বিধি ডাগর আঁখি যদি দিয়েছিল
সে কি আমারি পানে ভুলে পড়িবে না।।

দুটি অতুল পদতলে রাতুল শতদল
জানি না কী লাগিয়া পরশে ধরাতল,
মাটির ‘পরে তার করুণা মাটি হল
সে পদ মোর পথে চলিবে না?
তব কণ্ঠ ‘পরে হয়ে দিশাহারা
বিধি অনেক ঢেলেছিল মধুধারা।

যদি ও মুখ মনোরম শ্রবণে রাখি মম
নীরবে অতি ধীরে ভ্রমরগীতিসম
দু কথা বল যদি ‘প্রিয়’ বা ‘প্রিয়তম’,
তাহে তো কণা মধু ফুরাবে না।

হাসিতে সুধানদী উছলে নিরবধি,
নয়নে ভরি উঠেঅমৃতমহোদধি–
এত সুধা কেন সৃজিল বিধি,
যদিআমারি তৃষাটুকু পুরাবে না।।