ব্যান্ড

ঘুম ভাঙ্গা শহরে

একদিন ঘুম ভাঙ্গা শহরে
মায়াবি সন্ধ্যায়
চাঁদ জাগা এক রাতে
একটি কিশোর ছেলে
একাকী স্বপ্ন দেখে
হাসি আর গানে
সুখের ছবি আঁকে
আহা কি যে সুখ।

স্বপ্নরা হারিয়ে যায়
সময়ের সাগরে
ব্যথার আবিরে
কবিতা আধারে হারায়
ভাবনারও ফুল
ঝরে ঝরে যায় আহা
জীবনেরও গান
হয়না সুরে গাওয়া।।

ছবি সব বিমূর্ত হয়
যায়না বোঝা যায়না
আশার ঝরণা
পায়না সুখের ঠিকানা
হতাশা শুধু
সাথী হয়ে যায় আহা
সে কিশোর এবার
জীবন ছেড়ে পালায়।।

ব্যান্ড

তিন পুরুষ

এক পুরুষে গড়ে ধন
এক পুরুষে খায়
আর এক পুরুষ এসে দেখে
খাওয়ার কিছু নাই
আমার তিন পুরুষ।

দাদা দাদি নানা নানী
আর তো পিছে নাই
বাবা মা’র পরে আমি
আমার পরে নাই
দুনিয়াতে এসে দেখি
ধন সম্পত্তি নাই
আমার তিন পুরুষ।

এই দুনিয়ার কোন কিছু
সঙ্গে যাবে না
তিন পুরুষের এক পুরুষ
সে কথা ভোলে না
শেষ পুরুষের ভাগে তবু
ভিটামাটি নাই
আমার তিন পুরুষ।

ব্যান্ড

ভালো লাগে আমার

ভালো লাগে আমার
প্রিয় চেনা সুর
ভালো লাগে ভালো লাগে
রিনিঝিনি তোমার ই নুপুর
ভালো লাগে আমার

ভালো লাগে ভোরের আকাশে
ঝল মলে রোদে মেঘের ই ভেলা
ভালো লাগে মনে এলোমেলো
আশা নিরাশার দোলা
ভালো লাগে তোমায়
এক্ টু কাছে পাওয়া

ভালো লাগে নিঝুম আধারে
নিঃস্বঙ্গ একা একা
ভালো লাগে ও গো ভালো লাগে
শুধু ভাবতে তোমার কথা
ভালো লাগে তোমার
এক্ টু ভালোবাসা

ব্যান্ড

এই রাতে

এই রাতে বসে আছি একা
নিঃস্বঙ্গ আবেগ সঙ্গী আমার
জোনাকিরা জ্বলে
আধো চাদের আলো
আমার হৃদয় আভা জ্বলেনা
হৃদয় পিদিম আমার
জ্বলে আছে কেনো নেভে না।।

স্রোতধারা যেমন জীবনটা তেমন
চলছে তো চলছে ফিরে চাইবেনা
এক্তাই ট জীবন একবার ই মরণ
তবুও পথচলা অসীম সীমানা
একবুক আশা নিয়ে
বেচে আছি কেন জানিনা।।

ব্যান্ড

এতো চাই

এতো চাই তবুও কেনো পাইনা
অতটা চাইওনি যতটা পাওয়ার নয়
আমি আজ বেদনাহত
অতটা পাইওনি যতটা চাওয়ার নয়
যদি তা চাইতাম ফিরে যেতাম
সেই অতীত জীবনের ভুমিকায়
দুর বহুদুরে সুরে সুরে
কোনো অতৃপ্ত তৃপ্তির বাসনায়
নতুন করে শুধ্ রে নিতাম
চাওয়াপাওয়ার হিসেবটুকু

ছোট্ট যারা শিশু শ্রমিক
ছোট্ট দুটি হাত
অমানমিক শ্রম বিনিময়
অল্প কটা ভাত
রক্ত পানির ন্যায্য পাওনা
কেন সয় না,সয়না
এতো চাই তবুও কেনো পাইনা
অতটা চাইওনি যতটা পাওয়ার নয়

সৃষ্ট কর্মে পুরষ্কারে
জুড়াবে তো নয়
স্রষ্টার আশীর্বাদে
সৃষ্টি যেনো হয়
ক্ষুদ্র আমার ক্ষুদ্র চাওয়া
ক্ষুদ্র সীমানা,সীমানা

ব্যান্ড

কিছু কিছু কথা

কিছু কিছু কথা আছে
যা কখনো বলা যায় না
কিছু কিছু ক্ষত আছে
যা কখনো মোছা যায় না
এমন কিছু চাওয়া আছে খোজেনা কেউ
পাওয়ার মাঝে নিহিত থাকেই
এমন কিছু নীরবতা বোঝেনা কেউ
সে তো আসে কোলাহল থাম্ লেই

জীবন্ টাই কেটে যায় না পাওয়ায়
সুখ দুঃখের আশা আর নিরাশায়
জীবন অরণ্যে প্রতিদিন রাতে
স্বপ্নটাই চুর্ণ হয় যাতনায়

ব্যান্ড

প্রেমের আগুন

চলেছি অচেনা কোন চলার পথে
পিছনে ফেলে সব সৃতির পাতা
এ জীবন ফুলতোলা রুমাল তো নয়
সবুজ পাতা তো ঝরে যায়
প্রিয় সব মুখ মনে পড়ে বারবার
ভুলে যাওয়া সহজ তো নয়
ফেলে আসা প্রেমেরা আন্ মনা ডেকে যায়
একে একে সকলেই ফিরে ফিরে যায়
জ্বালো জ্বালো প্রেমের আগুন জ্বালো
খুলে দাও সব জানালা
আর চাই আমি প্রেম চাই যেন
ভরে যাক সব শুন্যতা

চলেছি অচেনা কোন চলার পথে
পিছনে ফেলে সব সৃতির পাতা
অনেক আশায় পাওয়া প্রথম প্রণয়
জাগিয়েছে কত রাত প্রবল ব্যথায়
এসেছে অনেক মুখ এই জীবনে
হারিয়ে গিয়েছে তারা হাজার ভীড়ে
কত দেখা ছলনা হিসেবে তা মেলেনা
ছিল যে সব অধিকার মুছে একাকার
জ্বালো জ্বালো প্রেমের আগুন জ্বালো
খুলে দাও সব জানালা
আর চাই আমি প্রেম চাই যেন
ভরে যাক সব শুন্যতা

ব্যান্ড

কোন এক সাঝে

কোন এক সাঝে দেয়া কথায়
কোন আশ্বাস সাথী করে
রংধনু রঙ্গে একেছিলে
কেন হৃদয়ের ক্যানভাসে

আমাকেও কোন মায়াজালে
অচেতন করে নিয়েছিলে
বুঝিনি সেই মন নিয়ে
কি খেলা তুমি খেলেছিলে

অবহেলা আর অনাদরে
এ হৃদয়তা ভেঙ্গে দিয়ে
কি করে বোঝাবো আমি
সবটাই তার ক্ষণ নিয়ে
বোঝাতে পারিনি
এই মনকে কিছু আমি।

অকারণ আর কারণের মায়াডরে
বাধনের সেই সুতোটা গেল ছিড়ে
পারনি তুমি নিজে বুঝতে
পারনি আমাকেও বোঝাতে
কি নিয়ে বল বেচে থাকি আমি
বোঝাতে পারিনি
এই মনকে কিছু আমি।।

ব্যান্ড

সময় আর কাটেনা

সময় আর কাটেনা এলোমেলো যত সব ভাবনা
হৃদয় অবকাশে অভিমান ছুয়ে যায়

গল্পে রাত যায় বসে দাওয়ায়
সৃতিগুলো মাঝে মাঝে ঝিম ধরায়।।

জানিনা কোথায় কোন সীমানায় খুজি তোমায়

ব্যাস্ততা ছুটি নিয়ে পালিয়ে যায়
ক্লান্তির কাছে তাই ক্ষমা চাই।।

জানিনা কোথায় কোন সীমানায় খুজি তোমায়

ব্যান্ড

কি করে সব ভুলে যাই

প্রতি রাত ই নির্ঘুম রাত
আসেনা কিছুতেই প্রভাত
এভাবে জীবন কেটে যায় অস্থিরতায়
আমার জীবন থেকে
সুসময় কেড়ে নিয়ে
ভুলেছো সবই আমিতো
ভুলিনি তোমায়
নাই নাই নাই
নাই তুমি নাই
কি করে সব ভুলে যাই

উতসাহ নেই কাজে
পথচলা নিয়ে সংশয়
ঘুমের ওষুধ বন্ধু এখন
মেনে নিয়ে সব পরাজয়
রাত জেগে এখন তুমি
শুধুই কি আমায় ভাবো
মুখের মাঝে হাসি নিয়ে
কান্নাকে লুকিয়ে রাখো
নাই নাই নাই
নাই তুমি নাই
কি করে সব ভুলে যাই

সুনিপুণ এ প্রতারণার
প্রয়োজন কি ছিলো তোমার
জান্ বে তুমি তোমার পথে
বাধা হয়ে থাকবনা আর
এ জীবন পাবেনা তোমায়
তবু মনে আশা থেকে যায়
অন্য জীবনে হবে যে আমার
দিন কাটে এই ভাবনায়
নাই নাই নাই
নাই তুমি নাই
কি করে সব ভুলে যাই

ব্যান্ড

আকাশের নীলে

আকাশের নীলে হৃদয়ের তুলিতে
তোমায় একে যাই নীল বেদনায়
হৃদয়ের আলোয় তারার দ্বীপ জ্বেলে
জেগে রয়েছি তোমার ই দুচোখে
যত দুরে রয়ে যাও আমার ই হয়ে রও
তোমার ই জগতেতোমার ই হাসিতে
কত বৃষ্টি ঝরে যায় হৃদয়ের আঙ্গিনায় সঙ্গীহীনতায়

তোমায় কি বা আছে দেবার
দুচোখের নোনা জল
বিরহের ই করুণ সুরে
কেটে যায় প্রহর
তুমি তো জানলেনা কখনো
কত কাছে তুমি ছিলে
যত দুরে রয়ে যাও আমার ই হয়ে রও
তোমার ই জগতেতোমার ই হাসিতে
কত বৃষ্টি ঝরে যায় হৃদয়ের আঙ্গিনায় সঙ্গীহীনতায়

ব্যান্ড

শান্তি চাই

কোন এক স্বপ্নের দুনিয়ায়
খুজে পাই আমি শান্তির ঠিকানা
ঘুম ভেঙ্গে যায়
চেয়ে দেখি দুটি চোখ কত অসহায়
চেয়ে আছে সাহায্যের আশায়
চারিদিকে আজ অশান্তির মাঝে
অমানুষগুলো মানুষের মুখোশে
শান্তি কেড়ে নেয়
অস্থির এই পৃথিবীতে হায়
তুমি আমি কেউ কারো নয়
মন আমার একা নিরালায়
কাদে শুধু শান্তির আশায়
শান্তি চাই শান্তি চাই শান্তি চাই

ক্লান্ত এই জীবন কেটে যায়
স্বপ্নে দেখা শান্তির আশায়
সময় বয়ে যায়
আধারে ধাকা পথে হায়
দেবতারা হারিয়ে যায়
মন আমার একা নিরালায়
কাদে শুধু শান্তির আশায়
শান্তি চাই শান্তি চাই শান্তি চাই

আধারে ধাকা পথে হায়
দেবতারা হারিয়ে যায়
মন আমার একা নিরালায়
কাদে শুধু শান্তির আশায়
শান্তি চাই শান্তি চাই শান্তি চাই

ব্যান্ড

তাঁরা ভরা এক রাতে

তাঁরা ভরা এক রাতে
আনমনে বাতায়নে
যখনি বসে পড়ি কবিতা

এমনি ক্ষণে, এমনি ক্ষণে
হৃদয়ের জানালা খুলে
চুপি চুপি মিষ্টি হেসে
সে উকি দিয়ে যায়

হাসনাহেনার বাতাসে কিংবা সবুজ ঘাসে
স্বপ্নে বিভোর হয়ে অরুপনীল জোছনায়
যখনি বসে পড়ি কবিতা

এমনি ক্ষণে, এমনি ক্ষণে
হৃদয়ের জানালা খুলে
চুপি চুপি মিষ্টি হেসে
সে উকি দিয়ে যায়

দূর আকাশের শেষ সীমানায়
নদী যেথা মিশে নীলিমায়
ময়ূরী পাখনা মেলে
পাহাড়ি বনছায়

এমনি ক্ষণে, এমনি ক্ষণে
হৃদয়ের জানালা খুলে
চুপি চুপি মিষ্টি হেসে
সে উকি দিয়ে যায়

ব্যান্ড

আমার এক্ টাই তুমি

আমার হৃদয়ে তুমি
আমার ছোয়াত তুমি
আমার চাওয়ায় তুমি
আমার কষ্টে তুমি
তুমি আমার আবেগে মিশে আছো
এই মন টায় তুমি জুড়ে আছো
তুমি সবকিছু নিয়ে গেছো
কখন যে জানিনা

কি যে রবে কি হারাবে
কি যে দেবে কি যে নেবে(২)
এই ভেবে এক রাশ
কালো মেঘ জমে আকাশে
ইচ্ছে করে খুব জোরে কাদি
নীলাকাশ আর খোলা বাতাসে
তবুও

আমার হৃদয়ে তুমি ………..

ব্যান্ড

নিঝুম রাত

নিঝুম রাত জেগে আছে কিছু কিছু তারা
আজ মুখোমুখি দুজনায় পাগল্ পারা

নেই তো চোখে স্বপ্নের সীমানা
এ যেনো পাহাড়ী ঝরণা
পেলো খুজে চলার ই ঠিকানা
সুখের মেলা শুধু চোখে
জেগেছে বন্যাধারা
আজ মুখোমুখি দুজনায় পাগল্ পারা

মন যে আমার বাধন মানে না
এ যেনো বিভোর সুখে হৃদয় আমার
খুজে পেলো মোহনা
সময় আমার বড় আপন
আমি যে আমি হারাই
আজ মুখোমুখি দুজনায় পাগল্ পারা