আধুনিক

কারণে অকারণে

কারণে অকারণে
নিষেধে বা বারণে
তোমার নামেই যত
জোছনা নিলাম
নিয়মে অনিয়মে
দহনে বা ধারণে

আমায় নিখোঁজ ভাবো বা
পাশেই ছিলাম
ভেতরে বাহিরে
দহনে বা ধারণে
আমায় নিখোঁজ ভাবো বা
পাশেই ছিলাম

চোখে জল নোনা কি
নিয়ে গেলো জোনাকী কেনো
আমি পথে একা দাঁড়িয়ে
আলোদের পিয়নে
সোডিয়াম নিয়নে যেনো
সবই কোথায় হারিয়ে

আমি তোমার দ্বিধায় বাঁচি
তোমার দ্বিধায় পুড়ে যাই
এমন দ্বিধার পৃথিবীতে
তোমায় চেয়েছি পুরোটাই

আমি তোমার স্বপ্নে বাঁচি
তোমার স্বপ্নে পুড়ে যাই
এমন সাধের পৃথিবীতে
তোমায় চেয়েছি পুরোটাই

জলেতে আগুনে
বর্ষা বা ফাগুনে
তোমার নামে যত
মেঘেদের গান
জাগরণে তুমি ছিলে
কোথায় যে কি ছিলে
আমায় নিখোঁজ ভাব নিয়ে অভিমান

আধুনিক

তা জানি না

তুমি আমি এক সাথে রোদে মাখা বৃষ্টি দেখেছি
উড়ে চলা গাঙ চিলে শত শত স্বপ্ন একেছি
পড়ে থাকা নীল খামে আকাশ কে চিঠি লিখেছি
ধুলো পড়া রাজ পথে ঘুরে ঘুরে সাক্ষী রেখেছি
ঘুণে ধরা ডায়েরিতে কত কত কাব্য লিখেছি
মুঠো মুঠো উল্লাসের স্মৃতি জুড়ে গল্প কিনেছি
কিনেছি…

আমার চোখ জুড়ে যা… দেখছো তা
নয় কোন ছলনা
তোমার মিষ্টি হাসিতে যা বলছো তা
বুঝেও বুঝি না

তুমি আমি এক সাথে ভুলে ভরা জোছনা দেখেছি,
অভিমানী ক্যানভাসে মুছে যাওয়া কান্না একেছি,
মিছে মিছি ঘুম হয়ে জেগে থাকার গল্প লিখেছি,
লিখেছি…

আমার মন বলে আমি বলছি না
তোমার বন্ধ চোখে ঘুম আসছে না
কেন ভুল করেও ভালো বাসছি না
তা জানি না
তা জানি না …

আমার চোখ জুড়ে যা… দেখছো তা
নয় কোন ছলনা
তোমার মিষ্টি হাসিতে যা বলছো তা
বুঝেও বুঝি না

আমি উড়ে উড়ে কোনখানে যাব জানি না
জানি ডাকবেই আবার… তোমার ঠিকানা
ও..ও..

আমার মন বলে আমি বলছি না
তোমার বন্ধ চোখে ঘুম আসছে না
কেন ভুল করেও ভালো বাসছি না
তা জানি না
তা জানি না …

আধুনিক

তুমি হীনা

তুমিহীনা…
নিশি রাত, একা চাঁদ, অপলক 
চেয়ে রয় না
তুমিহীনা… 
দুরের ঐ আকাশ ছুঁয়ে যায় না॥

মন শুধু খুঁজে বেড়ায়, 
তোমাতেই ঘুরে বেড়ায়, 
একাকী…

এই ভুল শহরে, স্মৃতির সব প্রহরে 
অবুজ আমি কেনো আজও 
তোমাকেই খুঁজি, 
জানি না আমি…
জানো কি তুমি… 

তোমাকে খুঁজে যাই, 
খেয়ালে, বে-খেয়ালে, কারনে, অকারনে
দক্ষিণের বন্ধ জানালায়…

কেন আজ তুমি দূরে বলো হারিয়ে
তুমিহীনা তবু আছি দাড়িয়ে।

তুমিহীনা…
শহরের, খোয়ারে, খোয়ারে 
ঘোরা হয় না
তুমিহীনা… 
চোখের কোনে জ্বল মোছা হয় না।

মন শুধু খুঁজে বেড়ায় 
তোমাতেই ঘুরে বেড়ায় 
একাকী…

এই ভুল শহরে,  স্মৃতির সব প্রহরে 
অবুজ আমি কেনো আজও 
তোমাকেই খুঁজি , 
জানি না আমি…
জানো কি তুমি… 

আধুনিক

মরে যাবো

একটু তোমায় নিলাম আমি
এক চিমটি মেঘে থামি
জলের ছিটেয় নিলাম পাগলামি
একটু তুমি বুকের ভিতর
বেপরোয়া শ্রাবণ ভাদর
ভাসাও ডোবাও তোমার-ই আমি।

মরে যাবো রে মরে যাবো,
কি অসহায় আমি, একবার ভাবো॥

তোমাকে ছেড়ে যাবো কোথায়?
তোমাকে ছেড়ে কি বাঁচা যায় ?
মেঘের-ই ওই নীলে তুমি জীবন দিলে,
এ বড় সুন্দর জ্বালায় আমায়
মেঘের-ই ওই নীলে তুমি জীবন দিলে,
এ বড় নির্মম পোড়ায় আমায়!

একটু রাত ডুবে আসে
একটু আলো নীভে আসে
তুমি দূরে একা লাগে
মধুর ওই চাঁদটাকে
অ্যালুমিনিয়াম লাগে
হাঁটি আমি চাঁদ ও হাঁটে।

মরে যাবো রে মরে যাবো,
কি অসহায় আমি, একবার ভাবো॥

ভালো লাগে না, লাগে না রে
বাঁচাবে আজ বলো কে আমারে?
বুঝিনা, জানিনা মেনেও মানিনা,
সে ছাড়া নেই আমি ঘোর আঁধারে,
এপারে ওপারে খুঁজি যে তাহারে
সে ছাড়া নেই আমি, চাই তাহারে।

একটু তোমায় নিলাম আমি
এক চিমটি মেঘে থামি
জলের ছিটেয় নিলাম পাগলামি
একটু তুমি বুকের ভিতর
বেপরোয়া শ্রাবণ ভাদর
ভাসাও ডোবাও তোমার-ই আমি।

মরে যাবো রে মরে যাবো,
কি অসহায় আমি, একবার ভাবো॥

ব্যান্ড

দুঃখ বিলাস

তোমরা কেউ কি দিতে পার প্রেমিকার ভালবাসা
দেবে কি কেউ জীবনে উষ্ণতার সত্য আশা
তোমরা কেউ কি দিতে পার প্রেমিকার ভালবাসা
দেবে কি কেউ জীবনে উষ্ণতার সত্য আশা
ভালবাসার আগে নিজেকে নিও বাজিয়ে
আমার মনের মতন নিও সাজিয়ে
আমি বড় অসহায় অন্য পথে
একটি নাটকই দেখি মহাকালের মঞ্চে
ও আমায় ভালবাসেনি অসীম এ ভালবাসা ও বোঝেনি
ও আমায় ভালবাসেনি অতল ভালবাসা তলিয়ে দেখেনি

তোমরা কেউ কি করবে আমার জন্য অপেক্ষা
ভালবাসবে শুধুই আমায় করবে প্রতিজ্ঞা
তোমরা কেউ কি করবে আমার জন্য অপেক্ষা
ভালবাসবে শুধুই আমায় করবে প্রতিজ্ঞা
ভালবাসার আগে নিজেকে নিও বাজিয়ে
আমার মনের মতন নিও সাজিয়ে
আমি বড় অসহায় অন্য পথে
একটি নাটকই দেখি মহাকালের মঞ্চে
ও আমায় ভালবাসেনি অসীম এ ভালবাসা ও বোঝেনি
ও আমায় ভালবাসেনি অতল ভালবাসা তলিয়ে দেখেনি

এত ভীড়েও আজও আমি একা
মনে শুধুই যে শুন্যতা
এত ভীড়েও আজও আমি একা
মনে শুধুই যে শুন্যতা
আঁধারে যত ছড়ায় আলো সবি আঁধারের রাত
ও যে কোথায় হারাল ব্যাথা কাটতে যে শুধায়
আ আ আ আ আ আ………

আধুনিক

ভালোবাসা অথবা অভিমান

আমার ঘরের জানালার কাঁচে
সকালের রোদ একলা নাচে
তোমার অপেক্ষাতে আমি
গায় বিরহের গান

আকাশ জোড়া ছবির খাতাতে
তোমার ছবি এঁকে এঁকে
ক্ষয়ে যায় চক রং পেনসিল
বুকে জমে অভিমান

জানি আমি ছাড়া ভালো নেই তুমি
মুখোশ জড়িয়ে তবু বসে আমি
অলিখিত সব স্বপ্ন গুলো
ভেঙে চুরে খানখান

আমার গানের খাতাতে পাতাতে
ভুল স্বরলিপি লিখতে লিখতে
তোমার কথা ভাবি আমি
ভুলে যায় অভিমান

তোমার দেয়া চিঠি আর গোলাপে
ভালোবাসা ছুঁয়ে দেখতে দেখতে
ভিজে যায় চোখ অনুরাগে
খুঁজে পাই আমি গান

ভালোবাসা একি রং বদলের খেলা
শ্রাবণ শরৎ ফাগুনের মেলা
পাহাড়ী নদীর তুমুল স্রোতটানে
বয়ে চলা সাম্পান

আধুনিক

রাধার গান

ভালবাসার গান শুনিয়ে চাইলে তুমি ঘুম
আমার তখন চলছে ভীষণ অস্থিরতার ঘুম
তোমার সাথে দুষ্টুমিতে বাদাম নিয়ে খেলা
বললে তুমি না ঘুমিয়ে কাটাতে এই বেলা

হয়ত তোমার কাছেই যাব নয়ত যাব দূরে তোমার সাথে
তোমার সাথে স্বপ্নগুলো সাজিয়ে রাখি সুরে

তোমার সাথে পেরিয়ে যাব দূর্গম গিরী বাধা
তোমার জন্য এড়িয়ে গিয়ে বিরহের গান সাধা
তোমার জন্য লুকিয়ে থেকে কাঁদছে দেখ রাধা
তোমার জন্য এড়িয়ে গিয়ে বিরহের গান সাধা

তোমার কথা ভাবতে গিয়ে আমি দেই ডুব
হারিয়ে গেলে স্বপ্ন কি আর হৃদয়ে থাকে খুব
সব হারালে সব খোয়ালে
সৌরভ ঘিরে থাকে
রাধার জন্য কৃষ্ণ ছাড়া আর কে-ই থাকে

হয়ত তোমার কাছেই যাব নয়ত যাব দূরে তোমার সাথে
তোমার সাথে স্বপ্নগুলো সাজিয়ে রাখি সুরে

তোমার সাথে পেরিয়ে যাব দূর্গম গিরী বাধা
তোমার জন্য এড়িয়ে গিয়ে বিরহের গান সাধা
তোমার জন্য লুকিয়ে থেকে কাঁদছে দেখ রাধা
তোমার জন্য এড়িয়ে গিয়ে বিরহের গান সাধা॥

আধুনিক

ছিপ নৌকো

আমার ছিপ নৌকোয় এসো, ও ‘অন্য মেয়ে’
আড়াল দেয়াল রেখোনা
আমার ছিপ নৌকোয় এসো, ও ‘অন্য মেয়ে’
লাজুক লিরিক আর কল্পনা

আমার ছিপ নৌকোয় এসো, ও ‘অন্য মেয়ে’
দেখ চোখের তারায় জলকণা
আমার ছিপ নৌকোয় এসো, ও ‘অন্য মেয়ে’
দেখ লাজুক লিরিক, কল্পনা

আরণ্যক পৃথিবী এক; সে সবার মতো নয়
তাই লাজুক লিরিকগুলো অগুছালোই রয়

অদ্ভুত তার ভুলগুলো, চোখের তারায় ফুলগুলো
উদাস হাওয়ায় উড়ে আনমনা

আমি অতি সাধারণ, অনিন্দ্য কিছু নই
তোমার দেখার চোখটাই অবাক; তাই এমন মনে হয়

অদ্ভুত এই ভুলগুলো, চোখের তারার ফুলগুলো
উদাস হাওয়ায় উড়ে আনমনা

তোমার ছিপ নৌকোয় যাবে, সেই ‘অন্য মেয়ে’
তুমিও আড়াল রেখোনা
লাজুক লিরিক আর কল্পনা

আমার ছিপ নৌকোয় এসো, ও ‘অন্য মেয়ে’
দেখ চোখের তারায় জলকণা
আমার ছিপ নৌকোয় এসো, ও ‘অন্য মেয়ে’
দেখ লাজুক লিরিক, কল্পনা

আধুনিক

ইচ্ছে মানুষ

কি যেন হয়ে গেলো আমার অন্তরে
বাড়ছো তিলে তিলে মনের অগোচরে
এভাবে দিন যায় কত দিন আসে
মিশে যেতে থাকো তুমি শত অভ্যাসে।

ভীষণ খরাতেও আমি ভিজে যাই
অধিকারের বৃষ্টিতে
আমার বেঁচে থাকার প্রার্থনাতে
বৃদ্ধ হতে চাই তোমার সাথে
অনেক খুঁজে তোমায় নিলাম চিনে
ভালোবাসার এই দিনে…

আমার পরাণ যাহা চায়, তুমি তাই
এ গান শুধু তোমার জন্য গাওয়া যায়
ভালোবেসে আলগোছে আঙ্গুলের ছোঁয়ায়
লিখে দিলাম আমার নিজেকে পুরোটাই
ভালো থাকার মানে আমি খুঁজে পাই
স্নেহমাখা ঐ দৃষ্টিতে
আমার বেঁচে থাকার প্রার্থনাতে
বৃদ্ধ হতে চাই তোমার সাথে
অনেক খুঁজে তোমায় নিলাম চিনে
ভালোবাসার এই দিনে…

ভীষণ খরাতেও আমি ভিজে যাই
অধিকারের বৃষ্টিতে
আমার বেঁচে থাকার প্রার্থনাতে
বৃদ্ধ হতে চাই তোমার সাথে
অনেক খুঁজে তোমায় নিলাম চিনে
ভালোবাসার এই দিনে…

নাটক

শতডানার প্রজাপতি

নতুন ভোর উঠল সুরে
দিল তোমার ঘুমকে তুলে
তখন আমি আলো হয়ে
ছুঁয়ে তোমার কপালে

ও চোখ খুলে আমায় দেখে
আলসেমিতে খুব তুমি অভিমানে
কুয়াশা মেঘে তোমার ঠোটে
লুকোচুরি খেলে গানে

ছেড়ে দিয়ে নাটাই সুতো
উড়াই ইচ্ছে ঘুরি
একে দেই নীল আকাশে
শতডানার প্রজাপতি॥

একটা দুপুর রঙিন সাজে
ডানা মেলে ঐ বাতাসে
হারাব আজ মেঘের ভাজে
দেখব তোমায় নতুন সাজে॥

ও চোখ খুলে আমায় দেখে
আলসেমিতে খুব তুমি অভিমানে
কুয়াশা মেঘে তোমার ঠোটে
লুকোচুরি খেলে গানে

ছেড়ে দিয়ে নাটাই সুতো
উড়াই ইচ্ছে ঘুরি
একে দেই নীল আকাশে
শতডানার প্রজাপতি॥

আধুনিক

ঘুম হয়ে

ঘুম হয়ে আজ থাকতে যদি সাথে
খুব মন খারাপের কালো কোনো রাতে॥

আমার স্বপ্ন জুড়ে ভাসতো ঠিকই
হাজার তারার সারি
বলতে তুমি তোমায় ছাড়া
বাঁচতে কি আর পারি..

ঘুম হয়ে আজ থাকতে যদি সাথে
খুব মন খারাপের কালো কোনো রাতে

কেন ঘুম হতে আর যাবো
কেন তুমি এমন ভাবো
ঘুম হলে কি তোমায় আমি সত্যি ছুঁতে পাবো
কেন ঘুম হতে আর যাবো?

ধরো হঠাৎ যদি এসে পড়ি তোমার ঘরে আমি
বলি চলো শুধু দুজনে মিলে
চাঁদের নীলে পথে নামি

তুমি যাবে?
যাবে আমার সাথে?

নাটক

যাযাবর পাখনা

জানি আমি একা এক সত্যি সত্যি ভোর
জানি আমি এটা নয় কোনো কল্পনা
জানি আমি এটা নয় স্বপ্ন স্বপ্ন ঘোর
জানি আমি এটা কোনো দুখের কল্পনা

এভাবে কাটে যদি কেটে যাক না
এ শহর খুজে পাক যাযাবর পাখনা
কিছূ মেঘ আবেগে গায়ে মেখে থাক না
কিছু মেঘ আকাশে সূদূরে হারাক না

এভাবে কাটে যদি কেটে যাক না
এ শহর খুজে পাক যাযাবর পাখনা
কিছূ মেঘ আবেগে গায়ে মেখে থাক না
কিছু মেঘ আকাশে সূদূরে হারাক না

ভেবে দেখো এভাবে কাটে যদি দিন
ভেবে দেখো হাতে হাতে স্বপ্ন রঙ্গিন
ভেবে দেখো হেটে যাওয়া সাথে দূর
ভেবে দেখো প্রিয় গানে বাধা প্রিয় সুর
এভাবে কাটে যদি কেটে যাক না
এ শহর খুজে পাক যাযাবর পাখনা
কিছূ মেঘ আবেগে গায়ে মেখে থাক না
কিছু মেঘ আকাশে সূদূরে হারাক না

আধুনিক

মাতওয়ালী

মায়াবি মাতওয়ালী চাঁদ রূপওয়ালি
হিজাবের আড়ালে কি ঝলক দেখালি
[ও মাতওয়ালি কি ঝলক দেখালি
তোর রূপের দেওয়াইন্যা বানাইলি]

দৃষ্টিতে তোমার আছে যাদু
গোলাপ রাঙা ওই ঠোঁটেতে মধু
এক দেখাতেই নজর কাড়িলি
হিজাবের আড়ালে কি ঝলক দেখালি
[ও মাতওয়ালি কি ঝলক দেখালি
তোর রূপের দেওয়াইন্যা বানাইলি]

পারিনা বোঝাতে এই মন টাকে
তোমাকে চাই আপন করে নিতে
হিজাবের আড়ালে কি ঝলক দেখালি
[ও মাতওয়ালি কি ঝলক দেখালি
তোর রূপের দেওয়াইন্যা বানাইলি]

ভাবি গো তোমায় দিবা নিশি
কেমনে বোঝাই কত ভালবাসি
প্রেমে ডুবাই দেওয়াইন্যা বানাইলি
হিজাবের আড়ালে কি ঝলক দেখালি
[ও মাতওয়ালি কি ঝলক দেখালি
তোর রূপের দেওয়াইন্যা বানাইলি]

ছায়াছবি

জল ফড়িং

তুই চিরদিন তোর দরজা খুলে থাকিস –
অবাধ আনাগোনার হিসেব কেন রাখিস?
সাক্ষাৎ আলাদীন তোর প্রদীপ ভরা জ্বিনে –
কেন বুঝতে যাস আমায় সাজানো ম্যাগাজিনে?

ভেজা রেলগাড়ি হয়তো সবুজ ছুঁয়ে ফেলে,
আর সারাটা পথ ভীষণ খামখেয়ালে চলে।
তারপর বেরোয় মেঘ আর তারায় ভরা স্টেশান,
একটু থামতে চায় প্রেমিকের ইন্সপিরেশন।

তোর এ সকাল ঘুম ভেঙে দিতে পারি,
তোর এ বিকেল ঘুড়ি ছিঁড়ে দিতে পারি।
তোকে আলোর আলপিন দিতে পারি,
তোকে বসন্তের দিন দিতে পারি ।

আমাকে খুঁজে দে জল ফড়িং।

ছুঁড়ে ফেলে দে তোর গল্প বলা ঘড়ি,
শূন্যে ঘুরোর কল সব মিথ্যে আহামরি।
একটু শুনতে চাই তোর পাঁজর ভাঙ্গা চিৎকার,
অন্য গানের সুর অদ্ভুত এ অহংকার।

তোর এ সকাল ঘুম ভেঙে দিতে পারি,
তোর এ বিকেল ঘুড়ি ছিঁড়ে দিতে পারি।
তোকে আলোর আলপিন দিতে পারি,
তোকে বসন্তের দিন দিতে পারি ।

আমাকে খুঁজে দে জল ফড়িং।

ছায়াছবি

আমার মতে – মহিলা

কতবার তোর আয়না ভেঙেচুরে ফিরে তাকাই,
আমার মতে তোর মতন কেউ নেই !
কতবার তোর কাঁচা আলোয় ভিজে গান শোনাই,
আমার মতে তোর মতন কেউ নেই !

এই মৃত মহাদেশে রোদ্দুর বারবার ,
এ মৃত মহাদেশে রোদ্দুর বারবার ,
হয়তো নদীর কোনো রেশ,
রাখতে পারিনি অবশেষ |
অথবা খেলায় সব হাতগুলো হারবার
পরেও খেলেছি এক দান ,
বুঝিনি কিসের এত টান !

কখনো চটি জামা ছেড়ে রেখে রাস্তায় এসে দাঁড়া !
কখনো চটি জামা ছেড়ে রেখে রাস্তায় এসে দাঁড়া !

কতবার তোর আয়না ভেঙেচুরে ফিরে তাকাই,
আমার মতে তোর মতন কেউ নেই !
কতবার তোর কাঁচা আলোয় ভিজে গান শোনাই,
আমার মতে তোর মতন কেউ নেই !

তোর বাড়ির পথে যুক্তির সৈন্য
তোর বাড়ির পথে যুক্তির সৈন্য
যতটা লুকিয়ে কবিতায় , তারও বেশি ধরা পড়ে যায় |

তোর উঠোন জুড়ে বিশাল অঙ্ক ,
কষতে বারণ ছিল তাই,
কিছুই বোঝা গেলনা প্রায় !

কখনো চটি জামা ছেড়ে রেখে রাস্তায় এসে দাঁড়া !
কখনো চটি জামা ছেড়ে রেখে রাস্তায় এসে দাঁড়া !

কতবার তোর আয়না ভেঙেচুরে ফিরে তাকাই,
আমার মতে তোর মতন কেউ নেই !
কতবার তোর কাঁচা আলোয় ভিজে গান শোনাই,
আমার মতে তোর মতন কেউ নেই !
আমার মতে তোর মতন কেউ নেই !
আমার মতে তোর মতন কেউ…