ছায়াছবি

ওকি গাড়িয়াল ভাই

ওকি গাড়িয়াল ভাই
কত রব আমি পন্থের দিকে চাইয়া রে .

যেদিন গাড়িয়াল উজান যায়
নারীর মন মর ছুইরা রয় রে .. (২বার )

ওকি গাড়িয়াল ভাই…
হাঁকাও গাড়ি তুই চিল মারির বন্দর এ রে

আর…কি কব দুস্কের ও জ্বালা…গাড়িয়াল ভাই
গাঁথিয়াছি কনমালা রে… ( ২বার )

ওকি গাড়িয়াল ভাই…
কত কাঁদি মুই নিদুয়া পাথারে রে …

ওকি গাড়িয়াল ভাই
কত রব আমি পন্থের দিকে চাইয়া রে
ওকি গাড়িয়াল ভাই…
হাঁকাও গাড়ি তুই চিল মারির বন্দর এ রে ।

*****************************

আধুনিক

হৃদয়ের গহিনে

আলোরই ঝলকে চোখেরসই পলকে
এই মনের ভালবাসা উঁকি মারে হায়

এই হৃদয় গহিনে রেখেছি তোমাকে
তুমি হিনা বড় একা ,একা লাগে হায়

তাই আমি চাই ভালবাসতে তোমায়
কাছে এসে ভালোবাসা দাওনা আমায়।

প্রেমের ই বাধনে রাখব যে তোমাকে ধরে
এ বাধন কিছুতেই কোনদিন ও যাবেনা ছিড়ে।

রাখব তোমায় ভালোবাসার
এই মনের মণিকোঠায়

তাই আমি চাই ভালবাসতে তোমায়
কাছে এসে ভালোবাসা দাওনা আমায়

ভালোবেসে মনটা তোমাকে দিয়েছি যখন
তোমাকে জড়িয়ে রাখব সারাটা জীবন ।।

তোমার ই জন্য জীবন ধন্য
হয়েছি এই দুনিয়ায়

তাই আমি চাই ভালবাসতে তোমায়
কাছে এসে ভালোবাসা দাওনা আমায়

ছায়াছবি

প্রজাপতি

লাজুক পাতার মত লজ্জাবতি
তোমাকে ছুয়ে দিতে চাই অনুমতি

স্বপ্নের আবির থেকে
ইচ্ছের সাত রঙ মেখে
তোমার আকাশে হব প্রজাপতি

এক মুঠো জোনাকি দাও ছড়িয়ে
আলোর চাদরে দিয়ে নাও জড়িয়ে

এক মুঠো জোনাকি দেবো ছড়িয়ে
আলোর চাদর দিয়ে নেবো জড়িয়ে

নিবির পিছুপিছু সাধের কিছু কিছু
হৃদয় দেয়া নেয়ার সম্মতি

লাজুক পাতার মত লজ্জাবতি
তোমাকে ছুয়ে দিতে চাই অনুমতি

স্বপ্নের আবির থেকে
ইচ্ছের সাত রঙ মেখে
তোমার আকাশে হব প্রজাপতি

হাত ধরে দুজনে চল হারাবো
না হয় নিষেধ ভুলে দু‘পা বাড়াবো

হাত ধরে দুজনে চল হারাবো
না হয় নিষেধ ভুলে দু’পা বাড়াবো

করে পাশাপাশি
ভালবাসাবাসি
ভালবাসায় বল কি ক্ষতি

লাজুক পাতার মত লজ্জাবতি
তোমাকে ছুয়ে দিতে চাই অনুমতি

স্বপ্নের আবির থেকে
ইচ্ছের সাত রঙ মেখে
তোমার আকাশে হব প্রজাপতি

*********************************************************

ছায়াছবি

ডুব

তোমার মাঝে নামবো আমি তোমার ভেতর ডুব
তোমার মাঝে কাটবো সাঁতার ভাসবো আমি খুব
তোমার মাঝেই জীবন-যাপন স্বপ্ন দেখা স্বপ্ন ভাঁঙ্গা

সারা নিশি ভিজবো দুজন ছাদে, ঝরা জলে
সারা নিশি ভিজবো দুজন ছাদে, ঝরা জলে
সবুজ সুখে করবো কুজন নীল আকাশের তলে
পাঁজর দিয়ে আগলে রবো তোমায় সারা জীবন

সূর্য ছোঁবে রাতের অধর, ঝরবে নরম আলো
নামবো তোমার চোখের ভেতর, বাসবো তোমায় ভালো
মনের সবুজ সুতো দিয়ে বুনবো অনেক স্বপন

তোমার মাঝে নামবো আমি তোমার ভেতর ডুব
তোমার মাঝে কাটবো সাঁতার ভাসবো আমি খুব
তোমার মাঝেই জীবন-যাপন স্বপ্ন দেখা স্বপ্ন ভাঁঙ্গা

আধুনিক

ভালোবাসার সবটুকু রঙ

ভালবাসার সবটুকু রঙ ছড়িয়ে দিলাম আকাশে
তুমি রাঙ্গিয়ে নিও ঐ মন
অবুঝ মনের স্বপ্নগুলো উড়িয়ে দিলাম বাতাসে
তুমি সাজিয়ে নিও মন

ভালোবেসে তোমাকে দেবার
হৃদয় ছাড়া নেই কিছু আর

তাইতো করেছি এই উষ্ণ সমর্পণ

ভালবাসার সবটুকু রঙ ছড়িয়ে দিলাম আকাশে
তুমি রাঙ্গিয়ে নিও ঐ মন
অবুঝ মনের স্বপ্নগুলো উড়িয়ে দিলাম বাতাসে
তুমি সাজিয়ে নিও মন

সুরের খেয়ায় ভেসে ভেসে
মনের নদি দেবো পাড়ি
অন্য পাড়ে গরব দুজন
স্পনের একচালা বাড়ি

ভালোবেসে তোমাকে দেবার
হৃদয় ছাড়া নেই কিছু আর
তাইতো করেছি এই উষ্ণ সমর্পণ

ভালবাসার সবটুকু রঙ ছড়িয়ে দিলাম আকাশে
তুমি রাঙ্গিয়ে নিও ঐ মন
অবুঝ মনের স্বপ্নগুলো উড়িয়ে দিলাম বাতাসে
তুমি সাজিয়ে নিও মন

কইবো কথা নিরিবিলি
সে বাড়ির খোলা উঠনে
ইচ্ছে দোলায় দুলব দুজন
নিচ্চুব সঙ্গোপনে

ভালোবেসে তোমাকে দেবার
হৃদয় ছাড়া নেই কিছু আর
তাইতো করেছি এই উষ্ণ সমর্পণ

**************************************************

রবীন্দ্র সংগীত

আমার খেলা যখন ছিল

আমার খেলা যখন ছিল তোমার সনে
তখন কে তুমি তা কে জানত
তখন ছিল না ভয়, ছিল না লাজ মনে
জীবন বহি যেত অশান্ত
খেলা যখন ছিল তোমার সনে

তুমি ভোরের বেলা ডাক দিয়েছ কত
যেনো আমার আপন সখার মত।

হেঁসে তোমার সাথে
ফিরেছিলেম ছুটে সেদিন
কত না মন বনান্ত
খেলা যখন ছিল তোমার সনে

ওগো সেদিন তুমি গাইতে যেসব গান
কোন ও অর্থ তাহার কে জানত
শুধু সঙ্গে তারই গাইত আমার প্রান
সদা নাচত হৃদয় অশান্ত।

হঠাৎ খেলার শেষে আজ কি দেখি ছবি
স্তব্দ আকাশ নিরব শশী রবি।

তোমার চরন পানে নয়ন করি নত
ঘুমুন তাড়িয়ে আছে একান্ত

খেলা যখন ছিল তোমার সনে
তখন কে তুমি তা কে জানত
তখন ছিল না ভয়, ছিল না লাজ মনে
জীবন বহি যেত অশান্ত
খেলা যখন ছিল তোমার সনে ।

আধুনিক

আমি আছি

আমি আছি , আমি আছি
তোমার মিস্টি হাসির আড়ালে
এদিক ওদিক আনমনে তাকালে
আর টোল পড়া বাদিকের গালে

আমি আছি , আমি আছি
তোমার চঞ্চল চোখের কাজলে
ঐ সুগুন্ধি এলোমেলো চুলে
আর ম্যচ করা কানের দুলে

আমি আছি , আমি আছি
আমি আছি , আমি আছি
কাছাকাছি

দুপুরের সূর্য গড়লে
তোমার স্লান ঘরে
আলো নিবে গেলে
যদি স্যম্পু ফেনায় চোখ জলে
আমি আছি

শনিবারের ছুটির সকালে
আলসের ঘুম গায়ে এলে
কেউ কলিং বেলে ডেকে গেলে
আমি আছি

পরিপাটি শারির আচলে
কুচির ভাজগুলো এলো মেলো হলে
যদি বাতাস ঘূর্ণি পাকে খেলে
আমি আছি

মাশকার খুজে না পেলে
লিপিলাইনারটা হারালে
দোলের পুশগুলো পালিয়ে বেড়ালে
আমি আছি , আমি আছি
তোমার খুব কাছাকাছি

ঘামে ভেজা গরম দুপুরে
তোমার নরম পায়ের নূপুরে
আর অথই ভুলের সাগরে
আমি আছি

নালিশে ভরা বালিশে
তোমার দুহাতের নেইল পলিশে
দু স্বপ্নের রাতগুলো শেষে
আমি আছি

অফিসের কাজের প্রেসারে
যখন জড়সড় তুমি একেবারে
এসো মুখ গুজো বুকের পাঁজরে
আমি আছি

অভিমানে আর আবদারে
একান্ত কোন আদরে
আর ঘুম ভাঙা প্রতিটি প্রহরে
আমি আছি

আমি আছি , আমি আছি
তোমার মিস্টি হাসির আড়ালে
এদিক ওদিক আনমনে তাকালে
আর টোল পড়া বাদিকের গালে

আমি আছি , আমি আছি

আমি আছি , আমি আছি
তোমার চঞ্চল চোখের কাজলে
ঐ সুগুন্ধি এলোমেলো চুলে
আর ম্যচ করা কানের দুলে

আমি আছি , আমি আছি

দূরে থেকেও কাছা কাছি

**********************************************

আধুনিক

মন

ঢুকব আমি মনেরে তোর
দেখব কত প্রেম
তোর মনেতেই সাজানো কি
আমার ছবির ফ্রেম

ঢুকব আমি মনেরে তোর
দেখব কত জল
তোর হ্রদয়ের জলে আমার
হ্রদয় চলা চল

ঢেউইয়ে ঢেউইয়ে সারাবেলা
জলের হইরে খেলা
তুই কাছে আসলে আমার
মন যে হয় উতলা

তোর হ্রদয়ের মাঠে বুনিস
আমার মনের বিজ
মনের মাঝে রেখে আমায়
মনের খবর নিস

চোখে চোখে রাখব তোকে
পড়বে না কারো নজর
পলকে ছোব মনরে তোর
নিবো মনের ই খবর
তোর মনের যত কথা

মনের মাঝে রেখে আমায়
মনের খবর নিস

ঢুকব আমি মনেরে তোর
দেখব কত প্রেম
তোর মনেতেই সাজানো কি
আমার ছবির ফ্রেম

ঢুকব আমি মনেরে তোর
দেখব কত জল
তোর হ্রদয়ের জলে আমার
হ্রদয় চলা চল

******************************************

আধুনিক

শীতলও বাতাসে

শীতলও বাতাসে দেখিছি তোমায়
মেঘমিলনে চেয়ে রাগ করনা
মন চায় তোমায় আজি রাতে

বৃষ্টি তো থেমেছে অনেক আগেই
ভিজেছি আমি একাই
আসত যদি নীল বিভিষিকা
খুজে ও পেতে না আমায়

মেঘমিলনে চেয়ে রাগ করনা
মন চায় তোমায় আজি রাতে

ঝুম ঝুম পাতালি হাওয়া সাথেই
খুজেইছি শুধু তোমায়
বিছাতে পারে নি ঝড়ো হাওয়া
খুজেই নিয়েছি তোমায়

ভুলে গিয়েছি মন শত অভিমান
মন চায় তোমায় কাছে পেতে

শিতল ও বাতাসে দেখিছি তোমায়
মেঘমিলনে চেয়ে রাগ করনা
মন চায় তোমায় আজি রাতে

রবীন্দ্র সংগীত

আমার সকল দুখের প্রদীপ

আমার সকল দুখের প্রদীপ
জ্বেলে দিবস গেলে করব নিবেদন
আমার ব্যথার পুজা হয়নি সমাপন।

যখন বেলা শেষের ছায়ায়
পাখিরা যায় আপন কুলায় মাঝে
সন্ধ্যা পুজার ঘন্টা যখন বাজে।
তখন আপন শেষ শিখাটি জ্বালবে এই জীবন।।

অনেক দিনের অনেক কথা ব্যকুলতা বাধা বেদন ডোরে
মনের মাঝে উঠেছে আজ ভোরে

যখন পুজার হোমানলে উঠবে জ্বলে একে একে তাঁরা
আকাশ পানে ছুটবে বাঁধনহারা।
অস্ত রবির ছবির সাথে মিলবে আয়োজন।।

রবীন্দ্র সংগীত

আমার হিয়ার মাঝে লুকিয়ে ছিলে

আমার হিয়ার মাঝে লুকিয়ে ছিলে
দেখতে আমি পাইনি তোমায়
দেখতে আমি পাইনি

বাহির পানে চোখ মেলেছি
বাহির পানে
আমার হৃদয় পানে
চাইনি আমি

আমার সকল ভালোবাসায়
সকল আঘাত, সকল আশায়
তুমি ছিলে আমার কাছে
তুমি ছিলে

আমি তোমার কাছে যাইনি

তুমি মোর আনন্দ হয়ে
ছিলে আমার খেলায়
আনন্দে তাই ভুলে ছিলেম
কেটেছে দিন হেলায়
গোপন রহি গভীর প্রানে
আমার দুঃখ সুখের গানে

সুর দিয়েছ তুমি , আমি তোমার গান তো গাই নি।।

আধুনিক

আধো রাতে যদি ঘুম

আধো রাতে যদি ঘুম ভেঙ্গে যায়
মনে পড়ে মোরে প্রিয় ও ও
চাঁদ হয়ে রব আকাশের ও গায়
বাতায়নে খুলে দিও

সেথা জোসনার আলোর ও খনিকা
যেনো সে তোমার প্রেমের ও মনিকা (২বার)
কলঙ্ক সাথে জড়ায়ে রয়েছে
প্রেমের কলঙ্ক সাথে জড়ায়ে রয়েছে
আঁখি ভরে নিড় ও প্রিয় ও ও

চাঁদ হয়ে রব আকাশের ও গায়
বাতায়ন খুলে দিও

ভুলি নাই প্রিয় , ভুলি নাই
খুলি নাই রাঙ্গা রাখি
মুছি নাই প্রেমো চন্দন ও লেখা
দিয়েছ যা ললাটে আঁকি
ভুলি নাই প্রিয় ভুলি নাই

চৈত্র দিনের অলস ও বেলায়
যদি গান খানি মনে পড়ে হায়
ঝরালো পাতায় মর মর গানে
সেই সুরভিত শুনিয়ো

চাঁদ হয়ে রব আকাশের ও গায়
বাতায়ন খুলে দিও

আধো রাতে যদি ঘুম ভেঙ্গে যায়
মনে রেখ মোরে প্রিয়
চাঁদ হয়ে রব আকাশের ও গায়
বাতায়ন খুলে দিও

***************************************

আধুনিক

কাল সারারাত ছিল স্বপনের রাত

কাল সারারাত ছিল স্বপনের রাত
সৃতির আকাশে যেন বহুদিন পর
মেঘ ভেঙ্গে উঠেছিল পূর্ণিমা চাঁদ

ঘুম ছিল না দুটি চোখের পাতায়
মন ছিল তন্ময় কথায় কথায়
চাঁদ মুখে চাঁদ দেখে কেটে গেল রাত

……… ঐ …………………

ঝড় ছিল না ভিরু সজল হাওয়ায়
সুখ ছিল সারাখন চাওয়া পাওয়ায়
সাথি হয়ে কেউ ছিল হাতে রেখে হাত

………………..ঐ………………..

কাল সারারাত ছিল স্বপনের রাত
সৃতির আকাশে যেন বহুদিন পর
মেঘ ভেঙ্গে উঠেছিল পূর্ণিমা চাঁদ

************************************

আধুনিক

সংশয়

একদিকে তুমি অন্যদিকে তোমাকে হারানোর ভয়
জানিনা অবশেষে পাবো কিনা তোমাকে
তাই ভেবে কাটে দিন কাটে রাত

কাটেনা তবু সংশয়, কাটে না তবু সংশয়

ভালোবাসার নদি
ছুটে চলে অবিরত
না পেলে তোমায় আমি
সইব কি করে দুঃখ এতো

দ্বিধা আছে তবু তোমাকেই চায়
এই মন এই প্রান এই হ্রদয়

আসা যাওয়ার পথে
দিন গুনে থাকি চেয়ে
না এলে তুমি কাছে
থাকব কি করে কস্ট নিয়ে

তোমায় ভেবে শুধু আশা নিরাশায়
কেটে যায় যত অথই সময়

একদিকে তুমি অন্যদিকে তোমাকে হারানোর ভয়
জানিনা অবশেষে পাবো কিনা তোমাকে
তাই ভেবে কাটে দিন কাটে রাত

কাটেনা তবু সংশয়, কাটেনা তবু সংশয়

ছায়াছবি

মনে পড়ে সেই সব দিন

মনে পড়ে সেই সব দিন
সেই সব ঝরে যাওয়া স্বপ্ন রঙ্গিন
সেই সব ঋতু জুড়ে
ফাগুনের ই দিন
মনে পড়ে সেই সব দিন , মনে পড়ে সেই সব দিন

ভালোবাসা কি যে জাদু
কিযে মধু আছে তার
পাত্রে ভরা
সকলই নতুন লাগে
নতুন এই ধরা….

মধুর কি যে সে ব্যথা
না বলা কত সে কথা
চোখে চোখে চেয়ে শুধু
কেটে যাওয়া দিন

মনে পড়ে সেই সব দিন
মনে পড়ে সেই সব দিন …..

**************************************