আমি কোথায়
বলো কোথায় থাকি রে
বটগাছের পাতা নাইরে।।
আমার ঘরও নাই বাড়িও নাই মনের মানুষ নাই রে
কোথায় ?
ও বলো কোথায় থাকি রে…

তাতে কি ?
ও তাতে কি বা হইল রে
বটের পাতা নাইবা রইলো রে ।
সাধের পিড়িতে বসত হইলে মনেই পাবি ঠাই রে
তাতে ও তাতে কি বা হইল রে
বটের পাতা নাইবা রইলো রে

আশা ছিল কালো কোকিল বাঁধবে ডালে ঘর
আরে বাঁধবে ডালে ঘর
সেই যে পাখি উইড়া গেল পাইলাম না খবর

অনেক দুঃখে সেই না পাখি হইল দেশান্তর
আরে হইল দেশান্তর
মনের ভিটায় বাঁধলো সে যে পিড়িতেরই ঘর
সেই পিড়ীত
পিড়ীত কার বলে রে
দিবা নিশি খুঁইজা মরি রে !
আমার পিড়ীতে মরণ হইলে দুঃখ কিছু নাই রে
ও পিড়ীতি কার বলে রে
দিবা নিশি খুঁইজা মরি রে !

আবার যদি হারাই তোমায় এই না যৌইবন কালে
আরে এই না যৌইবন কালে
আঞ্চলেরই ফাঁস লাগাইয়া ঝুলবো সে কোন ডালে

না পোড়াইও সোনার অংগ
না ভাসাইও জলে
আরে না ভাসাইও জলে
বটবৃক্ষ হইমু আমি তোমার নিদান কালে
তুমি যদি বটবৃক্ষ হও আমি হবো প্রেমলতা রে
মোরা সুখে দুঃখে সারা জীবন কইমু মনের কথা রে ।।
তুমি যদি বটবৃক্ষ হও আমি হবো প্রেমলতা রে
আমি হবো প্রেমলতা রে