গান-1 of 8

যৌবনহীন যুবক একটা চুল্লুর ঘোরে চুর
পোড়ামুখে তার আধ-পোড়া বিড়ি লোকে বাহাদুর-
*
চাকরীর তরে চোরকির মত ঘুরেছে নেতার দুয়ারে
কলেজের পাঠ চুকিয়ে আজ অবস্থা লেজে-গোবরে
পাঁজরের হাড়ে হারমোনিয়াম বাজেনাতো কোনো সুর
পোড়ামুখে তার আধ-পোড়া বিড়ি লোকে বাহাদুর-
*
নেশাটা একটু খাশা হলেই সে কপাল চাপড়ে হাসে
পোড়ামুখি বোন ধরা পড়ে শেষে ঝুলছে শাড়ির ফাঁসে!
হাতে ছিল তারই লেখা চিঠি “দাদা চাকরীটা কত দূর!
পোড়ামুখে তার আধ-পোড়া বিড়ি লোকে বাহাদুর-
*
বেকার বাপের হকার ছেলেটা দেয়নি কাউকে ঠিকানা
শুধু জানি তার ধূপকাঠি ছিল তিন টাকা চার-আনা
আজ সেতো নেই চোলে গেছে সেই “আলোকবর্ষ দূর!”
পোড়ামুখে তার আধ-পোড়া বিড়ি লোকে বাহাদুর-
*
যৌবনহীন যুবক একটা চুল্লুর ঘোরে চুর
পোড়ামুখে তার আধ-পোড়া বিড়ি লোকে বাহাদুর-

—————————- * —————————-
গান-২
মন্ত্রীমশাই, ওহে মন্ত্রীমশাই-
তুমি নাকি সেই ঠাকুর ঘরের কলা চোরের মাস্তুতো ভাই,
তুমি নাকি সেই ধর্মতলার নুলো পাগলার পিস্তুতো ভাই,
মন্ত্রীমশাই, ওহে মন্ত্রীমশাই।

*

রাজনীতি ক’রে রোজগার করা ভালোই করেছ রপ্ত,
আমি নাগরিক নাগরের মত হয়েছি তোমা ভক্ত!
লোকে বলে তাই-
তমি নাকি সেই শকুনি মামার বড় আপনার কলির কানাই৷
মন্ত্রীমশাই, ওহে মন্ত্রীমশাই-

*

মঞ্চে মঞ্চে উচ্চ বাচ্চে শুনি যত বক্তব্য,
মনে হয় তুমি মহা জিনিয়াস আর সবে অপদার্থ৷
লোকে বলে তাই-
তমি নাকি পুঁজিবাদীদের পুঁজিবরবাদী সহোদরভাই৷
মন্ত্রীমশাই, ওহে মন্ত্রীমশাই-

*

শাক দিয়ে মাছ, ঘাস দিয়ে ভাম ঢাকানো বড়োই শক্ত,
ফিনিক্স্ পাখির মত ধেয়ে আসে যুগ-সন্ধির সত্য৷
তুমি জানো নাই-
আমি যে তোমার কানা মামার আস্ত চামার ভাগ্নে জামাই৷

*

মন্ত্রীমশাই, ওহে মন্ত্রীমশাই-
তুমি নাকি সেই ঠাকুর ঘরের কলা চোরের মাস্তুতো ভাই,
তুমি নাকি সেই ধর্মতলার নুলো পাগলার পিস্তুতো ভাই,
মন্ত্রীমশাই, ওহে মন্ত্রীমশাই।