ও চোখে চোখ পড়েছে যখনি
তুমি হলে মনের রাণী
তোমার দৃষ্টি যেন ছোবল হানে
যখন তখন শুধু আমার প্রানে, ওরে কালনাগিণী।।

ও চোখে চোখ পড়েছে যখনি
আমি হলেম কলঙ্কিনী
আমার অঙ্গ ঢাকে আটপ্রৌরে শাড়ী
মনটা থাকে সদায় বাহির বাড়িতে, ওরে উদাসিনী।।

ভেবেছিলাম প্রেমানলে মন পোড়াবো না
শেষে যে কলিজাতে ঘুণ ধরাতে হল।
মনেরই চোর গলিতে আসতে তো চাই নি
সোনার হরিণ তবু আমায় ডেকে নিয়ে এল
এই সোনার হরিণ তবু আমায় ডেকে নিয়ে এল।।

ও বন্ধু চোর গলিতে না এলে
আমি হতেম বিরহিনী
ঐ বাঁশী যদি না হত বাঁশী
নিজের ঘরে হতেম পরবাশী
কেঁদে একাকিনী।।

ভেবেছিলাম নাইতে এসে চুল ভেজাবো না।
শেষে যে অথৈ জলে ডুবে যেতে হল
আমি যাকে প্রেম বলে গলায় পড়েছি
লোকে বলে পোড়ামুখীর জাত কূল মান গেল

সজিনী কূল ছেড়ে গো না এলে
তুমি হতে অভাগিনী
এই যৌবনে কেউ না এলে কাছে
এত রূপের কি দাম বল আছে গো
হতে সন্যাসিনী।।