আধুনিক

ভাঙ্গা

আমি এক ভাঙ্গা বাড়ির ভাঙ্গা ঘরের ভাঙ্গা বারান্দা
আমি পথের মাঝে খুজে পাওয়া টাকা আধখানা……
আমি বিদ্যাসাগর, মাইকেলেরই মস্ত বড় ভুল
আমি কিশোরীর ওই হারিয়ে যাওয়া মুক্তো গাঁথা দুল
মুক্তো গাঁথা দুল………
দেখ বাবু নামের বড় খোকা করতে পারে ভুল
দেখ চেনে না কেউ মাঝ বৈশাখ চেনে মার্চ জুন…
দেখ ছারিদিকে কত মানুষ কত ব্যস্ততা
খুলেছে কেউ নতুন হিসেব আজকে হালখাতা
আজকে হালখাতা…………

যদি পথের রাজা পাজেরো দেখে ঈর্ষা হয়
তবে জেনে রেখো দু চাকার ওই হিরো কম যে নয়………
যদি সুন্দরী আজ তোমায় দেখে মুচকি হাসি দেয়,
তবে মেনে নিও ছলনা তা প্রেমের বাঁশি নয়
প্রেমের বাঁশি নয়………

যারা মনের মাঝে লুকিয়ে রাখে গাঢ় অন্ধকার
যারা ভুলের পরে ভুল খুঁজে এই তোমার আমার
যারা কোনদিনও জানে না যে ছলচাতুরি কি?
বল তাদের কি তুমি আমি বন্ধু বলেছি?
বন্ধু বলেছি………
আমি এই কালো পিছ এর সোজা পথের পুরানো পথিক
তাই বলছি না আমার এই কথা গুলো ঠিক………
আমি দেখি যা, শুনি যা, বলিও যে তা………
আমার বন্ধু রবে কড়া রোদ উতলা হাওয়া……….

ছায়াছবি

জয় সত্যের জয়

জয় সত্যেরও জয়, জয় প্রেমেরও জয়
জয় মুক্তির বীর সেনানীর জয়
সত্যেরও জয়, জয় প্রেমেরও জয়
জয় মুক্তির বীর সেনানীর জয়
সত্যেরও জয়

জয় সৃষ্টির অনুক্ত উচ্ছাস
জয় বিশ্বের মুখরবিশ্বাস
জয় সৃষ্টির অনুক্ত উচ্ছাস
জয় বিশ্বের মঙ্গল ও বিশ্বাস
জয় শান্তিরও জয়, জয় সাম্যেরও জয়
জয় সে চিত্ত ভেঙ্গেছে যে সংশয়
সত্যেরও জয়
জয় প্রেমেরও জয়
জয় মুক্তির বীর সেনানীর জয়
সত্যেরও জয়

ছায়াছবি

তেপান্তরের মাঠে

তেপান্তরের মাঠে বধু হে
একা বসে থাকি
তুমি যে পথ দিয়ে গেছ চলি
তারি ধুলা মাখি হে
একা বসে থাকি

যেমন পা ফেলেছো গিরিপথে
রাঙা পথের ধুলাতে
তেমনি করে আমার বুকে
চরণ যদি বুলাতে
আমি খানিক জ্বালা ভুলতাম
ঐ মানিক বুকে রাখি হে
একা বসে থাকি

আমার খাওয়া-পরায় নাই রুচি আর
ঘুম আসেনা চোখে
ঘুম আসেনা চোখে
আমি বাউরি হয়ে বেড়াই পথে
দেখে হাসে পাড়ার লোকে
হাসে পাড়ার লোকে
আমি তালপুকুরে যেতে নারি
এ কি তোমার মায়া হে
ঐ কালো জলে দেখি
তোমার কালো রুপের ছায়া হে
আমায় কলঙ্কিনি নাম রটিয়ে
তুমি দিলে ফাঁকি হে
একা বসে থাকি

তেপান্তরের মাঠে বধু হে
একা বসে থাকি
একা বসে থাকি
একা বসে থাকি

ছায়াছবি

পাখিটা বন্ধি আছে

পাখিটা বন্ধি আছে দেহের খাচায়
………… পাখিটা

ও তার ববের বেরি পায়ে জড়ানো
উড়তে গেলে পড়িয়া যায়
দেখলে পরে জুড়ায় আখি
নানান রঙের নানান পাখি
আকাশেতে উইড়া বেড়ায়।।

কাচা বাঁশের ঘরটা ফেইলা
ময়না পাখি পাখা মেইলা
তাদের সাথে মিশিতে চাই
মাটির তৈরি ময়না বলে
কইলে কেনে মনটা দিলে
না দিলে জোড় যদি ডানায়।।

ছায়াছবি

ভালোবাসা তোমার ঘরে

ভালোবাসা তোমার ঘরে বৃষ্টি হয়ে নেমে আসুক।।

ইচ্ছেগুলো তোমার ইচ্ছেগুলো জ্যান্ত হয়ে বুকের ভেতর তুমুল নাচুক
ভালোবাসা তোমার ঘরে বৃষ্টি হয়ে নেমে আসুক

চোখের কোণে যত্ন করে জমিয়ে রাখা স্বপ্নগুলো নতুন করে বেঁচে উঠুক
দু’চোখ ভরে দেখবে তখন আকাশ তোমার বাড়ছে কেমন
সেই আকাশেই জন্ম নেয়ার, সূর্যটার আলো দেয়ার
ইচ্ছে তোমার বুকের জমিন তীব্রভাবে স্পর্শ করুক…

ভালোবাসা তোমার ঘরে বৃষ্টি হয়ে নেমে আসুক
ইচ্ছেগুলো তোমার ইচ্ছেগুলো জ্যান্ত হয়ে বুকের ভেতর তুমুল নাচুক
ভালোবাসা তোমার ঘরে বৃষ্টি হয়ে নেমে আসুক।।

আধুনিক

চির অধরা

অবাক চাদের আলোয় দেখ
ভেসে যায় আমাদের পৃথিবী
আড়াল হতে দেখেছি তোমার
নিস্পাপ মুখ খানি ।।

ডুবেছি আমি তোমার চোখের অনন্ত মায়ায়
বুঝি নি কভু সেই মায়া ত আমার তরে নয়।।
ভুল গুলো জমিয়ে রেখে বুকের মনিকোঠায়
আপন মনের আড়াল থেকে…
ভালবাসব তোমায়…ভালবাসব তোমায়।

তোমার চির চেনা পথের ঐ সীমা ছাড়িয়ে
এই প্রেম বুকে ধরে আমি হয়তো যাব হারিয়ে
চোখের গভীরে তবু মিছে ইচ্ছে জড়িয়ে
এক বার শুধু একটিবার হাতটা দাও বাড়িয়ে ।।
ডাকবেনা তুমি আমায় জানি কোনদিন
তবু প্রার্থনা তোমার জন্য হবেনা মলিন ।

হাজার বছর এমনি করে আকাআহের চাদ টা আলো দেবে,
আমার পাশে ক্লান্ত ছায়া আজীবন রয়ে যাবে,
তবুও এ অসহায় আমি ভালবাসবো তোমাকে, শুধু যে তোমাকে…
ভালবাসবো তোমাকেই…

ছায়াছবি

আকাশের ভাজে

আকাশের ভাজে ভাজে মেঘ ভাঙ্গা রোদ
কোন স্বপ্নটা এঁকে যায়
তুমি জানো?
বাতাশের কানে কানে নিরব
কানাকানি
কোন প্রণয়ের কথা বলে যায়
তুমি বোঝ?
সাগরের তীর ভাঙ্গা উত্তাল ঢেউ
কোন কাহিনী বলে যায়
তুমি শোন?
শোন কি?

বাতাস কি বলে গেল কানে কানে
পাখিরা কি বলে গেল গানে গানে
সাগরের ঢেউ ভাঙ্গে রোদ্রে
ঝিলমিল
কি ছবি এঁকে দিল আকাশের মিল
সে তোমার আমার কাহিনী
অমর প্রেমের কাহিনী

সাগরের বুকে আর কত আছে জল
কতটা অঝরে মেঘ ঝরে অবিরল
তারও চেয়ে বেশি ভালোবাসা এ বুকে
অবগাহনে তুমি পাবে নাকো উতল
তোমার উপমা আমি দেব কি দিয়ে
মেঘের আড়ালে তুমি থাকো লুকিয়ে
তোমার উপমা নয় ফুল পাখি জল
তোমার তুলনা তুমি নিজেই জানো
সে তোমার আমার কাহিনী
অমর প্রেমের কাহিনী

কাগজের বুকে কি করে লিখে যাই
আমাদের ভালোবাসার নাই সীমা নাই
পৃথিবীর সব জল কালি যদি হয়
আমাদের কথা তবু লিখা সোজা নয়
তোমার উপমা আমি দেব কি দিয়ে
চাঁদের আড়ালে তুমি থাকো লুকিয়ে
তোমার উপমা নয় প্রজাপতি মেয়ে
তোমার তুলনা তুমি নিজেই জানো
সে তোমার আমার কাহিনী
অমর প্রেমের কাহিনী

ছায়াছবি

কানামাছি

সত্য কি তেতো
সেকি জীবনের মত
বেচেও মোরা নাকি বিভেদের ক্ষত

মিথ্যা কি ভুল
নাকি নীল নোনা জ্বল
দেখতে কেমন সে বলো কতটা অতল!

কানামাছি মিথ্যা…কানামাছি সত্য
কানামাছি তুমি আমি যে যার মত

কানামাছি মিথ্যা…কানামাছি সত্য
কানামাছি তুমি আমি যে যার মত…।।

তোমার প্রেমেতে আমি বুঁদ হয়ে রই
তোমার প্রেমেতে আমি বুঁদ হয়ে রই

তুমি মুখ ফিরিয়ে ডাকো কাকে ঐ
তুমি মুখ ফিরিয়ে ডাকো কাকে ঐ…!

কানামাছি মিথ্যা…কানামাছি সত্য
কানামাছি তুমি আমি যে যার মত

কানামাছি মিথ্যা…কানামাছি সত্য
কানামাছি তুমি আমি যে যার মত…।।

ছায়াছবি

শুয়া উড়িল রে

শুয়া উড়িল উড়িল জীবেরও জীবন
শুয়া উড়িল উড়িল রে

আরলাম আকানে ছিলা আনন্দিত মন
ভবে আসি পিঞ্জরাতে হইলা বন্ধন।

নিদয়া নিষ্ঠুর পাখি দয়া নাই রে তোর
পাষাণ সমান হিয়া কঠিন অন্তর।

পিঞ্জরায় থাকিয়া করলা প্রেমেরও সাধন
পিঞ্জরা ছাড়িয়া যাইতে না লাগে বেদন।

শীতলং ফকিরে কইন দম কর সাধন
দমের ভিতর আছে পাখি করিও যতন।

ছায়াছবি

অপারগতা

দেয়াল গুলো হঠাৎ যেন আয়না
মুখটা কোথাও লুকানো তো যায় না ….
আমার ভিতর অন্য আমি করলো আমায় বন্দী
অপরাগতার সাথে আমার নতুন হলো সুঙ্গি।।।

ঘুম উড়ে যায় কর্পূর হয়ে দুচোখ থেকে,
সোজা পথটা হঠাৎ করেই যাচ্ছে বেঁকে
কে যেন কে বলছে আমায় তোমার নেই তো ক্ষমা
অনুশোচনার একটা পাহাড় হচ্ছে বুকে জমা …
আমার ভিতর অন্য আমি করলো আমায় বন্দী
অপরাগতার সাথে আমার নতুন হলো সঙ্গি।।।।

নীল হয়ে যায় নিষ্ঠুর কালো চারিপাশ,,
আমি নষ্ট নীরব কষ্ট ,কষ্টে হাসে
কে যেন কে দিচ্ছে আমায় অভিশাপের জ্বালা
পৃথিবী যেন বলছে আমায়
পালা এবার পালা।।।
আমার ভিতর অন্য আমি করলো আমায় বন্দী
অপরাগতার সাথে আমার নতুন হলো সঙ্গি।।।

ছায়াছবি

মন যা বলে বলুক

মন যা বলে বলুক,
আমি তোমারই হবো ।
চোখ যা দ্যাখে দেখুক,
আমি তোমাকেই দেখবো ।
ওই মন যা বলে বলুক,
চোখ যা দ্যাখে দেখুক,
আমি জ্বলবো পুড়বো….
হো……মরবো ।

হলে এলোমেলো,আমার জীবন
ছায়া দেখবে তোমারই মতোন ।
হলে এলোমেলো,আমার জীবন
ছায়া দেখবে তোমারই মতোন ।
ও…ও….হো…
দেবে কি জ্বেলে আলো,
বাসবো ভালো ।
মন যা বলে বলুক,
চোখ যা দ্যাখে দেখুক,
আমি তোমাকেই দেখবো।।

রাতের আঁধার কে ছুঁয়ে দিলে,
এই লগনে পূর্ণিমা রাতে ।
রাতের আঁধার কে ছুঁয়ে দিলে,
এই লগনে পূর্ণিমা রাতে ।

ও…ও….হো…
নরম পালকে সাজাবো বাসর ।
মন যা বলে বলুক,
চোখ যা দ্যাখে দেখুক,
আমি তোমাকেই দেখবো।।