ছায়াছবি

চন্দ্র তারায় মিছে খুঁজেছি তোমায়

চন্দ্র তারায় মিছে খুযেছি তোমায়,
তুমি তো রয়েছ আমার চোখের ই তারায়।
হো তুমি তো রয়েছো আমার চোখের ই তারায়।

ও হো হো ও আ হা—
ভালোবাসার দুটি ফুলে রঙের হাওয়া লেগেছে,
সেই হাওয়াতে হৃদ্যয় আমার রাঙা পেগম মেলেছে।
ভালোবাসার দুটি ফুলে রঙের হাওয়া লেগেছে,
সেই হাওয়াতে হৃদ্যয় আমার রাঙা পেগম মেলেছে।

মনের মানুষ চেয়েছি আজ আমি এই নিরালায়,
কেলবো প্রেমের লুকোচুরি এসো দুজনায়।

চন্দ্র তারায় মিছে খুযেছি তোমায়,
তুমি তো রয়েছ আমার চোখের ই তারায়।
হো তুমি তো রয়েছো আমার চোখের ই তারায়।

ও হো হো লা লা লা—-
কতো আসা ভালোবাসা রয়েছে তোমায় ঘিরে,
বাহুডোরে বেধে নেবো এসো আজ তোমারে।
কতো আসা ভালোবাসা রয়েছে তোমায় ঘিরে,
বাহুডোরে বেধে নেবো এসো আজ তোমারে।

ফুলের ফাগুন তুমি আমার মনের ও বাগিচায়,
খুশবু হয়ে রবো মিসে প্রেমের ও মায়ায়।

চন্দ্র তারায় মিছে খুযেছি তোমায়,
তুমি তো রয়েছ আমার চোখের ই তারায়।
হো তুমি তো রয়েছো আমার চোখের ই তারায়।

ছায়াছবি

মনের এই ছোট্ট ঘরে আগুন লেগেছে হায়রে

মনের এই ছোট্ট ঘরে আগুন লেগেছে হায়রে,
মনের এই ছোট্ট ঘরে আগুন লেগেছে হায়রে,
পানিতে নেভে নারে করি কি উপায়।
বেচে থাকা হলো দায় স্বজনী গো,
বেচে থাকা হোল দায়।

মনের এই ছোট্ট ঘরে আগুন লেগেছে হায়রে,
পানিতে নেভে নারে করি কি উপায়।
বেচে থাকা হলো দায় স্বজনী গো,
বেচে থাকা হোল দায়।

জবনের ভরা দুপুরে সঙ্গি আজ ও কেউ হল না,
একা থাকার এতো জ্বালা আগে তো যানা ছিলো না।
বয়সের জোয়ার কারো কখন ও থেমে থাকে না।
মনের এই ছোট্ট ঘরে আগুন লেগেছে হায়রে,

মনের এই ছোট্ট ঘরে আগুন লেগেছে হায়রে,
পানিতে নেভে নারে করি কি উপায়।
বেচে থাকা হলো দায় স্বজনী গো,
বেচে থাকা হোল দায়।

ভালোবাসার একটু আশা মনটা আমার পেতে চায়,
ফুলে ফুলে হয় শিহরন হাওয়া এলে বাগিচায়।
জেগে জেগে স্বপ্ন দেখি কেউ দেখা দাও আমায়।
মনের এই ছোট্ট ঘরে আগুন লেগেছে হায়রে,

মনের এই ছোট্ট ঘরে আগুন লেগেছে হায়রে,
পানিতে নেভে নারে করি কি উপায়।
বেচে থাকা হলো দায় স্বজনী গো,
বেচে থাকা হোল দায়।

ছায়াছবি

কি যাদু আছে তোমার ই চোখে

কি যাদু আছে তোমার ই চোখে,
জড়ালে আমায় তুমি ভালবাসাতে।
কি যাদু আছে তোমার ই চোখে,
জড়ালে আমায় তুমি ভালবাসাতে।
মেয়ে=
এক পলকের অনুরাগে আমায় জড়িয়ে নিলে।
ছেলে=
কি যাদু আছে তোমার ই চোখে,
জড়ালে আমায় তুমি ভালবাসাতে।

সাথী হারা জীবনে দিয়েছ দোলা,
তোমার ও চিখের ভাষা যায় না বলা।
সাথী হারা জীবনে দিয়েছ দোলা,
তোমার ও চিখের ভাষা যায় না বলা।
মেয়ে=
চুপি চুপি বলো ওগো কাছে এসে।
ছেলে=
কি যাদু আছে তোমার ও চোখে,
জড়ালে আমায় তুমি ভালবাসাতে।
মেয়ে=
যাদু নয় প্রেম শুধু তোমায় ঘিরে,
সবই তো দিয়েছি আমি উঝার করে।
যাদু নয় প্রেম শুধু তোমায় ঘিরে,
সবই তো দিয়েছি আমি উঝার করে।
ছেলে=
যতো দেখি ততো যেন ভালো লাগে।
মেয়ে=
মায়াবী রাতে প্রিয় কাছে এসে,
জড়ালে আমায় তুমি ভালবাসাতে।
ছেলে=
এক পলকের অনুরাগে আমায় জড়িয়ে নলে।

কি যাদু আছে তোমার ই চোখে,
জড়ালে আমায় তুমি ভালবাসাতে।
কি যাদু আছে তোমার ই চোখে,
জড়ালে আমায় তুমি ভালবাসাতে।

ছায়াছবি

দুটি পাখী একটি ছোট্ট নীড়ে

দুটি পাখী একটি ছোট্ট নীড়ে,
কেউ তো কারো পানে চায় না ফিরে।
একই দুঃসহ বাথা অস্ফুটও হয়ে বাজে।
একই দুঃসহ বাথা অস্ফুটও হয়ে বাজে।
এ দুটি জীবন ঘিরে,
কেউ তো কারো পানে চায় না ফিরে।

এই একা থাকা প্রানে ষয় না,
কি যেন বলিতে চায় বলা হয় না।
এই একা থাকা প্রানে ষয় না,
কি যেন বলিতে চায় বলা হয় না।
গুমুরী গুমুরী কাঁদে ভিরু ভালোবাসা।
গুমুরী গুমুরী কাঁদে ভিরু ভালোবাসা।
সারা বেলা ভাসে তাই আঁখি নীড়ে।

দুটি পাখী একটি ছোট্ট নীড়ে,
কেউ তো কারো পানে চায় না ফিরে।

একই সুরে বাধা শরণের ও ভীন,
মনে পড়ে যায় আজ হারানো সে দিন।
একই সুরে বাধা শরণের ও ভীন,
মনে পড়ে যায় আজ হারানো সে দিন।
ভুলের নদী কবে পার হয়ে যাবে,
ভুলের নদী কবে পার হয়ে যাবে,
দুজনে দাঁড়িয়ে ভাবে দুটি তীরে।

দুটি পাখী একটি ছোট্ট নীড়ে,
কেউ তো কারো পানে চায় না ফিরে।
একই দুঃসহ বাথা অস্ফুটও হয়ে বাজে।
একই দুঃসহ বাথা অস্ফুটও হয়ে বাজে।
এ দুটি জীবন ঘিরে,
কেউ তো কারো পানে চায় না ফিরে।

ছায়াছবি

গান নয় জীবন কাহিনী-

গান নয় জীবন কাহিনী,
সুর নয় বাথার রাগিনী।
গান নয় জীবন কাহিনী,
সুর নয় বাথার রাগিনী।

কি হবে ভেবে কি পাইনি পাইনি।
গান নয় জীবন কাহিনী,
সুর নয় বাথার রাগিনী।

আমার ই আগুনে বন্দু,
আমার ই পাখা পুড়েছে।
আমার ই কতো যে স্বপ্ন,
নিয়তি শুধু ভেঙ্গেছে।

পাবো না কোন কূল,
সব ই তো হবে ভুল।
আমি তো ভাবিনি ভাবিনি,
গান নয় জীবন কাহিনী,
সুর নয় বাথার রাগিনি।

আমি যে বিরহের অশ্রু,
কেউ তাই চোখে রাখেনি।
আমি যে পথ চলে ক্লান্ত,
কেউ তাই খুজে দেখে নী।

আমার ই এ জীবন হবে যে প্রহশন।
কখন ও বুঝি নী, বুঝি নী—

গান নয় জীবন কাহিনী,
সুর নয় বাথার রাগিনী।

কি হবে ভেবে কি পাইনি পাইনি।
গান নয় জীবন কাহিনী,
সুর নয় বাথার রাগিনী।
কি হবে ভেবে কি পাইনি পাইনি।

ছায়াছবি

আমি তো আজ ভুলে গেছি সবই

আমি তো আজ ভুলে গেছি সবই,
ঐ চোখে চেয়ে চেয়ে হয়ে গেছি যেন কবি।
আমি তো আজ ভুলে গেছি সবই,
ঐ চোখে চেয়ে চেয়ে হয়ে গেছি যেন কবি।
আমি তো আজ ভুলে গেছি সবই।

তোমায় এতো রুপবতি,
করেছে আমার শীল্পি মন,
তোমার হাঁসি তোমার চাওয়া,
আমার কাছে তাই আপন।
যুগে যুগে তোমারে।

আমি তো ভুলে গেছি সব ই,
ঐ চোখে চেয়ে চেয়ে হয়ে গেছি যেন কবি।
আমি তো আজ ভুলে গেছি সব ই।

কেন রবে আর বন্দিনি,
দুসর মাটির পিঞ্জরে,
জীবন চলার ছন্দে তুমি,
এসো আমার এই ঘরে।
ঝড়িয়ে দাও প্রেমের ই গিতিময় সুরভি।

আমি তো আজ ভুলে গেছি সব ই,
ঐ চোখে চেয়ে চেয়ে হয়ে গেছি যেন কবি।
আমি তো আজ ভুলে গেছি সব ই।
আমি তো আজ ভুলে গেছি সব ই।

ছায়াছবি

চঞ্চলা হাওয়া রে ধিরে ধিরে চল রে

আ আ আ আ আ আ আ আ –
চঞ্চলা হাওয়া রে ধিরে ধিরে চল রে,
গুন গুন গুঞ্জরে ঘুম দিয়ে যা রে,

পরদেশী মেঘ রে আর কোথাও যাস নে,
বন্দু ঘুমিয়ে আছে দে ছায়া তারে।
বন্দু ঘুমায় রে, আয়রে মেঘ আয় রে,
আয় রে মেঘ আয় রে—

ওগো ফুল তুমি আজ ঝরে যাও না,
এই মধু ক্ষণে বাসর সাজাও না।
ও আচল তুমি আজ শরে যেও না,
মুখ ডেকে রাখো লাজ কেড়ে নিও না।

পরশ মনিরে আজ মন কাছে পেয়েছে।
পরদেশী মেঘ রে আর কোথাও যাস নে,
বন্দু ঘুমিয়ে আছে দে ছায়া তারে,
বন্দু ঘুমায় রে, আয়রে মেঘ আয় রে।

ওগো মেঘ তুমি এতো যরে এসো না,
ঝড় হয়ে শেষে ঘুম ভেঙ্গে দিও না।
ঘুম ভেঙ্গে গেলে সে তো কাছে রবে না,
না বলা কথা আর বলা হবে।
কি যেন কি দিতে পারে আরো বাকি রয়েছে।

পরদেশী মেঘ রে আর কোথাও যাস নে,
বন্দু ঘুমিয়ে আছে দে ছায়া তারে,
বন্দু ঘুমায় রে,আয় রে মেঘ আয় রে।।

ছায়াছবি

যানিনা সে হৃদয়ে কখন এসেছে

হো হো হো আ হা হা আ আ আ,
যানিনা সে হৃদয়ে কখন এসেছে,
প্রানের মাঝে দোলা দিয়েছে,
আমার এ মন কারে যেন ভালবেসেছে।
আমার এ মন কারে যেন ভালবেসেছে।

হো হো হো আ আ আ–
যানিনা সে হৃদয়ে কখন এসেছে,
প্রানের মাঝে দোলা দিয়েছে,
আমার এ মন কারে যেন ভালবেসেছে।
আমার এ মন কারে যেন ভালবেসেছে।

আকাশে দেখি কতো স্বপ্ন,
মেঘে মেঘে আনে মায়া লগ্ন।
আকাশে দেখি কতো স্বপ্ন,
মেঘে মেঘে আনে মায়া লগ্ন।

পাখীর কাকলীতে বুজি সে আজ,
পাখীর কাকলীতে বুজি সে আজ,
কতো কথা বলে গিয়েছে-
আমার এ মন কারে যেন ভালবেসেছে।

যানিনা সে হৃদয়ে কখন এসেছে,
প্রানের মাঝে দোলা দিয়েছে,
আমার এ মন কারে যেন ভালবেসেছে।
আমার এ মন কারে যেন ভালবেসেছে।
হো হো হো আ হা হা আ আ আ,

আমায় সে চায় তবু চায় না,
তারে কেন ধরে রাখা যায় না।
আমায় সে চায় তবু চায় না,
তারে কেন ধরে রাখা যায় না।

জীবন মরণেতে আমি যে তার,
জীবন মরণেতে আমি যে তার,
সে কি তবে যেনে নিয়েছে–
আমার এ মন কারে যেন ভালবেসেছে।

যানিনা সে হৃদয়ে কখন এসেছে,
প্রানের মাঝে দোলা দিয়েছে,
আমার এ মন কারে যেন ভালবেসেছে।
আমার এ মন কারে যেন ভালবেসেছে।
ও হো হো আ হা হা আ আ আ—

ছায়াছবি

পয়সা দিলে দুনিয়া মেলে

পয়সা দিলে দুনিয়া মেলে,
দিল মেলে না দিল না দিলে।
পয়সা দিলে দুনিয়া মেলে,
দিল মেলে না দিল না দিলে।

শোন শোন যতো দিলদার,
শোন শোন যতো দিলদার,
এই দুনিয়া প্রেমের–
হা এই দুনিয়া প্রেমের হাট বাজার।

কেমন তারো পুরুষ তোমরা ভাব যান না,
লাখ টাকার যওয়ানি দেখে ও কাছে টান না।
কেমন তারো পুরুষ তোমরা ভাব যান না,
লাখ টাকার জওয়ানি দেখে ও কাছে টান না।

মনটা তুলে দিতে চাই নেওয়ার মতো রসিক নাই,
মনটা তুলে দিতে চাই নেওয়ার মতো রসিক নাই,
বুজি না তো কেমন খরিদ্দার–
এই দুনিয়া প্রেমের হাট বাজার।

লাভ ক্ষতির হিশাব করে ভালবেসো না,
বাদসা কখন ফকির হবে কেউ তো যানে না।
লাভ ক্ষতির হিশাব করে ভালবেসো না,
বাদসা কখন ফকির হবে কেউ তো যানে না।
হায় রে হায় রে হায় কেউ তো যানে না।

প্রেমের তোরে যেজন মরে সবাই তারে ইয়াদ করে,
প্রেমের তোরে যেজন মরে সবাই তারে ইয়াদ করে,
পিরিতের ই লিলা চমৎকার (২)

এই দুনিয়া প্রেমের হাট বাজার–
হা হা এই দুনিয়া প্রেমের হাট বাজার।
পয়সা দিলে দুনিয়া মেলে,
দিল মেলে না দিল না দিলে।
পয়সা দিলে দুনিয়া মেলে,
দিল মেলে না দিল না দিলে।

ছায়াছবি

যদি বউ সাজো গো

যদি বউ সাজো গো আরো সুন্দর লাগবে গো,
যদি বউ সাজো গো আরো সুন্দর লাগবে গো,
বলো বলো আরো বলো লাগছে মন্দ নয়,
জীবনের এই স্বপ্ন ওগো সত্যি যেন হয়।
যদি বউ সাজো গো

কতদিন আমায় ভালবাসবে মনে রাখবে।
ওগো যতদিন চন্দ্র সূর্য থাকবে।
যদি ঘর ভাঙ্গা ঝড় আসে, কভু আসে।
আমি সেদিন ও রইবো তোমার পাশে।
বলো বলো আরো বলো লাগছে মন্দ নয়,
জীবনের এই স্বপ্ন ওগো সত্যি যেন হয়।
যদি বউ সাজো গো আরো সুন্দর লাগবে গো।

তুমি নদী হলে আমি হবো সাগর।
সেই মোহনায় ঘড়বো মিলন বাসর।
তার পর বল কি হবে, কি হবে।
না না বলবো না, লজ্জা পাবো তবে।
বলো বোলো আরো বলো লাগছে মন্দ নয়,
জীবনের এই স্বপ্ন ওগো সত্যি যেন হয়।

যদি বউ সাজো গো আরো সুন্দর লাগবে গো,
যদি বউ সাজো গো আরো সুন্দর লাগবে গো,
বলো বলো আরো বলো লাগছে মন্দ নয়,
জীবনের এই স্বপ্ন ওগো সত্যি যেন হয়।

ছায়াছবি

শামাল শামাল শামাল সাথী ধিরে ধিরে চল রে

শামাল শামাল শামাল সাথী ধিরে ধিরে চল রে,
উচা নিচা ছাইড়া ও তুই সোজা পথে চল-
সওয়ারীর গতর নরম ও ও সওয়ারীর মিজাজ গরম।
শামাল শামাল শামাল সাথী ধিরে ধিরে চল রে,
উচা নিচা ছাইড়া ও তুই সোজা পথে চল-
সওয়ারীর গতর নরম ও ও সওয়ারীর মিজাজ গরম।

কতো তোরে দিলাম ট্রেনিং তবু শিখলি না,
এতো বড় হইলি ডাঙ্গর মানুষ চিনলি না।
কতো তোরে দিলাম ট্রেনিং তবু শিখলি না,
এতো বড় হইলি ডাঙ্গর মানুষ চিনলি না।

নরম নরম গায়ে ফুলের আগাত কি আর ষয় রে।
উচা নিচা (২) ছাইড়া ও তুই সোজা পথে চল,
সওয়ারীর গতর নরম ও ও সওয়ারীর মিজাজ গরম।

সুন্দর নারীর সুন্দর মুখে কথা মিঠা হয়,
তোর সে যে আমায় তিতা কথা কয়।
সুন্দর নারীর সুন্দর মুখে কথা মিঠা হয়,
তোর সে যে আমায় তিতা কথা কয়।

ঘরের মানুষ হইলে না হয় এমন কথা সয় রে।
উচা-নিচা(২) ছাইড়া ও তুই সোজা পথে চল,
উচা নিচা ছাইড়া ও তুই সোজা পথে চল-
সওয়ারীর গতর নরম ও ও সওয়ারীর মিজাজ গরম।

শামাল শামাল শামাল সাথী ধিরে ধিরে চল রে,
উচা নিচা ছাইড়া ও তুই সোজা পথে চল-
সওয়ারীর গতর নরম ও ও সওয়ারীর মিজাজ গরম।
শামাল শামাল শামাল সাথী ধিরে ধিরে চল রে,
উচা নিচা ছাইড়া ও তুই সোজা পথে চল-
সওয়ারীর গতর নরম ও ও সওয়ারীর মিজাজ গরম।

ছায়াছবি

তুমি আমার মনের রাজ

তুমি আমার মনে রাজা আমি তোমার রানী,
নাইবা তুমি দেশের রাজা আমি রাজ রানী।
তুমি আমার মনে রাজা আমি তোমার রানী,
নাইবা তুমি দেশের রাজা আমি রাজ রানী।
তুমি আমার মনে রাজা——

নাইবা থাকুক পাইক পিয়াদা নাইবা থাকুক প্রজা,
সবার চেয়ে বড় প্রিয় তোমার ভালোবাসা।
নাইবা থাকুক পাইক পিয়াদা নাইবা থাকুক প্রজা,
সবার চেয়ে বড় প্রিয় তোমার ভালোবাসা।

সাতমহল আর স্বপ্ন পুরি চাইনা কিছু আমি,
তুমি আমার মনে রাজা আমি তোমার রানী,
নাইবা তুমি দেশের রাজা আমি রাজ রানী।
তুমি আমার মনে রাজা——

চাইনা তোমার সোনা চান্দি চাইনা মণিহার,
একবার শুধু বলো বন্দু আমি যে তোমার।
চাইনা তোমার সোনা চান্দি চাইনা মণিহার,
একবার শুধু বলো বন্দু আমি যে তোমার।

এ দাশীরে দিও শুধু তোমার চরন খানি।
তুমি আমার মনে রাজা আমি তোমার রানী,
নাইবা তুমি দেশের রাজা আমি রাজ রানী।
তুমি আমার মনে রাজা আমি তোমার রানী,
নাইবা তুমি দেশের রাজা আমি রাজ রানী।
তুমি আমার মনের রাজা—–
তুমি আমার মনের রাজা—–

ছায়াছবি

রংধনু ছড়িয়ে চেতনার আকাশে

রংধনু ছড়িয়ে চেতনার আকাশে
আসে আর ভালোবাসে, ভালোবাসে।
রংধনু ছড়িয়ে চেতনার আকাশে
আসে আর ভালোবাসে, ভালোবাসে।

হৃদয়ের সঙ্গিনী আপনজনা
প্রেমডোরে বন্দিনী চিরবাসনা।
হৃদয়ের সঙ্গিনী আপনজনা
প্রেমডোরে বন্দিনী চিরবাসনা।

ভাবনার মোহনায় নিরবে মিশে যায়
মন ভাবে যারে পাশে পাশে
আসে আর ভালোবাসে, ভালোবাসে

সাগরের মত চোখ কবিতা হয়ে
দৃষ্টির মায়াজালে নেয় জড়িয়ে।
সাগরের মত চোখ কবিতা হয়ে
দৃষ্টির মায়াজালে নেয় জড়িয়ে।

খেয়ালের পৃথিবীতে আদরের ছোঁয়া দিতে
গোলাপের মত যেন হাসে
আসে আর ভালোবাসে, ভালোবাসে।

রংধনু ছড়িয়ে চেতনার আকাশে
আসে আর ভালোবাসে, ভালোবাসে।
রংধনু ছড়িয়ে চেতনার আকাশে
আসে আর ভালোবাসে, ভালোবাসে।

ছায়াছবি

ওরে তোর মা জননী

বাবা=
ওরে তোর মা জননী,
ও তোদের মা জননী,
আমার সধের খঞ্জনি,
সুরের গলায় লইটকা আছে,
অসুরের বন্ধন সে যে,
সুরের গলায় লইটকা আছে ,
ও সুরের বন্ধন।
মেয়ে=
না না না মা বড় ধন,
না না না মা বড় ধন,
অমূল্য মাকিন রতন।
দুঃখের পাষাণী ঘষা,
সুভাষী চন্দন সে যে,
দুঃখের পাষাণী ঘষা,
সুভাষী চন্দন।
বাবা=
মা যে তোদের গুনবতি,
হাড়ে হাড়ে যানি।
যাত্রা গানের চিকুন শানাই,
ভাঙ্গা হারমনি।
এই যনমের গলার কাটা,
সোহাগি ঘরোনি,
উচিৎ কথা কইতে গেলে,
চোখে নামে পানি।
চক্ষের ই পাই———-
চক্ষের ই পানিতে খাইলাম,
নাকানি চুবানি।
মেয়ে=
ঘরের শোভা মাকে আমার,
কতো অনাদরে।
হেলায় খেলায় জ্বালা দিলে,
সারা জবন ভরে।
বোবা আগুন বুকে নিয়া,
মা যে তোমার ঘরে,
চোখের জলের সাথী হয়ে ও,
তোমার সেবা করে।

আমরা বাচি————
আমরা বাচি সুখে দুঃখে,
মায়ের আচল ধরে,
মা ছাড়া এই শুন্য ঘর,
নিশির ও কান্ধন সে যে,
দুঃখের পাষাণী ঘষা,
সুভাষী চন্দন।

ছায়াছবি

আমরা সখী দুটি পাখী

আমরা সখী দুটি পাখী রয়েছি এক ডালেরে,
একটা কেন উড়ে যাবে আর একটারে ফেলেরে।
মনে আড়াল হয় সখী চোখের হলে রে।
আমরা সখী দুটি পাখী রয়েছি এক ডালেরে,
একটা কেন উড়ে যাবে আর একটারে ফেলেরে।

আমরা সখী দুটি পাখী রয়েছি এক ডালেরে,
একটা কেন উড়ে যাবে আর একটারে ফেলেরে।
মনে আড়াল হয় সখী চোখের হলে রে।
আমরা সখী দুটি পাখী রয়েছি এক ডালেরে,
একটা কেন উড়ে যাবে আর একটারে ফেলেরে।

লেখা পড়া শিখি নাই তো পত্র দেবো তোরে,
কোথায় থাকিস কেমন থাকিস যানবো কেমন করে,
আমি যানবো কেমন করে।

দিনের বেলায় সূর্য হবো রাতে হবো তারা,
ছায়া হয়ে পাশে পাশে দেবো যে পাহারা,
আমি দেবো যে পাহারা।

আমরা দুজন বাধা আছি মনে ও আচলে রে।
আমরা সখী দুটি পাখী রয়েছি এক ডালে রে।

রক্তের চেয়ে সক্ত যানি মদের এ বাধন,
তোর কোলেতে মাথা রেখে হয় যেনো মরণ,
আমার হয় যেনো মরণ।

পানি কাটলে হয় তো ভাগ রাখিস সধা মনে,
বাচতে আমি চাই ওরে সখী তুই বিহনে,
ওরে সখী তুই বিহনে।

সুখের দিনে নাইবা থাকি থাকবো দুঃখের কালে রে।
আমরা সখী দুটি পাখী রয়েছি এক ডালেরে,
একটা কেন উড়ে যাবে আর একটারে ফেলেরে।
মনে আড়াল হয় সখী চোখের হলে রে।
আমরা সখী দুটি পাখী রয়েছি এক ডালেরে,
একটা কেন উড়ে যাবে আর একটারে ফেলেরে।