দুধে আলতা বদন তোমার,চন্দনের শুভাস ভরা,
দুটি দিগল কাজল আখী, যেন মেঘের কাজল পরা।
দুধে আলতা বদন তোমার,চন্দনের শুভাস ভরা,
দুটি দিগল কাজল আখী, যেন মেঘের কাজল পরা।

তোমার নরম দুটি ঠোটে ফোটে লতার পদ্ম ফুল,
যেন রেশমি সূতার বোজা, তোমার মাথার ওইনা
দুধে আলতা বদন তোমার,চন্দনের শুভাস ভরা,
দুটি দিগল কাজল আখী, যেন মেঘের কাজল পরা।

তুমি ফেলবে যেথা চরন, সেই মাটি হবে ধন্য।
ধুলো হয়ে আসবে উড়ে, তোমার চরন ছোয়ার জন্য।
তোমার হাঁসি দেখে মুখ হিরশা হবে মন,
লজ্জাতে পড়বে ঝরে, যেও নাতো ফুল ও বোন।

তুমি নারী নাকি পরী, বিধি নিজেই করবে ভুল,
আমি তো হায় একটি মানুষ, খুজে পাইনা কোন কূল।
দুধে আলতা বদন তোমার,চন্দনের শুভাস ভরা,
দুটি দিগল কাজল আখী, যেন মেঘের কাজল পরা।

তোমার কন্ঠ শুনে কোকিল, যেন বোবা হয়ে যাবে,
এতো মিষ্টি সুর ও সারগাম, ও সে কোথায় খুজে পাবে।
তোমার মুখটি দেখে চাঁদের, মুখ হয়ে যাবে কালো,
ডুবে যাবে কালো মেঘে, বুজি দেবে না আর আলো।

তুমি নারী নাকি পরী, বিধি নিজেই করবে ভুল,
আমি তো হায় একটি মানুষ, খুজে পাইনা কোন কূল।
দুধে আলতা বদন তোমার,চন্দনের শুভাস ভরা,
দুটি দিগল কাজল আখী, যেন মেঘের কাজল পরা।

দুধে আলতা বদন তোমার,চন্দনের শুভাস ভরা,
দুটি দিগল কাজল আখী, যেন মেঘের কাজল পরা।