বাউল

আমি তোর পীড়িতের মরা

আমি তোর পীড়িতের মরা
আমি তোর পীড়িতের মরা বন্ধু
চাইয়া দেখনা এক নজর বন্ধুরে
অপরাধী হলেও আমি তোর
তোররে বন্ধু
অপরাধী হলেও আমি তোর
আমায় যদি দাও তাড়াইয়া
এমন জায়গা নাইরে গিয়া
এ অভাগার জুড়াইতাম অন্তর
তুমি যদি ঘৃণা রাখো
আমি তোরে করিনা পর
কত দুঃখ আমার বুকে
দেখতে আসে পাড়ার লোকে
তোর কি নাই কলঙ্কেরই ডর
আমি যদি যাই মরিয়া
কে করবে তোরে আদর

বাউল

মানুষ ধরো মানুষ ভজ শোন বলিরে পাগল মন

মানুষ ধরো মানুষ ভজ শোন বলিরে পাগল মন।
মানুষের ভিতরে মানুষ করিতেছে বিরাজন।
মানুষ কি আর এমনি বটে যার চরণে জগৎ লুটে
এই না পঞ্চভুতের ঘাটে খেলিতেছে নিরঞ্জন
চৌদ্দতালার উপরে দালান তার ভিতরে ফুলের বাগান।
লাইলী আর মজনু দেওয়ান সুখেই করেছে আসন।।
দুই ধারে দুই কঠরা হায়াৎ মউত মাঝখানে ভরা
সময় থাকতে খুঁজরে তোরা নিকটেতে কাল সময়
সোনার পুরী আন্ধার করে যেদিন পাখি যাবে উড়ে।
শূন্য খাঁচা থাকবে পড়ে কে করবে আর তার যতন।।
তালাশে খালাশ মেলে তালাশ করো রংমহলে
উঠিয়া হাবলঙের পুলে চেয়ে থাকো সর্বক্ষন
দেখিবে হাবলঙের পুলে দুই দিকেতে অগ্নি জ্বলে
ভেবে রশীদ উদ্দিন বলে চমকিছে স্বর্ণের মতন।।

বাউল

সাথি পুরা বোতল দে আমারে নেশায় মজে রই

সাথি পুরা বোতল দে আমারে
নেশায় মজে লই…
ঐ নেশাতে মাতাল হইয়ে কিছু আবল তাবল কই

চোখে আমার ভাসে যেন মুহাম্মাদরা রাসূল অন্তরেতে
ফুটে যেন মুহাম্মাদী ফুল ।।
যেথায় ফেরেস্তারা নেচে গেয়ে করতেছে হই চয়
সাথী পুরা বতল দে আমারে…….

যে নামেতে পাহাড় পর্বত সাগড় ঢেউ খেলে গাছ বিক্ষ তরু লতা
এই ধরা তলে… আজ ফেরেস্তারা নেচে গেয়ে করতেছে হৈ চয়..
সাথী পুরা বতল দে আমারে…….

না এলে মুহাম্মদ আমার না এলে ইসু আল্লা তা’য়ালা বানাইতো
না এ ধরার কিছু..
আজো বাকা পথে মাতাল রাজ্জাক সুজা হইলো কই
সাথী পুরা বতল দে আমারে……..

গানের কথা ও সুর : মাতাল কবি রাজ্জাক দেওয়ান
গেয়েছে অনেকেই এর ভিতরে বাউল জুয়েল সরকার