেক বড় সান্তনা।
মন যদি ভেঙ্গে যায় যাক যাক কিছু বলবো না।
তোমার যাবার বেলা আমার প্রেমের কথা তুলবো না।
মন যদি ভেঙ্গে যায় যাক যাক কিছু বলবো না।

কি আছে না হয় আমি কেঁদেই কাটাবো এ জীবন,
না হয় ছলনা দিয়ে বুজিয়ে রাখবো এ মন।
কি আছে না হয় আমি কেঁদেই কাটাবো এ জীবন,
না হয় ছলনা দিয়ে বুজিয়ে রাখবো এ মন।

তোমার জীবন তৃষা পেয়েছি পথের দিশা,
তোমার জীবন তৃষা পেয়েছি পথের দিশা,
এগিয়ে চলেছি সেই পথে,
সেই তো অনেক বড় সান্তনা।
মন যদি ভেঙ্গে যায় যাক যাক কিছু বলবো না,
তোমার যাবার বেলায় আমার প্রেমের কথ্যা তুলবো না।
মন যদি ভেঙ্গে যায় যাক যাক কিছু বলবো না।

ছায়াছবি

মাধবী রাতের নীল জচনায়—

মাধবী রাতের নীল জচনায়,আমি চেয়েছি শুনাতে এই গান,
আমি গাইবো তুমি শুনবে আমার গানের স্বরলিপি।
মাধবী রাতের নীল জোছনায় আমি চেয়েছি শুনাতে এই গান।

ছিলো সবইতো চেনা, কেন আজ অচেনা,
মুছে যাওয়া দিন গুলো মনে কি পড়ে না।
মন মানসী কেউ ছিল কি যে দিয়েছিল প্রেম শুপি।
মাধবী রাতের নীল জোছনায় আমি চেয়েছি শুনাতে এই গান,
আমি গাইব তুমি শুনবে শুধু আমার নাগের স্বরলিপি।
মাধবী রাতের নীল জোছনায় আমি চেয়েছি শুনাতে এই গান।

আমায় করেছো ঋণী তুমি তো যাননা,
তোমার কারনে পেলাম বাচার সান্তনা।
পাশে রইবো ভালবাসবো যদি থাকে এমন বিধিলিপি।
মাধবী রাতের নীল জোছনায় আমি চেয়েছি শুনাতে এই গান,
আমি গাইবো তুমি শুনবে শুধু আমার গানের স্বরলিপি,
মাধবী রাতের নীল জোছনায় আমি চেয়েছি শুনাতে এই গান।

ছায়াছবি

ওরে রসিক নাইয়া—

ওরে রসিক নাইয়া, তুই মামারে করলি দিওয়ানা,
ওরে রসিক নাইয়া, তুই আমারে করলি দিওয়ানা,
তরে ছাড়া তরে ছাড়া হায় তরে ছাড়া পরান বাচে না,
রে রসিক নাইয়া, তুই আমারে করলি দিওয়ানা।

ওরে ও পান ওয়ালী, তুই আমারে করলি মাস্তানা,
ওরে ও পান ওয়ালী, তুই আমারে করলি মাস্তানা।
খিলি পানের খিলি পানের খিলি পানের নেশা গেলো নারে,
ও পান ওয়ালী, তুই আমারে করলি মাস্তানা।

বন্দু রে তোর চুলের বাহার, পাগল করলো মনটা আমার,
বন্দু রে তোর চুলের বাহার, পাগল করলো মনটা আমার,
পাগল মনে পাগল মনে তুই বিহনে শান্তি লাগে নারে,
রসিক নাইয়া, তুই আমারে করলি দিওয়ানা।

চিকন চাকন গড়ন রে তোর, লাগে যেন বেহেশতের হুর,
চিকন চাকন গড়ন রে তোর, লাগে যেন বেহেশতের হুর,
বেহেশতের হুর, বেহেশতের হুর, যতই দেখি সাধ মেটে নারে,
ও পান ওয়ালি, তুই আমারে করলি মাস্তানা।

ওরে রসিক নাইয়া, তুই আমারে করলি দিওয়ানা।

পিরিত রতন এতোই দামি, বুযি নাই তো আগে আমি,
পিরিত রতন এতোই দামি, বুযি নাই তো আগে আমি,
পিরিত কইরা, পিরিত কইরা, কিযে হইলো কইতে পারি নারে,
ও পান ওয়ালী তুই আমারে করলি মাস্তানা।

এতো বড় জুয়ান হইলি, প্রেমের মর্ম না বুজিলি,
এতো বড় জুয়ান হইলি, প্রেমের মর্ম না বুজিলি,
প্রেম না পাইলে, প্রেম না পাইলে, দুনিয়াতে কিছুই পাইলি নারে,
ও রসিক নাইয়া তুই আমারে করলি দিওয়ানা।

ওরে ও পান ওয়ালী, তুই আমারে করলি মাস্তানা,
ওরে ও পান ওয়ালী, তুই আমারে করলি মাস্তানা।
খিলি পানের খিলি পানের খিলি পানের নেশা গেলো নারে,
ও পান ওয়ালী, তুই আমারে করলি মাস্তানা।

ওরে রসিক নাইয়া, তুই মামারে করলি দিওয়ানা,
ওরে রসিক নাইয়া, তুই আমারে করলি দিওয়ানা,
তরে ছাড়া তরে ছাড়া হায় তরে ছাড়া পরান বাচে না,
রে রসিক নাইয়া, তুই আমারে করলি দিওয়ানা।

ছায়াছবি

চিঠি দিও প্রতিদিন—

চিঠি দিও প্রতিদিন চিঠি দিও,
চিঠি দিও প্রতিদিন চিঠি দিও,
নইলে থাকতে পারবো না,
চিঠি দিও প্রতিদিন চিঠি দিও।

চিঠি গুলো অনেক বড় হবে,
পড়তে পড়তে সকাল দুপুর আর রাত্রি চলেই যাবে
চিঠি গুলো অনেক বড় হবে,
পড়তে পড়তে সকাল দুপুর আর রাত্রি চলেই যাবে

কোথায় থাকো কেমন থাকো,
একে একে সবই লিখ সেই তো হবে মোর সান্তনা।
নইলে থাকতে পারবো না—
চিঠি দিও প্রতিদিন চিঠি দিও।

যে কয়টা দিন চোখের আড়াল রবো,
সয়নে স্বপনে জাগরনে শুধু তোমায় ভেবেই যাবো,
যে কয়টা দিন চোখের আড়াল রবো,
সয়নে স্বপনে জাগরনে শুধু তোমায় ভেবেই যাবো,

আমার আমি তোমার মাঝে,
চিরো তরে হারিয়ে গেছি,
বন্দু তুমি মোর সাধনা,
নইলে থাকতে পারবো না।

চিঠি দিও প্রতিদিন চিঠি দিও,
চিঠি দিও প্রতিদিন চিঠি দিও,
নইলে থাকতে পারবো না,
চিঠি দিও প্রতিদিন চিঠি দিও।

ছায়াছবি

নতুন নাম এ ডাকো আমায়—

নতুন নাম এ ডাকো আমায় এইতো ছিলো কামনা,
রঙের ও পরশে রাঙ্গিয়ে দিলে মনের যতো বাসনা।
কে তুমি বলো না।
নতুন নাম এ ডাকো আমায় এইতো ছিলো কামনা,
রঙের ও পরশে রাঙ্গিয়ে দিলে মনের যতো বাসনা।
কে তুমি বলো না।

প্রজাপতি মনে আমার, কেন যে বাজে শুধু বীণা,
আকাশ ও দীপালী কেন বলে, কেঁদো তুমি কেঁদো না।
এতো যে সুখ সইবে কি সইবে কি যানি না।
নতুন নাম এ ডাকো আমায় এইতো ছিলো কামনা,
রঙের ও পরশে রাঙ্গিয়ে দিলে মনের যতো বাসনা।
কে তুমি বলো না।

মায়ার ও বাধনে দিয়ে ধরা খাচার পাখী মেলে ডানা,
সুখ ও স্বপনে হয়ে বিভোর মানে যে আর কনো মানা।
এতো যে সুখ সইবে কি সইবে কি যানি না।
নতুন নাম এ ডাকো আমায় এইতো ছিলো কামনা,
রঙের ও পরশে রাঙ্গিয়ে দিলে মনের যতো বাসনা।
কে তুমি বলো না।

কতো না গানের সুরে সুরে করেছো আমায় রচনা,
সেই সুরেতে ভেসে আমি পেয়েছি আমার ঠিকানা।
এতো যে সুখ সইবে কি সইবে কি যানি না।
নতুন নাম এ ডাকো আমায় এইতো ছিলো কামনা,
রঙের ও পরশে রাঙ্গিয়ে দিলে মনের যতো বাসনা।
কে তুমি বলো না।

ছায়াছবি

হে খুদা জীবনে কারো প্রেম দিও না

হে খুদা জীবনে কারো প্রেম দিও না,
হে খুদা জীবনে কারো প্রেম দিও না,
প্রেম যদি দাও সেই জীবনে বাথা দিও না।
আমি প্রেম দেখলাম আমি মন চিনলাম।
আমি প্রেম দেখলাম আমি মন চিনলাম।

মিথ্যে সবই মিথ্যে সত্য কিছু নয়,
মিথ্যে সবই মিথ্যে সত্য কিছু নয়।
প্রেমের দামে দুঃখ কিনে সবই বুজলাম,
আমি প্রেম দেখলাম আমি মন চিনলাম।

সোনা চাঁদির কাছে প্রেম হল মিছে,
গরিবের মন বলে গেছো পায়ে দোলে।
ও ও ও ও ও ও ও——————
সোনা চাঁদির কাছে প্রেম হল মিছে,
গরিবের মন বলে গেছো পায়ে দোলে।
ও ও ও ও ও ও ও——————
আমি ভালবাসলাম আমি ধাগা পেলাম,
তোমার কাছে ছিলাম দূরে সরে গেলাম।

বৃষ্টি যখন নামে,তোমায় মনে পড়ে,
দুচোখ বেয়ে অশ্রু শুধুই ঝরে।
ও ও ও ও ও ও ও————-
ফুলের হাঁসি নিয়ে ফিরে আসে ফাগুন,
ভুলতে গিয়ে তোমায় বুকে জ্বলে আগুন
ও ও ও ও ও ও ও————————

ফুলের হাঁসি দেখলাম কাটার জ্বালা সইলাম,
আগুন ছুয়েছিলাম আমি পুড়ে গেলাম।
মিথ্যে সবই মিথ্যে সত্য কিছু নয়,
মিথ্যে সবই মিথ্যে সবই অভিনয়।
প্রেমের দামে দুঃখ কিনে সবই বুজলাম।
আমি প্রেম দেখলাম আমি মন চিনলাম।

ছায়াছবি

আমাকে পুড়াতে যদি এতো লাগে ভালো–

আমাকে পুড়াতে যদি এতো লাগে ভালো,
আমাকে পুড়াতে যদি এতো লাগে ভালো।
জ্বালও আগুন আরো জ্বালও,
ডালো আরো বাথা ডালো।
জ্বালও আগুন আরো জ্বালও,
ডালো আরো বাথা ডালো।
আমাকে পুড়াতে যদি এতো লাগে ভালো।

আমি তো পুড়ে পুড়ে অঙ্গার হয়েছি,
দিয়েছো আঘাত যতো সব ই তা সয়েছি।
আমি তো পুড়ে পুড়ে অঙ্গার হয়েছি,
দিয়েছো আঘাত যতো সব ই তা সয়েছি।
নিঠুর ওগো তবুও তোমাকে লেগেছে ভালো,
তোমাকে বেসেছি ভালো—
জ্বালও আগুন আরো জ্বালও,
ডালো আরো বাথা ডালো।
আমাকে পুড়াতে যদি এতো লাগে ভালো।

এ হৃদ্যয় ধুপসম তোমার ই জ্বালায়,
যাক যদি জ্বলে পুড়ে শেষ হয়ে যাক।

কিছু তার সুরভী কিছু তার বেধনা,
পড়বে তোমার মনে যেখানে ই থাকো না।
কিছু তার সুরভী কিছু তার বেধনা,
পড়বে তোমার মনে যেখানে ই থাকো না।
সেদিন এর সে সৃতি যানি গো তোমার মনে,
জ্বালবে না আলো ——-

জ্বালও আগুন আরও জ্বালও,
ডালো আরো বাথা ডালো।
আমাকে পুড়াতে যদি এতো লাগে ভালো।
আমাকে পুড়াতে যদি এতো লাগে ভালো।

ছায়াছবি

ভালবাসায় জড়ালে দুলালে গো প্রাণ–

ভালবাসায় জড়ালে দুলালে গো প্রাণ,
ভালোবেসে এ জীবন করলে যে ধান।
কি করে তোমায় বলো দেবো প্রতিধান (২)

আকাশ যেমন বুকে চাঁদ রাখে ধরে,
তেমনি আমায় আপন করে। (২)
তুমি মোর (২) ভাসনার প্রিয় অবসান,
কি করে তোমায় বল দেবো প্রতিধান (২) ঐ

আমায় কথা দাও হাট রেখে হাতে,
যেখানেই যাও রেখো তয়ামার সাথে (২)
তুমি মর(২) জীবনের আলো হাঁসি গান,
কি করে তোমায় বোলো দেবো প্রতিধান (২)

ভালোবাসায় জড়ালে দলালে গো প্রাণ,
ভালবাসে এ জীবন করলে যে ধান-
কি করে তোমায় বোলো দেবো প্রতিধান (২)

ছায়াছবি

ব্রিহাস্পতি আমার এখন তুঙ্গে–

ব্রিহাস্পতি আমার এখন তুঙ্গে,
শনির দশা শেষ হয়েছে কবে।
চদ্র এসে ভর করেছে ভালোবাসার ঘর করেছে,
এবার নাকি ভালোবাসা হবে (ঐ)

আমাকে ধোঁকা দেয়া চলবে না,
আমাকে বোকা বানানো চলবে না। (২)
তুমি যেথায় খুশি যেতে পারো,
যা খুশি তাই বলতে পারো।
ইচ্ছে না থাক অনিচ্ছাতে যানি বাধা রবে (ঐ)

তোমার ই ছলা কলা চলবে,
আমার ই কথা ভুলা চলবে না।(২)
তুমি যতো পারো আগাত করো,
কাজের মাঝে বাগাত করো (২)
মুল্লে না হয় বিনা মুল্লে,যানি ধরা দেবে।

ব্রিহাস্পতি আমার এখন তুঙ্গে,
শনির দশা শেষ হয়েছে কবে।
চন্দ্র এসে ঘর করেছে—- ঐ

ছায়াছবি

তুমি আমার জীবন—

তুমি আমার জীবন আমি তোমার জীবন,
তুমি সাধনায়, এতো দিনে পেয়েছি তোমায়
ও ও ও ও এতো দিনে পেয়েছি তোমায়।

কাজল আর ভালোবাসা যতনে মেখে,
আখবো তোমায় আমি এ দুটি চোখে(২)
দেবো না আর নয়ন ও ধারায়—-
এতো দিনে পেয়েছি তোমায়,
ও ও ও ও এতো দিনে পেয়েছি তোমায়। ঐ

প্রনয়ের ও বাহু ডোরে বেধে তোমাকে,
রাখবো জড়িয়ে আজ আমার ই বুকে (২)
হারমানা হার ওগো পরাবো গলায়–
এতো দিনে পেয়েছি তোমায়—
ও ও ও ও এতো দিনে পেয়েছি তোমায়।
তুমি আমার জীবন আমি তোমার জীবন (ঐ)

ছায়াছবি

তুমি আমার কতো চেনা–

তুমি আমার কতো চেনা সেকি যানো না,(২)
এই জীবনের আসা তুমি, তুমি যে ঠিকানা,
তুমি আমার কতো চেনা সেকি যানো না (২)

ভালোবাসা কারে যে বলে,ভালবেসে তুমি শেখালে,
এতো কাছে এলে গো যেন, হৃদয়ে লুকিয়ে গেলে।
তুমি আমার কতো চেনা সেকি যানো না (২)

আমি শুধু তোমাকে পেতে, এসেছি গো এই জগতে,(২)
আমি শুধু তোমার ই হতে এসেছি গো এই জগতে
বেধে নেবো ভাগ্য আমার বন্দু তোমার ই সাথে।

তুমি আমার কতো চেনা সেকি যানো না (২)