বাড়ি ফেরার পথে ঝুলতে থাকা চৈতালির গেট
অবুঝ চোখে স্বপ্ন আঁকা ভাবনা অনিঃশেষ।

স্বপ্নের ধুলো মাখা পথে হাতে হাত রেখে চলা
দীপ্ত শপথ প্রেরণা আজও অপরাজেয় বাংলা
বন্ধুর হাতে গিটার আর আমার কন্ঠে গান
জীবন পথের ধুসর মায়ায় বন্ধুর পিছুটান।।

মলের মাঠে শর্ট ক্রিজ ক্রিকেট দুই একটা রান চুরি
ক্লাশের শেষে আড্ডাবাজি ডাকসুর ভেলপুরি
কলাভবন, শহীদ মিনার, কার্জনে ঘোরাঘুরি
কারও হাতে সিগারেট আর কারও হাতে ঝালমুড়ি
আড্ডাবাজির নেই যে শেষ কখন পাঁচটা বাজে
চৈতালিতে বাড়ি ফেরা, কেউ বা অন্য কাজে
এই তো জীবন স্বপ্নিল জীবন মিস করি তাই ভীষণ
এভাবেই হাতে হাত রেখে চলে স্বপ্নের বিবর্তন
বন্ধুর হাতে গিটার আর আমার কন্ঠে গান
জীবন পথে ধুসর মায়ায় বন্ধুর পিছুটান

জেগে থাকা ফুলার রোড আর সোডিয়ামের বাতি
হন্টক হয়ে ছুটতাম পথে সন্ধ্যা থেকে রাতি
মামায় বসে গরম ভাত আর মুরগীর ঝালফ্রাই
এক বাটিতে হয়ে যেত তিন জনের পেট ঝালাই
বন্ধুর হাতে গিটার, আর সঞ্জীব দা’র গান
আমি তোমাকেই বলে দেবো কি যে একা দীর্ঘ রাত
আমি হেঁটে গেছি বিরান পথে

ভালোবাসার ক্যনভাস রাঙায় টিএসসির ওই ঘাস
মিষ্টি আবেশ ছুঁয়ে যেত প্রিয়ার চোখের আকাশ
কখনো আমতলায় কিংবা কখনো বটতলায়
কাক মামাটা ভীষণ পাজি প্রেমের রেশটা থামায়
কিনে দিতাম বইমেলাতে হুমায়ুনের বই
মধুমাখা সেই দিন গুলো হারিয়ে গেলো কই
এই তো জীবন স্বপ্নিল জীবন
মিস করি তাই ভীষণ
এভাবেই হাতে হাত রেখে চলে স্বপ্নের বিবর্তন
বন্ধুর হাতে গিটার আর আমার কন্ঠে গান
জীবন পথে ধুসর মায়ায় বন্ধুর পিছুটান…

কথা ও সুরঃ সাহস মোস্তাফিজ
সঙ্গীতায়োজনঃ বাপ্পা মজুমদার