ব্যান্ড

আকাশ নীলা

আকাশ নীলা তুমি বল কিভাবে
আমার শূণ্য মনে সুখ ছড়াবে
এমন করে কি তবে ভেবেছ আগে
ভালোবাসা দিয়ে ভূল ভাঙ্গাবে ।
কথা দাও, কথা দাও, কথা দাও
বুঝবে আমায়,
কথা দাও, কথা দাও, কথা দাও
আজীবন আমারি রবে ।
খুজতে, যদি আজ খুজতে
বুঝতে তবে এ মন বুঝতে
জীবনে কত যে দুঃখ লুকানো
তুমি তা জানতে চেওনা
কত সে নির্মম বেদনা ।
জানতে, যদি একটু জানতে
কি ক্ষত বুকে আমার, মানতে
লুকানো ব্যাথা হাসির আড়ালে
তুমি তা জানতে চেওনা
কত সে নির্মম বেদনা ।

ব্যান্ড

পথ চলা

এ মন উন্নাস, ক্ষিপ্ত, রিক্ত, পথ চেনা,
নেই কোন আনন্দ
অথচ এ মন কত উৎসাহে রচে সদা তন্ময়
বসন্ত
আমি আশ্বাস, সুরেরই নিঃশ্বাস শুনেছি
যখন তোমায় চুমি
তবু্ও ভাবিনি তোমায় নিষ্ঠার মূর্তি তুমি
মুগ্ধ নিমিষের ছবি
মোর ঘরের মাঝে পাঁচিল ভেঙ্গে
আসে বাস্তুহারার শত কান্না
প্রতিটি সন্ধ্যায় একা একা বসে ভাবি
বিথোভেন, শংকর আর না
এ পৃথিবী কালো জলে, বিদ্যুতে,
বাজে পুড়ে জ্বলুক লক্ষ নদী
হয়তো বা আমি তার পাশে বসে দেখছি পল
ক্লি, মাতিসের ছবি
অথচ কি আনন্দ কি ভয়াবহ আনন্দ
মদিরা চালে দেখ নরনারী চলে, কামনা-
বাসনা দূরন্ত
অথচ, এই পরকিয়া, দূর্বহ এই আল্পনা
লক্ষ রক্ত চোখ
নীলিমা চিরে খোঁজে আশা, ভালোবাসা
হায় আশা, ভালোবাসা

আধুনিক

মেঘ বালিকা

তুমি সাগরের স্রোতে ভেসে
যাওয়া বুকে সাক
কখনো শ্রাবনে ভেজা
শালিকের ডাক

তুমি এঁটে কাদা জলে
বরষায় ভেজা
মেঘবালিকা, তুমি মেঘবালিকা” ।।

হয়তো শিশির ভেজা
সোনালী সকাল
নিমিশে মেঘে ঢাকা
বিষাদ বিকাল
দুরের আকাশে ওঠা রংধনু তুমি
আমার এ হৃদয় তুমি করেছো অবাক।

তুমি সাগরের স্রোতে ভেসে
যাওয়া বুকে সাক
কখনো শ্রাবনে ভেজা
শালিকের ডাক
তুমি এঁটে কাদা জলে
বরষায় ভেজা
মেঘবালিকা, তুমি মেঘবালিকা” ।

আধুনিক

তুমি সুন্দর মেঘমালা

কেন বা এলে বা জড়ালে প্রেমে কেন তুমিআমায়
কেন বুঝিনি কি হারিয়ে আমি উড়ে উড়ে যেতে চাই । । ।
জীবনে কি খেলা খেলেছো যে হায় এর শেষ বলো কোথায়
ঢেউয়ে ভাঙে দু-কূল ভাঙে স্বপ্ন যে হায় আমি আঁধারে হারায় । । ।
কেন বা এলে বা জড়ালে প্রেমে কেন তুমিআমায়
কেন বুঝিনি কি হারিয়ে আমি উড়ে উড়ে যেতে চাই । । ।
আমি তোমার তুমি যে আমার
কেউ কারো নয় কেন বলো
একজীবনে এতোটা সুখ দেবো কেমনে
তুমি বলো
একা আমি একা রবো যে শুধু একা
জীবনে কি খেলা খেলেছো যে হায় এর শেষ বলো কোথায়
ঢেউয়ে ভাঙে দু-কূল ভাঙে স্বপ্ন যে হায় আমি আঁধারে হারায়
কেন বা এলে বা জড়ালে প্রেমে কেন তুমিআমায়
কেন বুঝিনি কি হারিয়ে আমি উড়ে উড়ে যেতে চাই
ক্লান্ত আমি শূণ্য হৃদয়
আর পারি না সইতে হায়
এসো তুমি এসো যে ফিরে ভালবাসার গভীরে
পারবো না তোমায় ছাড়া বাঁচতে
জীবনে কি খেলা খেলেছো যে হায় এর শেষ বলো কোথায়
ঢেউয়ে ভাঙে দু-কূল ভাঙে স্বপ্ন যে হায় আমি আঁধারে হারায় । । ।
কেন বা এলে বা জড়ালে প্রেমে কেন তুমিআমায়
কেন বুঝিনি কি হারিয়ে আমি উড়ে উড়ে যেতে চাই । । ।

আধুনিক

পথ গেছে চলে পথের আড়ালে

“পথ গেছে বেকে পথের আড়ালে ।।
কোন সে দূর অজানায়
তবু মধ্য পথে থমকে দাড়ালে
মিলবে কি ঠিকানায়।
পথেই পাবে পথের দিশা
পথেই যাবে কেটে অমানিশা”।।
ও ও ও পথ গেছে বেকে. . . . . . .
যতক্ষন বেচে থাকা
পথই তো সাথী
সময়ের প্রতি নাম হল চাকা
অস্তিত্ব গতি
ও ও ও ও
পথ গেছে বেকে পথের. , . . .
এ জীবন মানে চলা
অনন্ত কালে
জীবনের জয়গান গেয়ে চলা
নৃত্য চলা চলে
ও ও ও
“পথ গেছে বেকে পথের আড়ালে ।।
কোন সে দূর অজানায়
তবু মধ্য পথে থমকে দাড়ালে
মিলবে কি ঠিকানায়।
পথেই পাবে পথের দিশা
পথেই যাবে কেটে অমানিশা”।।
ও ও ও পথ গেছে বেকে. . . . . .

আধুনিক

চোখের জ্বলে ভাসব বলে

চোখেরই জলে ভাসাবো বলে
কত না কেঁদেছি গোপনে
তোমারই ছায়া সরাবো বলে
কত না ভেবেছি বিজনে
হলো না তবু হলো না পাওয়া
আরো বেশী বাসা বাধুক মনে
চোখেরই জলে ভাসাবো বলে
কত না কেঁদেছি গোপনে
বুক ভেঙে যায় যত ভুলে যেতে চায়
পারি না তো সহজে
প্রেম মনে হয় বানানো ঘুড়ি নয়
ছেড়ার কোন কাগজে
রাত কেটে যায় সাদাকালো ভাবনায়
বন্ধু তুমি ভাবো কি
এই দুটি হাত কখনো কি সারারাত
ফিরে তুমি পাবে কি
হলো না তবু হলো না পাওয়া
আরো বেশী বাসা বাধুক মনে
চোখেরই জলে ভাসাবো বলে
কত না কেঁদেছি গোপনে

ছায়াছবি

কেউ প্রেম করে কেউ প্রেমে পড়ে

কেউ প্রেম করে, কেউ প্রেমে পড়ে
আমার হয়েছে কোনটা, জানে না এই মনটা।

কেউ ভুল করে, কেউ ভুলে পড়ে
আমার হয়েছে কোনটা, জানে না এই মনটা।

আগে তো হয়নি এমন, মন করে কেমন কেমন
ইচ্ছেরা যে উড়াল মারে, কোথায় বারে বারে।

কেউ ভুল করে, কেউ ভুলে পড়ে
আমার হয়েছে কোনটা, জানে না এই মনটা।

স্বপ্ন দেখি একা আমি, হায়রে আজব পাগলামি
আমার হয়ে গেল কী যে, উলট পালট আমি নিজে।

কেউ ভুল করে, কেউ ভুলে পড়ে
আমার হয়েছে কোনটা, জানে না এই মনটা।

বিবিধ

কফি হাউজ-২

স্বপ্নের মতো ছিল দিনগুলো কফি হাউজেই,
আজ আর নেই
জীবনে চলার পথে হারিয়ে গিয়েছে অনেকেই,
আজ আর নেই
নিখিলেশ লিখেছে প্যারিসের বদলে
এখানেই পুজোটা কাটাবে
কী এক জরুরী কাজে ঢাকার অফিস থেকে
মায়দুলকেও নাকি পাঠাবে
একটা ফোনেই জানি রাজি হবে সুজাতা
আসবেনা অমল আর রমা রায়
আমাদের ফাকি দিয়ে কবেই তো চলে গেছে
ওদের কখনো কি ভোলা যায়?
স্বপ্নের মতো ছিল দিনগুলো কফি হাউজেই,
আজ আর নেই
জীবনে চলার পথে হারিয়ে গিয়েছে অনেকেই,
আজ আর নেই
ওরা যেন ভালো থাকে একটু দেখিস তোরা
শেষ অনুরোধ ছিল ডিসুজার
তেরো তলা বাড়িতে সবকিছু আছে তবু
কিসের অভাব যেন সুজাতার
একটাও তার লেখা হয়নি কোথাও ছাপা
অভিমান ছিল খুব অমলের
ভালো লাগে দেখে তাই সেই সব কবিতাই
মুখে মুখে ফেরে আজ সকলের
স্বপ্নের মতো ছিল দিনগুলো কফি হাউজেই,
আজ আর নেই
জীবনে চলার পথে হারিয়ে গিয়েছে অনেকেই,
আজ আর নেই
নাম যশ খ্যাতি আর অনেক পুরষ্কার
নিখিলেশ হ্যাপি থেকে গিয়েছে
একটা মেয়ে বলে সুজাতা বিয়েতে তার
দুহাত উজার করে দিয়েছে
সবকিছু অগোছালো ডিসুজার বেলাতে
নিজেদের অপরাধী মনে হয়
পার্ক স্ট্রীটে মাঝরাতে ওর মেয়ে নাচে গায়
ইচ্ছে বা তার কোন শখে নয়
স্বপ্নের মতো ছিল দিনগুলো কফি হাউজেই,
আজ আর নেই
জীবনে চলার পথে হারিয়ে গিয়েছে অনেকেই,
আজ আর নেই
কার দোষে ভাঙলো যে মায়দুল বলেনি
জানি ওরা একসাথে থাকেনা
ছেলে নিয়ে মারিয়ম কোথায় হারিয়ে গেছে
কেউ আর কারো খোঁজ রাখেনা
নাটকে যেমন হয় জীবন তেমন নয়
রমা রয় পারেনি তা বুঝতে
পাগলা গারদে তার কেটে গেছে শেষ দিন
হারালো সে চেনা মুখ খুঁজতে
স্বপ্নের মতো ছিল দিনগুলো কফি হাউজেই,
আজ আর নেই
জীবনে চলার পথে হারিয়ে গিয়েছে অনেকেই,
আজ আর নেই
দেওয়ালের রঙ আর আলোচনা পোস্টার
বদলে গিয়েছে সব এখানে
তবুও প্রশ্ন নেই,
যে আসে বন্ধু সেই
আড্ডা তর্ক চলে সমানে
সেই স্বপ্নের দিনগুলো বাতাসে উড়িয়েধুলো
হয়ত আসছে ফিরে আজ আবার
অমলের ছেলেটার হাতে উঠে এসেছে
ডিসুজার ফেলে যাওয়া সে গীটার
স্বপ্নের মতো ছিল দিনগুলো কফি হাউজেই,
আজ আর নেই
জীবনে চলার পথে হারিয়ে গিয়েছে অনেকেই,
আজ আর নেই