যদি ভাবো কিনছো আমায় ভুল ভেবেছ।
কেনা যায় কণ্ঠ আমার দফা দফা
রুজি রোজগারের জন্য করছি রফা

দু’হাতের আঙুলগুলো কিনতে পারো
আপসেও নেই আপত্তি নেই আমারও
আমাকে না আমার আপস কিনছো তুমি
বলো কে জিতল তবে জন্মভুমি জন্মভুমি।।

টাকাতেই চলছে সবার পাকস্থলী
কেনা আর বেচা নিয়ে গেরস্থালি
নীপাগারে রবীন্দ্রনাথ তেরেকেটে
বাজারের খাবার ঐ ঢুকছে পেটে
প্রতিবাদী কণ্ঠগুলো টাকার ব্যাপার
প্রতিবাদ করতে গেলেও খাবার দাবার
সে তুমি শ্রমিক কিংবা তা ধিন ধা না
পেটে চাই খাবার নয়তো দিন চলে না দিন চলে না

যদি ভাবো খাচ্ছো আমায় ভুল ভেবেছো।
খাওয়া যায় কণ্ঠ আমার দফা দফা
বদহজম হলেই কিন্তু দফা রফা
দুহাতের আঙুলগুলো খেতেও পারো
আপসেও নেই আপত্তি নেই আমারও

আমাকে না আমার আপস খাচ্ছো তুমি।
বলো কে জিতল তবে জন্মভুমি জন্মভুমি।।

কেউ বেচে তার মেহনত হাতের পেশী
কেউ বেচে চুলের বাহার এলোকেশী
কেউ বেচে প্রবন্ধ কোন পত্রিকাতে
আমি বেচি আমার কণ্ঠ তোমার হাতে
বেচি আমি আমার পদ্য সুরের ভাষা
বিরক্তি ঘেন্না এবং ভালোবাসা
আশাটাও পণ্য এখন বাজারদরে
বিকোতে পারলে টাকা আসবে ঘরে আসবে ঘরে
বেচি দিন পাল্টে দেবার গানের জবান
কোনদিন হয়তো অন্য আর কোনো গান

টাকাডুম টাকডুমাডুম নিয়ম ছেড়ে।
মানুষের জন্যে সুদিন আনবে কেড়ে।।